জানুয়ারি ২৩, ২০২২ ১৭:৩৬ Asia/Dhaka
  • ইরানের সর্বোচ্চ নেতা
    ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী মিডিয়া যুদ্ধে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। নবী নন্দিনী হজরত ফাতিমা জাহরা (সা. আ.)'র শুভ জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আহলে বাইতের প্রশংসা বর্ণনাকারীদের এক সমাবেশে তিনি আজ (রোববার) এ আহ্বান জানান।

সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, শত্রুরা যখন ইরানকে অর্থনৈতিকভাবে চাপের মুখে ফেলে ইসলাম ধর্ম এবং ইসলামী শাসন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে জনগণকে দাঁড় করাতে চাইছে তখন অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে মানুষের সেবা করা মানেই শত্রুর বিরুদ্ধে জিহাদ।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, আহলে বাইতের সদস্যদের জীবন ও ঘটনা বর্ণনার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা পুরোপুরি আল্লাহর জন্য। এটা আহলে বাইতের পথ, ইমাম হোসেইন (আ.) ও শাহাদাতের আদর্শকে সমুন্নত করার জিহাদ। এটা হলো ইসলাম ধর্মের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা তুলে ধরার ক্ষেত্র।  

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, আমাদেরকে নিজেদের কাছেই এই প্রশ্ন করতে হবে যে আমরা ইসলাম ও কুফর, ন্যায়-অন্যায় এবং সত্য-মিথ্যার লড়াই বা জিহাদে কোথায় অবস্থান করছি। কোন পক্ষে আছি। আপনাদের এ সংক্রান্ত কেন্দ্রগুলোকে প্রশ্ন করুন তারা এই জিহাদে কোন পক্ষে আছে?

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, সব চেষ্টা-প্রচেষ্টার অর্থই জিহাদ নয়। অনেকেই অনেক ধরণের চেষ্টা-প্রচেষ্টা চালায়। এগুলো ভালো তৎপরতা, কিন্তু তা জিহাদ নয়। তখনি কেবল সেটাকে জিহাদ বলা যাবে যখন তাতে শত্রুকে মোকাবেলার উদ্দেশ্য থাকবে। আপনি যখন অর্থনৈতিক, বৈজ্ঞানিক ও অন্যান্য কাজ করেন এবং এর পেছনে শত্রুকে মোকাবেলার উদ্দেশ্য থাকে তখন তা জিহাদ হিসেবে গণ্য হয়।#

পার্সটুডে/এসএ/২২

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ