২০১৯-০৯-২১ ০৬:৫৮ বাংলাদেশ সময়
  • জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি
    জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি

সৌদি আরবের দু’টি তেল স্থাপনায় ইয়েমেনের হুথি যোদ্ধাদের ড্রোন হামলায় ইরানের হাত রয়েছে বলে আমেরিকা যে দাবি করেছে সে সম্পর্কে জাতিসংঘে প্রতিবাদলিপি দিয়েছে তেহরান। জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি জাতিসংঘ মহাসচিবের পাশাপাশি নিরাপত্তা পরিষদের প্রধানের কাছে ওই প্রতিবাদলিপি হস্তান্তর করেন।

এতে তিনি বলেন, আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে ‘সর্বোচ্চ চাপ’ প্রয়োগের ধারাবাহিকতায় ‘সর্বোচ্চ প্রতারণা’র কৌশল বেছে নিয়েছে। তাখতে রাভানচি বলেন, এ ধরনের ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলার চেয়ে বরং আমেরিকার উচিত সৌদি আরবের কাছে অত্যাধুনিক মারণাস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করা যাতে এসব অস্ত্র দিয়ে ইয়েমেনের নিরাপরাধ মানুষ হত্যা বন্ধ করতে বাধ্য হয় রিয়াদ।

ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি পরিচালনা করে ইরান জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাব লঙ্ঘন করছে বলে আমেরিকা যে অভিযোগ করেছে প্রতিবাদলিপিতে তাও নাকচ করে দেন তাখতে রাভানচি। তিনি বলেন, ইরানের কোনো ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রে পরমাণু অস্ত্র বহনের ব্যবস্থা রাখা হয়নি বরং নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাব মেনেই নিজের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি পরিচালনা করছে তেহরান।

প্রতিবাদলিপিতে ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, আমেরিকা এমন সময় ইরানকে ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের আংশিক লঙ্ঘনের দায়ে অভিযুক্ত করছে যখন ওয়াশিংটন ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে ওই প্রস্তাব পুরোপুরি পদদলিত করেছে।

তাখতে রাভানচি বলেন, আমেরিকা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব স্বেচ্ছাচারীভাবে লঙ্ঘন করার কারণে এই পরিষদের গ্রহণযোগ্যতায় মারাত্মক ধস নেমেছে। তিনি আমেরিকাকে তার আচরণের ব্যাপারে জবাবদিহী করতে বাধ্য করার জন্য বিশ্ব সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।#

পার্সটুডে/এমএমআই/২১                     

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ

মন্তব্য