জুলাই ১০, ২০২০ ১৭:২৫ Asia/Dhaka

চলতি বছরের ১৮ অক্টোবরে ইরানের ওপর থেকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ আরোপিত নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবার কথা রয়েছে। আমেরিকা তাই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে এবং নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার জন্য ব্যাপক চেষ্টা-তদবির চালিয়ে যাচ্ছে।

এ লক্ষ্যে তারা নতুন করে একটি খসড়া প্রস্তাবও উত্থাপন করেছে। যদিও নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্যের সবাই মার্কিন পক্ষ সমর্থন করার সম্ভাবনা নেই। সেজন্যই রাশিয়া মনে করছে ওয়াশিংটনের ওই প্রচেষ্টা ব্যর্থ হবে। জাতিসংঘে নিযুক্ত রুশ প্রতিনিধি ভ্যাসিলি নেবেঞ্জিয়া গতকাল এই মর্মে বলেছেন: ইরানের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা নবায়নের জন্য তোলা মার্কিন প্রস্তাব নিরাপত্তা পরিষদে গৃহীত হবার কোনো সুযোগ নেই। নেবেঞ্জিয়া বলেন: "এ ধরনের প্রস্তাব গৃহীত হলে পরমাণু সমঝোতার কবর রচিত হবে। ইরান যে তা কোনোভাবেই মেনে নেবে না তা সুস্পষ্ট এবং সেই অধিকারও তাদের রয়েছে"। অভিজ্ঞ এই কূটনীতিক আরও বলেন আমেরিকার এই প্রস্তাব তোলার সূচনালগ্নেই রাশিয়া বলেছে যে এই প্রস্তাব পাসের কোনো সম্ভাবনা নেই।

ওয়াশিংটন ২০১৯ সালের মাঝামাঝি থেকেই ওই নিষেধাজ্ঞা নবায়নের লক্ষ্যে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ চালিয়ে এসেছে। এখনও সেই ধারা অব্যাহত রেখেছে। বিশেষ করে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বারবার দাবি করে এসেছেন যে ইরানের ওপর থেকে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হলে পশ্চিম এশিয়ায় অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হবে।

মাইক পম্পেও

ইরান এবং তাদের আঞ্চলিক মিত্রদেশগুলো শক্তিশালী হয়ে উঠলে ইসরাইলের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে। এই খসড়া পাস করার জন্য নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের মধ্যে ৯ সদস্যের রায় পেতে হবে। সেইসঙ্গে ভেটো ক্ষমতার অধিকারী স্থায়ী সদস্যদের কেউ ভেটো দিলে পাস হবে না। কিন্তু স্থায়ী দুই সদস্য চীন এবং রাশিয়ার অবস্থান যে যথারীতি ওই প্রস্তাবের বিপক্ষে তা ইতোমধ্যেই দেশদুটো স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছে। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা মার্কিন প্রস্তাবকে অগঠনমূলক বলে মন্তব্য করে বলেছেন: এই প্রস্তাবে ইরানের ওপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতি অনুসরণের ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ক্যালি ক্রাফট

তবু জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন প্রতিনিধি ক্যালি ক্রাফট বলেছেন: আমেরিকা তাদের সকল প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবার ব্যাপারে অঙ্গিকারাবদ্ধ। কেননা এটা কেবল পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলোর নিরাপত্তার ব্যাপারই নয় বরং মার্কিন সেনাদেরও নিরাপত্তার বিষয় এর সঙ্গে জড়িত।#

পার্সটুডে/এনএম/১০

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ

মন্তব্য