ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯ ০৭:৩৭ Asia/Dhaka
  • ট্রাম্প
    ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন ইরানে উৎপন্ন ভারী পানির ক্রেতাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বলে খবর দিয়েছে মার্কিন পত্রিকা ওয়াশিংটন ফ্রি বিকন (Washington Free Beacon)।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন পদস্থ মার্কিন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানিয়েছে, ইরান যাতে তার পরমাণু স্থাপনায় উৎপন্ন ভারী পানি রপ্তানি করতে না পারে সেজন্য এ ব্যবস্থা নিতে চায় ট্রাম্প প্রশাসন।

ওয়াশিংটন ফ্রি বিকনকে এসব মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, ভারী পানি বিক্রি করে ইরান কোটি কোটি ডলারের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারে; কিন্তু ওয়াশিংটন তেহরানকে তা করতে দেবে না।  

ইরানের ফোরদো পরমাণু স্থাপনার অভ্যন্তরীণ দৃশ্য (ফাইল ছবি)

মার্কিন সরকার চলতি বছরের ৩ মে ইরানে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম ও ভারী পানি বিদেশে রপ্তানিতে দেয়া ছাড় তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এ ছাড়া, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও গত ১৮ নভেম্বর ঘোষণা করেন, ওয়াশিংটন ইরানের ‘ফোরদো’ পরমাণু স্থাপনায় উৎপন্ন পণ্য কেনার ওপর দেয়া ছাড়ও প্রত্যাহার করে নেবে।

মার্কিন সরকার এমন সময় এসব ছাড় প্রত্যাহারের কথা বলেছে, যখন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবে সুস্পষ্ট ভাষায় এসব ছাড় দেয়ার কথা বলা হয়েছে। অর্থাৎ আমেরিকা জাতিসংঘের আইন লঙ্ঘন করে এ ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে।

পাশ্চাত্যের সঙ্গে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা ২০১‌৬ সালের জানুয়ারি মাস থেকে কার্যকর হয়। মার্কিন সরকার প্রথম দিন থেকেই এ সমঝোতা বাস্তবায়নে গড়িমসি করে এবং ২০১৭ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করে এ সমঝোতা থেকেই বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। তিনি অবশেষে ২০১৮ সালের মে মাসে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।#

পার্সটুডে/এমএমআই/১৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য