সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ ০৬:৩৪ Asia/Dhaka
  • বুধবার নিউ ইয়র্কে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন লিজ ট্রাস
    বুধবার নিউ ইয়র্কে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন লিজ ট্রাস

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাসের এক টুইটার বার্তার জবাবে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বলেছেন, স্লোগান দিয়ে কখনও আদালতের বিচার প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করা যায় না। খাতিবজাদে বৃহস্পতিবার ট্রাসকে উদ্দেশ করে নিজের অফিসিয়াল টুইটার পেজে লিখেছেন, আপনার জ্বালাময়ী টুইট পত্রিকার গুরুত্বপূর্ণ শিরোনাম হওয়ার যোগ্যতা রাখে। কিন্তু স্লোগান কখনও আদালতের পক্ষ থেকে ঘোষিত রায়ের জবাব হতে পারে না।

খাতিবজাদে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য উদ্ধৃত করে টুইটার বার্তায় আরো লিখেছেন, যেমনটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ব্রিটেনকে ইরানের ব্যাপারে তার নীতিতে পরিবর্তন আনতে হবে এবং এ কাজে এরইমধ্যে ব্রিটিশ সরকার অনেক দেরি করে ফেলেছে।

এর আগে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার ‘জ্বালাময়ী’ টুইটার বার্তায় লিখেছিলেন, ইরানে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ব্রিটিশ নাগরিক নজানিন জাগারি’কে মুক্তি দেয়ার জন্য তিনি তেহরানের ওপর  চাপ প্রয়োগ করেছেন।তিনি বুধবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে নিজের সাক্ষাতের কথা উল্লেখ করে লিখেছেন, জাগারি অনেক কঠিন সময় পার করছেন, তবে আমরা তাকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি।

ইরানি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নারী নজানিন জাগারি

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ‘টমসন রয়টার্স’র প্রজেক্ট ম্যানেজার হিসেবে কাজ করতে ইরানে এসে ২০১৬ সালের ৩ এপ্রিল আটক হন ইরানি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নারী নজানিন জাগারি। তাকে বিদেশি গণমাধ্যম ব্যবহার করে ইরানের ইসলামি শাসনব্যবস্থা উৎখাতের পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়নের প্রচেষ্টার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়।ইরানের একটি আদালত ওই বছরই তাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়।

পরবর্তীতে ২০১৯ সালের মার্চ মাসে তৎকালীন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা করেন, জাগারিকে ‘কূটনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা’র আওতায় এনেছে লন্ডন। তার এই ঘোষণার ফলে বিষয়টি নিয়ে ইরান ও ব্রিটেনের মধ্যে আইনি টানাপড়েন তৈরি হয়।#

পার্সটুডে/এমএমআই/২৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ