ডিসেম্বর ০৭, ২০২১ ২২:১০ Asia/Dhaka
  • ফয়সাল মিকদাদ (বামে) ও আলী শামখানি
    ফয়সাল মিকদাদ (বামে) ও আলী শামখানি

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি বলেছেন, উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর দায়েশের পতন এবং তাকফিরি সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যোদ্ধাদের বিজয়ে আমেরিকা বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ।

রাজধানী তেহরানে সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল মিকদাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা বলেছেন আলী শামখানি। তিনি বলেন, প্রতিরোধ যোদ্ধাদের বিজয়ের কারণে এই ফ্রন্ট কৌশলগত দিক দিয়ে শক্তিশালী হয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে আমেরিকা এবং তার মিত্র ইহুদিবাদী ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যে নতুন সংকটের জন্ম দিতে চাইছে যা পুরো অঞ্চলের জন্য ভয়াবহ পরিণতি বয়ে আনতে পারে।

সিরিয়ার মাটিতে মার্কিন সেনাদের দখলদারিত্বের কঠোর নিন্দা এবং সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমেরিকার এই ভূমিকায় এ অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা এবং সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ছে। তিনি বলেন, যেকোন আগ্রাসন এবং দখলদারিত্বের ইতিহাস পিছুহটা এবং অপমানজনক পরাজয় ছাড়া আর কিছুই নয়।

দায়েশ সন্ত্রাসীদের ফাইল ফটো

সিরিয়ার মাটিতে ইসরাইলি বিমান হামলার নিন্দা জানিয়ে আলী শামখানি বলেন, ফিলিস্তিন এবং লেবাননের ভূখণ্ডের বিরুদ্ধে যে আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছে ইহুদিবাদী ইসরাইল তারই অংশ হচ্ছে সিরিয়ার উপর হামলা। তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্য থেকে ইহুদিবাদী এই ক্যান্সারের মূলোৎপাটনের একমাত্র উপায় হলো প্রতিরোধ এবং কঠোর সংগ্রাম।

বৈঠকে ফয়সাল মিকদাদ সিরিয়ার সরকার ও জনগণের প্রতি ইরানের পূর্ণ সমর্থনের প্রশংসা করে বলেন, বিদেশি মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর পরাজয়ের মধ্যদিয়ে তেহরান ও দামেস্কের মধ্যে সম্পর্কের নতুন অধ্যায় রচিত হয়েছে।

সিরিয়ার মাটিতে মার্কিন সেনাদের অবৈধ উপস্থিতির নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, এর মধ্যদিয়ে সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব এবং ভৌগলিক অখণ্ডতাকে লঙ্ঘন করা হয়েছে। সিরিয়ায় দীর্ঘস্থায়ী স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা ঠেকানোর জন্য ওয়াশিংটন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে নতুন করে সক্রিয় করার চেষ্টা করছে।#

পার্সটুডে/এসআইবি/৭

ট্যাগ