মে ২৩, ২০২০ ১৭:৪৫ Asia/Dhaka
  • ইরানের পবিত্র নগরী কোমে  হযরত মাসুমা (আ:)\'র মাজার।
    ইরানের পবিত্র নগরী কোমে হযরত মাসুমা (আ:)\'র মাজার।

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, আগামী রোববার মুসলমানদের পবিত্র ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতরের সঙ্গে মিল রেখে ইরানের সব জাদুঘর এবং ঐতিহাসিক স্থাপনা খুলে দেয়া হবে।

আজ (শনিবার) করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধ বিষয়ক টাস্কফোর্সের বৈঠকে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, আগামী সোমবার থেকে সকল ধমীয় স্থানগুলো খুলে দেয়া হবে। মহামারী করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ইরানে যেসব বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছিল সেগুলো শিথিল হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। রুহানি গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে সমস্ত ধর্মীয় স্থানগুলো সকালে তিন ঘন্টা এবং বিকালে তিন ঘন্টার জন্য খুলে দেয়া হবে। তবে যেসব এলাকায় এখনো বিধি-নিষেধ বহাল রয়েছে সেখানে ওইসব স্থান বন্ধ থাকবে।          

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, আগামী শনিবার দেশের সব কর্মী কাজে যোগ দেবেন। তিনি বলেন, আমরা বলতে পারি যে করোনাভাইরাস বিষয়ে আমরা তিনটি স্তর অতিক্রম করেছি।প্রথম স্তরে করোনাভাইরাস বিস্তারের বিষয়ে ঘোষণা করা এবং এটি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য দেশের সক্ষমতাকে প্রস্তুত করা হয়। দ্বিতীয় স্তরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার মাধ্যমে রোগকে নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং তৃতীয় স্তরে স্মার্ট দুরত্ব অনুসরণের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে সবকিছু খোলে দেয়ার পদক্ষেপ গ্রহণ করা।রুহানি বলেন, এখন করোনাভাইরাস পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ এবং মোকাবেলার চতুর্থ স্তরে আছি। তিনি বলেন, দেশের ৩১টি প্রদেশের মধ্যে দশটি  প্রদেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে পরিস্থিতি এখন পরিস্থিতি ভালো অবস্থায় আছে। দ্রুত পরীক্ষার মাধ্যমে আক্রান্ত ব্যক্তিদেরকে সুস্থ্য ব্যক্তিদের মধ্য থেকে পৃথক করা হবে বলেও জানান তিনি।#

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/২৩        

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ

মন্তব্য