ডিসেম্বর ০৭, ২০২১ ১৬:২৯ Asia/Dhaka
  • যেসব কারণে রেডিও তেহরান আমার পছন্দের বেতারকেন্দ্র

মহাশয়, সালাম ও শুভেচ্ছা জানবেন। আশা করি সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। আমি ইরানের জাতীয় সম্প্রচার সংস্থা আইআরআইবির বিশ্ব কার্যক্রমের বাংলা অনুষ্ঠান রেডিও তেহরান বাংলা'র জন্ম লগ্নের শ্রোতা। বহির্বিশ্বের যত বেতার অনুষ্ঠান শুনি তাঁর ভেতর এক নম্বর পছন্দের বেতারকেন্দ্র হলো রেডিও তেহরান। এ বেতারটি আমার জীবনঘনিষ্ঠ হবার একমাত্র কারণ হলো এর ব্যতিক্রমধর্মী প্রচারণা। 

রেডিও তেহরানের প্রতি সবার দৃষ্টি আকর্ষিত হবার কারণ হলো এর বিশ্ব সংবাদ। বিশ্বের সকল গণমাধ্যম যখন কোনো না কোনো পক্ষের স্বার্থ পূরণের লক্ষ্যে সংবাদ  প্রচার করে চলেছে অথবা প্রকৃত সত্য আড়াল করে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে সংবাদ প্রচারে নিয়োজিত রয়েছে তখন রেডিও তেহরান ওই সত্য, নিরপেক্ষ, বস্তুনিষ্ঠ ও তরতাজা সংবাদ পরিবেশন করে প্রকৃত সত্য তুলে ধরে সবার প্রিয়ভাজন হয়েছে। সেই সাথে অন্যান্য দেশের খবরের পাশাপাশি দৃষ্টিপাত ও আলাপন অনুষ্ঠানে ভারত-বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ সংবাদসমূহ মাঠ পর্যায়ের প্রতিবেদনসহ প্রচার করে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পেরেছে।

রেডিও তেহরানই একমাত্র বেতার যা ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ দৈনিক খবরের কাগজের বিস্তারিত বিবরণ ও বিশ্লেষণমূলক অনুষ্ঠান প্রচার করে থাকে। এটি শ্রোতাদের অতিরিক্ত পাওয়া বলে মনে করি। রেডিও তেহরানের নিরপেক্ষতার প্রমাণ মেলে এ বছর দূর্গা পূজার সময় বাংলাদেশসহ ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে সংঘটিত গোষ্ঠী সংঘর্ষের খবর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করায়।

রেডিও তেহরান শুধু খবর প্রচারের মাধ্যমেই যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে তা নয় বরং সাপ্তাহিক ধারাবাহিক অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে দিয়েও শ্রোতাদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে। যেমন- প্রিয়জন, রংধনু আসর, গল্প ও প্রবাদের গল্প অনুষ্ঠানসমূহ শিশু-কিশোর থেকে আবাল-বৃদ্ধ-বনিতাসহ সকল শ্রেণীর শ্রোতাদেরকে মনোরঞ্জনের খোরাক জোগাতে সক্ষম হয়েছে এবং ভারত-বাংলাদেশের কিশোর-কিশোরীদের প্রতিভা বিকাশে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে।

 পাশ্চাত্যে জীবন ব্যবস্থা সম্পর্কে আমাদের তেমন কোনো ধারণাই ছিল না পূর্বে, রেডিও তেহরানের মাধ্যমে পাশ্চাত্যের জীবন ব্যবস্থা সম্পর্কে পরিচিত হতে অপূর্ব সুযোগ করে দিয়েছে। সেই সাথে ঘরে বসে চিকিৎসা সেবার বিভিন্ন ব্যবস্থা সম্পর্কে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের সুপরামর্শ ও বিভিন্ন রোগের বিষয়ে বিস্তারিত জানার সুযোগ ঘটেছে স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।

রেডিও তেহরান আরো একটি মহতি কার্য চালিয়ে যাচ্ছে। আর তা হলো- আমাদের শিশুদেরকে কিভাবে ইসলামের আলোকে সুন্দর, সৎ, চরিত্রবান, সুনাগরিক ও উপয়ুক্ত মানুষ তথা মানবসম্পদে পরিণত করা যায় তাঁর জন্য 'আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল' শীর্ষক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।   

পারস্য উপসাগরের থেকে বঙ্গোপসাগর সুদূর ইরান থেকে আমাদের জন্য এতো কিছু করেও রেডিও তেহরান ক্ষান্ত হয়নি তাই ইরানের প্রাচীন ইতিহাস-ঐতিহ্য, কৃষ্টি-সংস্কৃতি ও ইরানি জনগণের সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার এক অপূর্ব সুযোগ ও সেতু বন্ধনের সৃষ্টি করেছে ইরান ভ্রমণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যা ঘরে ঘরেই ইরান ভ্রমণের স্বাদ মিটানোর সুযোগ ঘটছে। সেই সাথে ইরাকের চাপিয়ে দেওয়া যুদ্ধ যার শুধু নাম ওই আমরা শুনতাম, সেই ভ্রাতৃঘাতী যুদ্ধ যা ইরাক-ইরান যুদ্ধ নামে ইতিহাসে পরিচিত লাভ করেছে সেই যুদ্ধের ইতিহাস ও বিস্তারিত বিবরণ শুনে ধন্য হয়েছি 'ইরান-ইরাক যুদ্ধের ইতিহাস' নামক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।

রেডিও তেহরান শুধুমাত্র আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক নৈতিক মূল্যবোধ ও আদর্শ গড়ার অনুষ্ঠান নয়, এটি একটি বহুমুখী শিক্ষার বিচিত্র অনুষ্ঠান। তাই ধর্মীয় শিক্ষার দিকটিও বাদ পড়ে নি। পবিত্র কুরআনুল কারিমের তেলাওয়াত, তাফসিরসহ আসমাউল হুসনা এবং ইসলামের স্মরণীয় দিনের বিশেষ অনুষ্ঠান ও বিশেষ ব্যক্তিত্বের দিবস পালনসহ সকল ধর্মীয় নীতি নৈতিকতার শিক্ষা দান করে রেডিও তেহরান সবার ঊর্ধ্বে স্থান দখল করতে সক্ষম হয়েছে।

এহেন আদর্শ, পারিবারিক, সামাজিক ও উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন একটি বেতারকে যা   দিয়েছি তার চেয়ে পেয়েছি বেশি। তাই রেডিও তেহরান কে কী কখনো ভুলতে পারি?

শেষ সবার মঙ্গল কামনা করে শেষ করছি।

 

ধন্যবাদান্তে,

আব্দুস সালাম সিদ্দিক,

সভাপতিসকাল-সন্ধ্যা রেডিও লিসেনার্স ক্লাব,

কান্দুলিয়া, বড়পেটা, আসাম, ভারত।

 

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ