অক্টোবর ০৯, ২০২১ ০৬:৫১ Asia/Dhaka
  • বুশেহর পরমাণু স্থাপনার সামনে প্রেসিডেন্ট রায়িসি ও মোহাম্মাদ ইসলামি (শুক্রবারের ছবি)
    বুশেহর পরমাণু স্থাপনার সামনে প্রেসিডেন্ট রায়িসি ও মোহাম্মাদ ইসলামি (শুক্রবারের ছবি)

ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি বলেছেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় বুশেহর পরমাণু স্থাপনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের কাজ তিনগুণ বাড়ানো হবে। তিনি শুক্রবার সশরীরে এই পরমাণু স্থাপনার বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করার পর দেশের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান মোহাম্মাদ ইসলামির সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা ঘোষণা করেন।

প্রেসিডেন্ট রায়িসি বলেন, বেসামরিক কাজে যত বেশি সম্ভব পরমাণু শক্তি ব্যবহার করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে ইরান এবং এক্ষেত্রে কোনোরকম ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থাকে  পরমাণু স্থাপনাগুলো থেকে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। রায়িসি বলেন, সর্বশেষ আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে শান্তিপূর্ণ কাজে পরমাণু শক্তি ব্যবহার করতে হবে যাতে অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তিগত খাতে দেশের আশাব্যাঞ্জক অগ্রগতি নিশ্চিত করা সম্ভব হয়।

শুক্রবার বুশেহর সফরে গেলে জনগণের পক্ষ থেকে উষ্ণ সংবর্ধনা পান প্রেসিডেন্ট রায়িসি

আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলো যখন ইরানের পরমাণু কর্মসূচির অগ্রগতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছে এবং ভিয়েনা সংলাপে ইরানকে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছে তখন প্রেসিডেন্ট রায়িসি বুশেহর পরমাণু স্থাপনা পরিদর্শন করলেন।

বুশেহর পরমাণু স্থাপনার এক নম্বর ইউনিট থেকে ২০১১ সালে ইরানের জাতীয় গ্রিডে এক হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়।২০১৯ সালের ১০ নভেম্বর এই স্থাপনার দুই নম্বর ইউনিটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।এখানকার দুই ও তিন নম্বর ইউনিট বাস্তবায়িত হলে এই স্থাপনা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়াবে তিন হাজার ‌১১৪ মেগাওয়াট।#

পার্সটুডে/এমএমআই/৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ