সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২ ১৫:৫৭ Asia/Dhaka

সহিংসতা ও নাশকতার বিরুদ্ধে ইরানজুড়ে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। পুলিশ হেফাজতে একজন নারীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে যারা দেশজুড়ে সহিংসতা ও নাশকতা চালাচ্ছে এবং মসজিদসহ পবিত্র স্থানে হামলা চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে আজ সর্বস্তরের জনতা রাস্তায় নেমে আসেন।

বিক্ষোভকারীরা অবিলম্বে সহিংসতা ও নাশকতা বন্ধের জন্য বিদেশি মদদপুষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান। তারা বলছেন- এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে সহিংসতাকামীরা জনরোষের শিকার হবেন। 

আজ শুক্রবার জুমার নামাজের আগে ও পরে রাজধানী তেহরানসহ দেশের প্রধান শহরগুলোর বাস্তায় বিপুল সংখ্যক মানুষের উপিস্থতি লক্ষ্য করা যায়। যাদের কণ্ঠে ছিল সহিংসতাকামীদের বিরুদ্ধে নানা শ্লোগান। অনেকের হাতে ছিল সহিংসতাকামীদের বিরুদ্ধে শ্লোগান লেখা নানা প্ল্যাকার্ড। তারা ইসলামি বিপ্লবের প্রতি নিজেদের সমর্থনের কথা ঘোষণার পাশাপাশি এই পথে অটল থাকার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। 

বিক্ষোভকারীরা বলেন, মাহসা আমিনির মৃত্যু দুঃখজনক। কিন্তু এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে যেসব কর্মকাণ্ড করা হচ্ছে তা সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। তারা পশ্চিমা গণমাধ্যমের উসকানিমূলক তৎপরতার কঠোর নিন্দা জানান। 

বিক্ষোভকারীদের অনেকের হাতে শহীদদের ছবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ডও ছিল। এসব শহীদের কেউ কেউ ১৯৭৯ সালে ইসলামি বিপ্লবের সময় তৎকালীন স্বৈরশাসকের পেটোয়া বাহিনীর হাতে প্রাণ হারিয়েছেন। 

তেহরানের বিক্ষোভকারীরা জানান, মাহসা আমিনির মৃত্যুকে অজুহাত করে গত কয়েক দিনে ইরানে হিজাবধারী নারীদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। ইমাম হুসাইন (আ.)'র নাম লেখা ঝাণ্ডার অবমাননা করা হয়েছে। মসজিদ ও মাজারে আগুন দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হত্যা করা হয়েছে। এসবের প্রতিবাদেই আজ আমরা রাস্তায় নেমে এসেছি। # 

পার্সটুডে/এসএ/২৩

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ