জানুয়ারি ২১, ২০২২ ১১:৫৫ Asia/Dhaka
  • ‘২০২১ সালের শ্রেষ্ঠ শ্রোতা নির্বাচিত হওয়া, আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ পাওয়া’

মহাশয়, মানুষের ভাগ্য দৈবের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় তা জানি না, কিন্তু স্বীয় কর্মের দ্বারা যে বহুলাংশে নিয়ন্ত্রিত হয়, সে কথা মানি। লোকে তাই কথায় বলে "শুয়ে থাকলে ভাগ্য ও শুয়ে থাকবে"। অর্থাৎ সহজ কথায়- চেষ্টা না করলে কোনো অভীষ্ট সিদ্ধ হয় না। ভাগ্যোন্নতির মূল সোপান হল নিরলস কর্মপ্রচেষ্টা বা অধ্যবসায়। ‘উদ্যম বিহনে কার পুরে মনোরথ?’

জীবনে উন্নতি লাভ করতে হলে দুর্ভাগ্যের অবসান ঘটিয়ে, সুখের মুখ দেখতে হলে আলস্য ও জড়তা ত্যাগ করে, মানুষকে উদ্যোগী হতে হয়- কাজ করে যেতে হয়। আর তার করতে পেরেছি বলে রেডিও তেহরানের মতো জনপ্রিয় বেতার কেন্দ্রে ২০২১ সালের শ্রেষ্ঠ শ্রোতা নির্বাচিত হতে পেরেছি, যা আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ পাওয়া।

আমাদের ভারতীয় উপমহাদেশে সংস্কৃতে একটা কথা আছে ‘উদ্যোগিনং পুরুষসিং হহমুপৈতি লক্ষ্মীঃ’ । অর্থাৎ যে উদ্যোগী সে লক্ষ্মী লাভ করে। সহজকথায় যদি পরিশ্রম করে তবেই না উপার্জন করতে পারবে। ধন্যবাদান্তে বলো, ঐশ্বর্য বলো, বিদ্যা বলো, যশ বলো সব-ই নির্ভর করে মানুষের উদ্যোগ ও কর্মতৎপরতায়। স্বীয় লক্ষ্যে নিরলস কর্মপ্রচেষ্টায় অভীষ্ট সিদ্ধ হয়। দ্বিধা ও জড়তায় অভীষ্ট সিদ্ধ হয় না।

প্রাণীজগতে তাই চলেছে নিরন্তর কর্মের সাধনা। মানুষের ইতিহাস ঘোষণা করেছে যে, জীবন সংগ্রামে নিশ্চেষ্ট হয়ে বসে থাকলে ভাগ্যের উন্নতি হয় না, দুঃখ, দারিদ্র্য কিছুই ঘোচে না, কর্মহীন তায় মানুষ হয় পঙ্গু, জড়পদার্থ। জগতে যারা কৃতী পুরুষ, তারা সকলেই নিরলস কর্মী। নিরলস কর্মসাধনায়, ব্রতী হয়ে কত দরিদ্র মানুষ ধনী হয়েছে তার ইয়াত্তা নেই। অর্থাৎ যারাই উদ্যোগী ও নিরলস কর্মী তাদের ভাগ্যেই এসেছে যশ ও খ্যাতি।

বিচক্ষণ ব্যক্তিরা সেইজন্যই চিরকাল ধরে বলে চলেছেন- "ওঠো জাগো! অলস স্বপ্নে দিনযাপন করো না, উদ্যোগী হও, পরিশ্রম করো। প্রাজ্ঞ ব্যক্তিরা আমাদের উপদেশ দিয়ে বলেছেন – ‘যতন করহ, লাভ হইবে রতন’। ‘ইচ্ছে থাকে যার উপায় হয় তার’ প্রভৃতি।

আসল কথা হল, অলসতা দূর করে প্রতিটি কাজে আমাদের উদ্যোগী হতে হবে, কাজটি যাতে সুসম্পন্ন হয়, সাফল্যমণ্ডিত হয়, সেদিকে সচেষ্ট থাকতে হবে। শ্রেষ্ঠ শ্রোতা নির্বাচিত হবার সাফল্য গৌরবে গৌরবান্বিত হবার জন্য আমি আমার সকল সংকোচ ও জড়তা দূর করে ছিলাম কর্মোদ্যোগী। আর সে প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছি ২০২২ সালেও। রেডিও তেহরানের প্রতি ভালোবাসা ও বিশ্বাস আর কবিগুরুর এই বাণী আমাকে উদ্দীপ্ত করে চলেছে-----

"সংকোচের বিহ্বলতা নিজেরি অপমান

সঙ্কটের কল্পনাতে হয়ো না ম্রিয়মাণ।"

 

ধন্যবাদান্তে

বিধান চন্দ্র সান্যাল

ঢাকা কলোনী, বালুরঘাট

দক্ষিণ দিনাজপুর, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত।

 

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২০

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ