জুলাই ৩০, ২০২১ ০৭:৩৫ Asia/Dhaka
  • আর্মেনিয়ার এক সেনা আজারবাইজান অবস্থান লক্ষ্য করে রাইফেল তাক করে আছে (ফাইল ফটো)
    আর্মেনিয়ার এক সেনা আজারবাইজান অবস্থান লক্ষ্য করে রাইফেল তাক করে আছে (ফাইল ফটো)

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বলেছেন, নাগার্নো-কারাবাখ নিয়ে আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যে টেকসই শান্তি প্রতিষ্ঠা করার জন্য সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে তেহরান। একই সঙ্গে তিনি দুই পক্ষকে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সীমান্ত মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) সাঈদ খাতিবজাদে নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে নতুন করে সংঘর্ষের খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং দু'পক্ষকেই ধৈর্য ধারনের জোরালো পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়াকে তাদের সীমান্ত নিয়ে চলমান দ্বন্দ্ব শান্তিপূর্ণ পথেই মীমাংসা করতে হবে।

আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যকার সর্বসাম্প্রতিক সংঘর্ষে যে সমস্ত মানুষ হতাহত হয়েছেন তাদের জন্য গভীর শোক প্রকাশ করেন খাতিবজাদে। এই সংঘর্ষের জন্য আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান পরস্পরকে দোষারোপ করেছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে

গত বুধবার আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর মধ্যে নতুন করে সংঘর্ষ হয় এবং তাতে আর্মেনিয়ার তিন সেনা নিহত ও দু জন আহত হন।

গতবছর আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের মধ্যে ছয় সপ্তাহ ধরে বড় ধরনের যুদ্ধ চলে এবং তাতে আজারবাইজানের সামরিক বাহিনী সীমান্তের বিতর্কিত বিস্তীর্ণ এলাকা থেকে আর্মেনীয় সেনাদের তাড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়। এসব ভূখণ্ড বহু বছর ধরে আর্মেনিয়া নিয়ন্ত্রণ করে আসছিল। গত বছরের ওই যুদ্ধে দুই পক্ষের কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন তবে আর্মেনিয়া বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

পরে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া যুদ্ধবিরতি চুক্তি সই করতে সম্মত হয়। সেই চুক্তি লঙ্ঘন করে দুপক্ষ বুধবার সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়া দুটিই ইরানের প্রতিবেশী দেশ।#

পার্সটুডে/এসআইবি/৩০

ট্যাগ