সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ ১৯:৩৩ Asia/Dhaka

বিশ্বব্যাপী নিরাপত্তা, শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘের উদ্যোগকে সমর্থন ও সহযোগিতা করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছে ইরান। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তর্জাতিক এই সংস্থার মহাসচিবের ন্যায়ানুগ ও নিরপেক্ষ অবস্থানকেও স্বাগত জানাবে বলে ঘোষণা করেছে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন। তারই অবকাশে তিনি জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন।

আব্দুল্লাহিয়ান বলেন ফিলিস্তিন থেকে শুরু করে সিরিয়া, ইয়েমেন এবং আফগানিস্তানে জাতিসংঘের গঠনমূলক ও দায়িত্বশীল ভূমিকা আগের যে-কোনো সময়ের তুলনায় অনেক বেশি প্রয়োজন। তিনি বলেন: ফিলিস্তিনের জনগণ মানবেতর জীবনযাপন করছে। দশকের পর দশক ধরে দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলের অপরাধযজ্ঞই এরকম বিপর্যয়কর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। এই দুর্বিসহ অবস্থার সমাধান সেখানে ফিলিস্তিনের মূল অধিবাসীদের মধ্যে গণভোটের আয়োজন করা। দু:খজনকভাবে জাতিসংঘ অতীতে নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে। তবে গুতেরেসের উদ্দেশে আব্দুল্লাহিয়ান বলেন: আমি আশাবাদী আপনার সময়ে সেই নিষ্ক্রিয় পরিস্থিতিতে পরিবর্তন আসবে।

প্রকৃত বাস্তবতা হলো বিগত কয়েক দশকে দখলদারিত্ব এবং সন্ত্রাসবাদ বিশ্বব্যাপী তার কালো ছায়া বিস্তার করেছিল। ওই দখলদারিত্ব এবং সন্ত্রাসবাদ বিশ্বের বহু দেশকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। ইরানও সেই মার্কিন সন্ত্রাসবাদী পদক্ষেপসহ অবরোধ-সন্ত্রাসের শিকার হয়েছে। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রকৃত সংগ্রামের অগ্রসেনানী ইরানের কুদস ব্রিগেডের কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলায়মানি মার্কিন সন্তাসবাদের শিকার হয়েছে। সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াইয়ের মার্কিন দাবীকে মিথ্যা প্রমাণ করেছিলেন শহীদ কাসেম সোলায়মানি। এ অঞ্চলকে ঘিরে মার্কিন-ইসরাইলী সকল অপ-পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দিয়েছিল কাসেম সোলায়মানি।

যেমনটি ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন: শহীদ সোলায়মানি তাঁর জীবদ্দশায় এবং তাঁর শাহাদাতের মধ্য দিয়েও আধিপত্যবাদের পরাজয় ঘটিয়েছেন। তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্টের স্বীকারোক্তির কথা উল্লেখ করেন, যেখানে বাইডেন বলেছেন: সাত ট্রিলিয়ন ডলার ব্যয় করেও মধ্যপ্রাচ্যে কিছুই অর্জিত হয় নি। সর্বোচ্চ নেতা বলেন: এই মহান কাজের মহাবীর হলেন কাসেম সোলায়মানি, যিনি তাঁর জীবদ্দশায় সন্ত্রাস বিরোধী সফল অভিযান চালিয়েছিলেন।

আমেরিকার উচিত বিশ্বব্যাপী তাদের হস্তক্ষেপকামিতার ফলে যত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার জবাব দেওয়া।#

পার্সটুডে/এনএম/২৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

ট্যাগ