২০১৯-১১-১৬ ১৬:১৪ বাংলাদেশ সময়
  • গাজা থেকে উদ্ধার করা অবিষ্ফোরিত ক্ষেপণাস্ত্র
    গাজা থেকে উদ্ধার করা অবিষ্ফোরিত ক্ষেপণাস্ত্র

গাজাভিত্তিক ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলনগুলো সম্ভবত ইহুদিবাদী ইসরাইলের উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র-প্রযুক্তি হাতে পেয়েছে। ইসরাইল থেকে গাজায় ছোঁড়া অবিস্ফোরিত ক্ষেপণাস্ত্র কব্জা করে প্রতিরোধ যোদ্ধারা তা নিজেদের মতো করে বদলে নিয়েছেন। ‘দ্যা ড্রাইভ’ নামের একটি ওয়েবসাইট এ খবর দিয়েছে।

অবিষ্ফোরিত ক্ষেপণাস্ত্র তামির ইন্টারসেপ্টর সাধারণত ইসরাইলের কথিত ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আয়রন ডোমে ব্যবহার করা হয়। সম্প্রতি ওই ক্ষেপণাস্ত্র ইহুদিবাদী ইসরাইল গাজার উপরে ছোঁড়ে কিন্তু তা বিস্ফোরিত হয় নি। জো ট্রুজম্যান নামে একজন নিরাপত্তা বিশ্লেষকের টুইট বার্তা ও ছবি ছেপে দ্যা ড্রাইভ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, এই ক্ষেপণাস্ত্র গাজার যোদ্ধাদের হাতে পড়েছে কিনা এবং তাদের হাতে পড়ে থাকলে তা কাজে লাগানোর মতো জ্ঞান তাদের আছে সেটি তদন্ত করে দেখা উচিত। ওয়েবসাইটটি বলেছে, ট্রাজম্যানের শেয়ার করা ছবিতে ইন্টারসেপ্টরের প্রক্সিমিটি ফিউজ সিস্টেম এবং খুবই উন্নত প্রযুক্তির সচল রাডার সিস্টেম দেখা গেছে। এই ক্ষেপণাস্ত্র অবিস্ফোরিত অবস্থায় ফিলিস্তিনি যোদ্ধারা উদ্ধার করেছে।

আয়রন ডোম থেকে ক্ষেপনাস্ত্র ছুঁড়ছে ইসরাইল

তবে, এটি পরিষ্কার নয় কিভাবে ট্রুজম্যান ওই ছবি পেয়েছেন। দ্যা ড্রাইভ বলছে, বিষয়টি নিয়ে তাদের কোনো ধারণা নেই এবং ক্ষেপণাস্ত্রটি ঠিক কোথায় পড়েছিল এবং কারা তা সংগ্রহ করেছে সে সম্পর্কে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই।

গত মঙ্গলবার ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার বাহা আবু আল-আতা ইসরাইলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শহীদ হন। এরপর জিহাদ আন্দোলন দুদিনে ইসরাইলের ওপর অন্তত ৪০০ রকেট হামলা চালিয়েছে। এতে তেল আবিবসহ ইসরাইলের বিরাট অংশ কার্যত অচল হয়ে পড়ে। এ সময় অন্তত দুটি তামির ইন্টারসেপ্টর ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয় যার প্রতিটির মূল্য ৪০ হাজার থেকে এক লাখ ডলার।

গাজার যে উৎস থেকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হচ্ছিল তা ধ্বংস করার জন্য মূলত তামির ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়। এ ক্ষেপণাস্ত্র যদি তার লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম না হয় তাহলে নিজে নিজেকে ধ্বংস করে ফেলতে সক্ষম বলে দাবি করা হয়। কিন্তু গাজায় তামির ক্ষেপণাস্ত্র অবিস্ফোরিত অবস্থায় পাওয়ার পর ইসরাইলের প্রযুক্তিকে ব্যর্থ বলে মনে করা হচ্ছে। ইসরাইল দাবি করে আসছিল এটি তাদের অনন্য এক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা।#

পার্সটুডে/এসআইবি/১৬

ট্যাগ

মন্তব্য