আগস্ট ১৯, ২০২২ ১৮:৫৯ Asia/Dhaka
  • হাসান আবু তোরাবি ফারদ
    হাসান আবু তোরাবি ফারদ

তেহরানের জুমার খতিব বলেছেন: মুক্তিপ্রাপ্তরা বন্দি থাকার সময় ইরাকের বাথিস্ট শিবিরগুলোকে আশুরা শিক্ষার স্কুলে পরিণত করেছিল।

১৯৯০ সালের ২৬ আগস্ট ইরাকের বাথ সরকারের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছিল ইরানি বন্দিরা। হাসান আবু তোরাবি ফারদ বলেন: বছরের পর বছর ভয়ংকর নির্যাতনের মধ্যে কারাবন্দি থাকার পর ইরানের মাটিতে পা রেখেছিল বন্দিরা। শত্রুদের বিরুদ্ধে বুদ্ধিবৃত্তিক প্রতিরোধের ফলে বন্দিরা মুক্তি পেয়ে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেছিল বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বন্দিদের প্রত্যাবর্তন দিবসকে তিনি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করে বলেন: ইরানের সোনার ছেলেরা এক দশকের কারাবাসকালে পবিত্র প্রতিরক্ষা যুদ্ধের ইতিহাসে একটি সোনালি অধ্যায় রচনা করেছে। তারা আক্ষরিক অর্থেই আশুরাকে যথার্থ মর্যাদা ও ধৈর্য অর্জনের প্রতীকি মডেলে পরিণত করেছে।

বিশিষ্ট এই আলেম বলেন: বন্দিরা ইরাকের বাথ সরকারের কারাগারে বিচিত্র সমস্যা এবং কষ্ট ও নির্যাতন ভোগ করেছে। তবে বন্দি থাকাকালে তাদের মধ্যে দৃঢ় ঐক্য ও সংহতিও গড়ে উঠেছিল।#

পার্সটুডে/এনএম/১৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ