মার্চ ০৯, ২০২১ ০৯:৩৪ Asia/Dhaka

লেবাননের আল-মায়াদিন টেলিভিশন একটি নতুন ভিডিও প্রকাশ করে বলেছে, ওমান সাগরে ইসরাইলি মালিকানাধীন কার্গো জাহাজে প্রকৃতপক্ষে বাইরে থেকে কোনো হামলা হয়নি। ইহুদিবাদী ইসরাইল দাবি করেছিল, ইরান ওই জাহাজে হামলা করার কারণে এটিতে বিস্ফোরণ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

আল-মায়াদিন জানিয়েছে, ইরানি ড্রোন থেকে এই ভিডিও ফুটেজ ধারণ করা হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি কথিত ওই বিস্ফোরণের সময় বাইরে থেকে জাহাজটিতে কোনো হামলা হয়নি।

নিউজ চ্যানেলটি আরো বলেছে, ইসরাইলি মালিকানাধীন জাহাজটির পাশে বিস্ফোরণের ফলে যে গর্ত তৈরি হয়েছে তা ‘বাইরে থেকে কোনো হামলার কারণে নয় বরং কেউ ভেতর থেকে ওই গর্ত তৈরি করেছে যাতে একথা প্রচার করা যায় যে, জাহাজটিতে হামলা হয়েছে।’ ড্রোন থেকে পরবর্তীতে ধারণকৃত এই ভিডিও ফুটেজে বাইরে থেকে যে গর্ত দেখা যাচ্ছে সেটি আসলে ভেতরে কোনো বিস্ফোরণের কারণে তৈরি হয়েছে। বাইরে থেকে বিস্ফোরণ ঘটানো হলে এই গর্ত ভিন্নরকম দেখা যেত।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ইসরাইলি মালিকানাধীন কার্গো জাহাজটি দাবি করে, ওমান সাগরে থাকার সময় এটিতে একটি রহস্যজনক বিস্ফোরণ ঘটে।  জাহাজটির কর্তৃপক্ষ দাবি করে, বিস্ফোরণের ফলে এটির বহির্কাঠামোর বাইরে এবং ভেতরে উভয় পাশে গর্ত তৈরি হয়েছে।

ইহুদিবাদী ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু তড়িঘড়ি করে ওই কথিত হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেন। তিনি কোনো প্রমাণ উপস্থাপন ছাড়াই বলেন, “এটি প্রকৃতপক্ষে ইরানের পক্ষ থেকে চালানো একটি অভিযান। এটি স্পষ্ট।” নেতানিয়াহু আরো বলেন, ইরান হচ্ছে ‘ইসরাইলের সবচেয়ে বড় শত্রু যার বিরুদ্ধে আমরা গোটা অঞ্চলজুড়ে হামলা চালিয়ে যাচ্ছি।’

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে ইসরাইলি কার্গো জাহাজে তার দেশের হামলার দাবি কঠোর ভাষায় প্রত্যাখ্যান করেন। তিনি বলেন, নেতানিয়াহু আসলে ‘ইরান আতঙ্কে’ ভুগছেন। তিনি ভাবছেন, ইরান ইসরাইলকে মধ্যপ্রাচ্যে সহিংসতা ছড়াতে দেবে না।#

পার্সটুডে/এমএমআই/৯

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।  

 

ট্যাগ