ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০ ০৭:৫৬ Asia/Dhaka
  • ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ
    ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ার তেলের জন্য দেশটিতে তার দেশের সেনা উপস্থিতির কথা স্বীকার করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ।তিনি আরো বলেছেন, ইরানের অবস্থান যে উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশের (আইএস) বিরুদ্ধে সে কথাও মেনে নিয়েছেন ট্রাম্প।

জারিফ মঙ্গলবার রাতে এক টুইটার বার্তায় লিখেছেন, “ডোনাল্ড ট্রাম্প এমন কিছুর স্বীকারোক্তি দিয়েছেন যা আমাদের সকলের জানা ছিল। আর তা হচ্ছে, তেল চুরি করার জন্য মার্কিন সেনারা সিরিয়ায় অবস্থান করছে।” তিনি আরো লিখেছেন, “ইরান, রাশিয়া ও ইরাক দায়েশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে পারে- এ বক্তব্য দিয়ে ট্রাম্প স্বীকার করেছেন ইরান এই জঙ্গি গোষ্ঠীকে ঘৃণা করে।”

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার দেশ দায়েশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে; অন্যদিকে আমেরিকা দায়েশকে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে। তিনি বলেন, আমেরিকা শুধু যে দায়েশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেনি তাই নয় এই জঙ্গি গোষ্ঠীর এক নম্বর শত্রু জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে কাপুরুষোচিতভাবে হত্যা করেছে। শুধুমাত্র ট্রাম্পের অনুগত লোকজন ও জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ সোলাইমানির হত্যাকাণ্ডে উল্লাস প্রকাশ করেছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ভারত সফরে গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট মঙ্গলবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাতে দাবি করেন, তার দেশ আল-কায়েদা ও দায়েশ’সহ অন্যান্য জঙ্গি গোষ্ঠীকে পরাজিত করেছে। তিনি আরো বলেন, আমেরিকার মতো ইরান, রাশিয়া ও ইরাকের উচিত এসব গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা।

লেঃ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি

ট্রাম্প এমন সময় এ দাবি করলেন যখন তিনি নির্বাচনি প্রচারণার সময় বলেছিলেন, আমেরিকাই উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ তৈরি করেছে। এ ছাড়া, দায়েশের উত্থানের পর মার্কিন সমরবিদরা বলেছিলেন, এই জঙ্গি গোষ্ঠীকে দমনে কয়েক দশক পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। কিন্তু সিরিয়া ও ইরাকে ইরানের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় দায়েশ বিরোধী যুদ্ধ জয়লাভ করে এবং মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে এই জঙ্গি গোষ্ঠীকে নির্মূল করা সম্ভব হয়।এই যুদ্ধে ইরানের পক্ষে কুদস ফোর্সের সাবেক প্রধান লেঃ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি কেন্দ্রীয় ভূমিকা পালন করেন। অথচ আমেরিকা গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদে ড্রোন হামলা চালিয়ে জেনারেল সোলাইমানিকে নির্মমভাবে হত্যা করে।#

পার্সটুডে/এমএমআই/২৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য