আগস্ট ০৬, ২০২০ ১১:২৫ Asia/Dhaka
  • বৈরুত বিস্ফোরণের পর উদ্ধার তৎপরতা
    বৈরুত বিস্ফোরণের পর উদ্ধার তৎপরতা

লেবাননের বৈরুত বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে ১০০’র বেশি মানুষ নিহত এবং ৪,০০০ আহত হওয়ার পর বন্দরের বহুসংখ্যক কর্মকর্তাকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। ২০১৪ সাল থেকে বন্দরে পণ্য সংরক্ষণ এবং নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন  করেছিলেন যেসব কর্মকর্তা তাদেরকে মূলত গৃহবন্দি করা হয়েছে। সন্দেহ করা হচ্ছে- এসব কর্মকর্তার অবহেলার কারণে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের গুদামে বিস্ফোরণ ঘটেছে।

লেবাননের মন্ত্রিসভা সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর দিয়েছে। মঙ্গলবারের বিস্ফোরণের ক্ষেত্রে এ সমস্ত কর্মকর্তার দায়-দায়িত্ব চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত তারা সেনাবাহিনীর নজরদারিতে থাকবেন।

বিস্ফোরণে লেবাননের সবচেয়ে বড় খাদ্যগুদাম ধ্বংস হয়ে গেছে। বিস্ফোরণে এ পর্যন্ত  ১১৩ জনের নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন লেবাননের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হামাদ হাসান।

বৈরুত বিস্ফোরণে ক্ষয়ক্ষতির অবস্থা

এই বিস্ফোরণের ফলে সৃষ্ট কম্পন সুদূর সাইপ্রাস থেকে অনুভূত হয়েছে এবং বৈরুত বন্দরের বিস্তীর্ণ এলাকার ঘর-বাড়ি, কলকারখানা এবং সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন রকম ভবন ধ্বংস হয়ে গেছে। এছাড়া প্রায় তিন লাখ মানুষ ঘরবাড়ি হারা হয়েছে।

লেবাননের মন্ত্রিসভা এরইমধ্যে বৈরুত বন্দরে দুই সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। লেবানন সরকার বিস্ফোরণের ঘটনা নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।#

পার্সটুডে/এসআইবি/৬

ট্যাগ

মন্তব্য