জুন ২৩, ২০২২ ১৬:৪৯ Asia/Dhaka
  • সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ হন বিজ্ঞানী ফাখরিজাদে
    সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ হন বিজ্ঞানী ফাখরিজাদে

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের কয়েকজন পরমাণু বিজ্ঞানী হত্যার জন্য ইহুদিবাদী ইসরাইলকে সহযোগিতা করায় মার্কিন প্রশাসন ও আমেরিকার কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে দোষী সাব্যস্ত করেছে ইরানের একটি আদালত। এজন্য ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৪৩০ কোটি ডলার দিতে ওয়াশিংটনকে নির্দেশ দিয়েছে ইরানের ওই আদালত।

ইরানের তিন শহীদ পরমাণু বিজ্ঞানীর পরিবারের সদস্যরা, একজন আহত পরমাণু বিজ্ঞানী এবং শহীদ তিন পরমাণু বিজ্ঞানীর স্ত্রীরা মার্কিন প্রশাসন ও আমেরিকার কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তেহরানের আদালতে মামলা করেন। ইহুদিবাদী ইসরাইল এসব হত্যাকাণ্ড বাস্তবায়ন করলেও আমেরিকা তাতে সক্রিয় সহযোগিতা দেয়। হত্যাকাণ্ডের ফলে পরমাণু বিজ্ঞানীদের পরিবারের সদস্যরা শারীরিক, মানসিক ও আর্থিকভাবে মারাত্মক ক্ষতির শিকার হন। এসব বিজ্ঞানীর পরিবারের সদস্যদের অনেকে হামলায় সরাসরি শারীরিকভাবে আহত হয়েছেন।

মামলার রায়ে আদালত বলেছে, আন্তর্জাতিক দায়-দায়িত্ব ও নিয়ম-কানুনের লঙ্ঘন এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সন্ত্রাসবাদের প্রতি মার্কিন সমর্থনের উদাহরণ বন্ধ করতে বাদী পক্ষ এই মামলা করেছে।

মামলায় ৩৭ জন মার্কিন নাগরিককে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে যার মধ্যে আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ডোনাল্ড ট্রাম্প রয়েছেন। এছাড়া, সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, সাবেক ইরান বিষয়ক মার্কিন দূত ব্রায়ান হুক এবং সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশ্টোন কার্টার রয়েছেন।

কর্নেল হাসমান খোদায়ির স্বজনদের আহাজারি

মামলার রায়ে বলা হয়েছে, ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীদের হত্যার জন্য ইসরাইলের জড়িত থাকার প্রমাণ নিশ্চিত হয়েছে এবং হত্যাকাণ্ড বাস্তবায়নে আমেরিকা ইসরাইলকে অর্থনৈতিক ও সামরিক সহযোগিতা দিয়েছে। একটি সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র হিসেবে ইসরাইল প্রতিষ্ঠায় আমেরিকার কার্যকর ভূমিকা রয়েছে। এছাড়া, মার্কিন কংগ্রেস ইসরাইলের সমর্থনে বেশ কয়েকটি আইন পাস করেছে।

গত কয়েক বছরে ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীরা ইসরাইল ও পশ্চিমা দেশগুলোর গুপ্তচরদের হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছেন। ২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে ইরানের চার পরমাণু বিজ্ঞানী মাসুদ আলী মোহাম্মাদি, মাজিদ শাহরিয়ারি, দারিউশ রেজায়িনেজাদ এবং আহমাদি রোশান গুপ্তহত্যার শিকার হন। এছাড়া, পরমাণু বিজ্ঞানী ফেরেইদুন আব্বাসি সন্ত্রাসী হামলায় আহত হন। গুপ্তহত্যার ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালের ২৭ নভেম্বর ইরানের আরেক পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদে শহীদ হন। এই হত্যাকাণ্ডের পর ইরানি কর্মকর্তারা বলেছিলেন, ইসরাইল মূলত আমেরিকার গুপ্তচর হিসেবে কাজ করেছে এবং খ্যাতিমান পরমাণু বিজ্ঞানীকে হত্যা করেছে। সর্বশেষ সন্ত্রাসী হামলায় গত ২২ মে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির কর্নেল হাসান খোদায়ি শহীদ হন।#  

পার্সটুডে/এসআইবি/২৩

ট্যাগ