নভেম্বর ২৩, ২০২০ ২৩:৩৪ Asia/Dhaka
  • ইরানে লকডাউনে কঠোর বিধিনিষেধ মানছে ৮৫ শতাংশ মানুষ: উপ-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের উপ-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন জুলফিকারি বলেছেন, দেশের ৮৫ শতাংশ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি ও কঠোর দিকনির্দেশনা মেনে চলছেন। আজ (সোমবার) রাজধানী তেহরানে করোনা মোকাবেলা বিষয়ক জাতীয় টাস্কফোর্সের বৈঠকের পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

জুলফিকারি আরও বলেছেন, করোনা মোকাবেলায় বিধিনিষেধ কঠোর করার পর থেকে শহরগুলোতে গাড়ি চলাচল ৩৯ শতাংশ কমেছে। একইসঙ্গে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা যাতে তথ্য গোপন করে ট্রেন ও বিমানে সফর করতে না পারে সেদিকেও নজর দেওয়া হয়েছে। গত তিন দিনে এমন ৪৮ জন করোনা রোগীকে শনাক্ত করা হয়েছে যারা তথ্য গোপন করে ট্রেন ও বিমানে ভ্রমণ করতে চেয়েছিলেন, তারা আক্রান্ত হওয়ার পর এখনও পুরোপুরি সেরে ওঠেননি।

ইরানে যাদের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের সবার তথ্য সরকারের কাছে রয়েছে বলে জানান হোসেইন জুলফিকারি। লক ডাউন শুরুর পর তিন দিনে ১১ হাজার ব্যক্তিগত গাড়িকে নতুন বিধিনিষেধ লঙ্ঘনের দায়ে জরিমান করা হয়েছে।

ইরানে করোনা মহামারি মোকাবেলায় গত শনিবার থেকে রাজধানী তেহরানসহ শতাধিক শহরে লক ডাউন বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। নতুন বিধিনিষেধ অনুযায়ী শহরের অধিবাসী নন এমন কেউ রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত শহরগুলোতে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। নিয়ম ভাঙলেই গুনতে হচ্ছে জরিমানা। খাদ্য সামগ্রীসহ জরুরি পণ্যের দোকান ছাড়া অন্য সব শপিং মল ও বাজার বন্ধ রয়েছে।

অফিস-আদালতগুলোকে এক-তৃতীয়াংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী দিয়ে পরিচালনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া দিনে শহরের ভেতরে গাড়ি চলাচলের অনুমতি থাকলেও রাত ৯টা থেকে ভোর চারটা পর্যন্ত রাস্তায় কোনো প্রাইভেট গাড়িকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। এই সময় কেউ গাড়ি নিয়ে বের হলেও রাস্তায় পেতে রাখা স্বয়ংক্রিয় ক্যামেরাগুলোতে তা ধরা পড়ছে এবং তাদের ঠিকানায় জরিমানার রসিদ চলে যাচ্ছে।

জরুরি সেবার সঙ্গে যুক্ত গাড়িগুলো কেবল এই নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত রয়েছে। এ অবস্থা চলবে টানা দুই সপ্তাহ। এরপর প্রয়োজনে আবারও এর মেয়াদ বাড়ানো হবে।#

পার্সটুডে/এসএ/২৩                                                           

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।  

ট্যাগ