অক্টোবর ১৫, ২০২১ ১৫:১৬ Asia/Dhaka
  • ইইউতে নিযুক্ত ইরানের প্রতিনিধি গোলাম-হোসেইন দেহকানি (ফাইল ছবি)
    ইইউতে নিযুক্ত ইরানের প্রতিনিধি গোলাম-হোসেইন দেহকানি (ফাইল ছবি)

আফগানিস্তান থেকে প্রতিবেশী দেশগুলোতে শরণার্থীর ঢল নামার জন্য দেশটিতে আগ্রাসন পরিচালনাকারী দেশগুলোকে দায়ী করেছে ইরান। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউতে নিযুক্ত ইরানের প্রতিনিধি গোলাম-হোসেইন দেহকানি বলেছেন, আফগানিস্তানের চলমান সংকট এবং দেশটি থেকে শরণার্থীদের ঢল নামার দায়িত্ব দেশটিতে আগ্রাসন পরিচালনাকারীদের নিতে হবে।

তিনি বৃহস্পতিবার ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর মাইগ্রেশন পলিসি ডেভেলপমেন্ট বা আইসিএমপিডি’র এক ভার্চুয়াল বৈঠকে যোগ দিয়ে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আফগানিস্তানে আজ যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তার জন্য ২০০১ সালে পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোর আগ্রাসন দায়ী।

দেহকানি বলেন, ওই আগ্রাসনে আফগান জনগণের জীবনধারা ও সামাজিক কাঠামো ধ্বংস হয়ে যায় এবং ইরানসহ অন্যান্য প্রতিবেশী দেশে আফগান শরণার্থীদের ঢল নামে। অথচ সে সময় আগ্রাসন পরিচালনাকারী দেশগুলো ওই দায় নিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং ‘পদ্ধতিগতভাবে’ আফগান শরণার্থীদের জন্য নিজেদের সীমান্ত বন্ধ করে দেয়।

ব্রাসেলসে নিযুক্ত ইরানের এই প্রতিনিধি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, এই প্রবণতার ধারাবাহিকতা যেমন আফগান সংকট সমাধানে সহায়তা করেনি তেমনি দেশটির জনগণের দুঃখ-দুর্দশারও অবসান হয়নি। পশ্চিমা দেশগুলোকে উদ্দেশ করে দেহকানি আরো বলেন, “দায়িত্ব গ্রহণে অস্বীকৃতি জানানোর একই সময়ে মুখে আফগান জনগণের প্রতি দরদ দেখানোর অধিকার আপনাদের নেই।”

ইরানে বর্তমানে আট লাখ নিবন্ধিত শরণার্থী রয়েছে। আর এদেশে বসবাসকারী অনিবন্ধিত আফগান শরণার্থীর সংখ্যা ২৩ লাখ বলে মনে করা হয়।#

পার্সটুডে/এমএমআই/১৫

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ