জুন ২৩, ২০২২ ১৭:৩৬ Asia/Dhaka

শ্রোতা/পাঠকবন্ধুরা!কথাবার্তার প্রাত্যহিক আসরে আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আজ ২৩ জুন বৃহষ্পতিবারের কথাবার্তার আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। তারপর দুটি খবরের বিশ্লেষণে যাব। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

ঢাকার কয়েকটি খবরের শিরোনাম

  • আ.লীগের ইতিহাস আর বাংলাদেশের ইতিহাস একই’-যুগান্তর
  • আফগানিস্তানে ভূমিকম্প, বহু শিশু নিহত, ধ্বংস্তূপের নিচে আটকা অনেকে–ইত্তেফাক
  • মাঙ্কিপক্সকে ‘গ্লোবাল হেলথ ইমার্জেন্সি’ ঘোষণা করতে পারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-মানবজমিন
  • বাসযোগ্যতার সূচকে ১৭২টি শহরের মধ্যে ঢাকা ১৬৬তম-প্রথম আলোবিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুর
  • অর্থায়ন বন্ধের পর কে কি বলেছিলেন-বাংলাদেশ প্রতিদিন
  • নৌকা ছাড়া দেশের মানুষের গতি নাই : প্রধানমন্ত্রী-কালের কণ্ঠ

কোলকাতার শিরোনাম:

  • আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী! রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব করার বিল পাশ বিধানসভায়-সংবাদ প্রতিদিন
  • বন্যার বদলে উদ্ধবের সরকার ফেলতে টাকা ঢালছে বিজেপি!‌ দাবি তৃণমূলের-আজকাল
  • ইডি মোদী সরকারের চাপিয়ে দেওয়া নির্দেশ পালনের সংস্থায় পরিণত হয়েছে, তোপ কংগ্রেসের-আনন্দবাজার পত্রিকা

শ্রোতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবারে বিশ্লেষণে যাচ্ছি। জনাব সিরাজুল ইসলাম কথাবার্তার আসরে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি।

বিশ্লেষণের বিষয়:

১. ৩১৩৭ কোটি টাকার প্রকল্প শেষের পথে কিন্তু নিয়োগই হয়নি শিক্ষক। মানবজমিন পত্রিকার এ খবর সম্পর্কে কী বলবেন আপনি?

২. সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান সরকারি সফরে তুরস্কে গেছেন। তার এ সফরকে কীভাবে দেখছেন?

বিশ্লেষণের বাইরের কয়েকটি খবর:

মাঙ্কিপক্সকে ‘গ্লোবাল হেলথ ইমার্জেন্সি’ ঘোষণা করতে পারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-মানবজমিন

মাঙ্কিপক্স নিয়ে সতর্কতা

মাঙ্কিপক্সকে বৈশ্বিক জরুরি পরিস্থিতি হিসেবে ঘোষণা করা হবে কিনা তা নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠকে বসছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। কিছু বিশেষজ্ঞ মনে করেন, এই রোগটি পশ্চিমা দুনিয়ায় আঘাত করার পরেই শুধু এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনা মহামারির সময় ধনী ও গরিব দেশগুলোর মধ্যে যেমন বৈষম্য দেখা দিয়েছিল, এক্ষেত্রেও সেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে। যদি ডব্লিউএইচও আজ মাঙ্কিপক্সকে বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা হিসেবে ঘোষণা করে, তাহলে তার অর্থ হবে জাতিসংঘের এই এজেন্সি রোগটিকে ‘ব্যতিক্রমী ইভেন্ট’ হিসেবে গণ্য করছে। একই সঙ্গে এই রোগ সীমান্ত অতিক্রম করে আরও দেশে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা আছে। এ খবর দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক দ্য অলিম্পিয়ান। 

এতে বলা হয় মাঙ্কিপক্সকে যদি বৈশ্বিক ইমার্জেন্সি হিসেবে ঘোষণা করা হয় তাহলে এর অর্থ হবে কোভিড-১৯ মহামারিকে যেভাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল, এটিও সেভাবেই চিহ্নিত হবে। তবে মহামারি কমাতে এমন ঘোষণা সহায়ক হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন অনেক বিজ্ঞানী।

মাঙ্কিপক্স

গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস সাম্প্রতিক মাঙ্কিপক্স কমপক্ষে ৪০টি দেশে শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন। এর মধ্যে ইউরোপে যেসব রোগ দেখা দিয়েছে তা খুব বেশি অস্বাভাবিক ও উদ্বেগজনক। কেন্দ্রীয় ও পশ্চিম আফ্রিকায় দশকের পর দশক ধরে এই রোগ আক্রান্ত করে যাচ্ছে মানুষকে। এসব দেশে মাঙ্কিপক্সের একটি সংস্করণে শতকরা কমপক্ষে ১০ ভাগ মানুষ মারা গেছেন। এখন পর্যন্ত আফ্রিকার বাইরে মাঙ্কিপক্সে কোনো মানুষ মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

৩১৩৭ কোটি টাকার প্রকল্প শেষের পথে নিয়োগই হয়নি শিক্ষক-মানবজমিন

চাকরিপ্রত্যাশীদের দীর্ঘ অপেক্ষা। পরীক্ষা দেয়ার ৩০ মাস হলেও এখন পর্যন্ত মেলেনি ফল। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর অধীনে ‘আউট অব চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম’ বাস্তবায়নের জন্য উপজেলা আরবান প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর (ইউপিসি) পদে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইআর) কর্তৃক লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় সেই সঙ্গে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোয় অনুষ্ঠিত হয় মৌখিক ও কম্পিউটার টেস্ট পরীক্ষা। ৩০ মাস পূর্বে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও দেয়া হয়নি ফলাফল। এদিকে শিক্ষক নিয়োগের আগেই গত বছরের ১৫ই ডিসেম্বর ওই প্রোগ্রামের শিখন কেন্দ্র চালু হয়েছে। কিন্তু শিক্ষক নিয়োগ হয়নি এখনও। ৮ থেকে ১৪ বছর বয়সী ঝরে পড়া শিশুদের জন্য নেয়া এই প্রজেক্টের বাজেট ৩১৩৭ কোটি টাকা। এই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০২৩ সালের জুন মাসে।

বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসের জেনেটিক পরিবর্তনের বড় কোনো ইস্যু খুঁজে পাননি। গত মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একজন শীর্ষস্থানীয় উপদেষ্টা বলেছেন, ইউরোপে এই রোগ যেভাবে ছড়িয়ে পড়ছে তাতে মনে হচ্ছে যৌনতার মধ্য দিয়ে ছড়ায় এই ভাইরাস। বিশেষ করে সমকামী, উভকামীদের মধ্যে। এমনটা দেখা গেছে স্পেন ও বেলজিয়ামে।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিএনপিকে আমন্ত্রণ-ইত্তেফাক

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগ।বুধবার (২২ জুন) বেলা ১১টায় সেতু বিভাগের উপ-সচিব দুলাল চন্দ্র সূত্রধর রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর কাছে আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে দেন।

বিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ করেছিল: প্রধানমন্ত্রীবিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ করেছিল: প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম থান ও ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ এই সাতজনের নামে আমন্ত্রণ কার্ড দেওয়া হয়।

আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করে জনগণকে প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি: নানক-ইত্তেফাক

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র প্রত্যাখ্যানের মাধ্যমে বিএনপি এদেশের জনগণকে, জনগণের স্বপ্নকে প্রত্যাখ্যান করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।বুধবার (২২ জুন) পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে জাজিরা প্রান্তে সমাবেশস্থল পরিদর্শন এবং জনসভার প্রস্তুতিসভায় তিনি এসব কথা বলেন।বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে নানক বলেন, 'তারা এ দেশের স্বাধীনতাকে মানতে পারেনি, তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বপ্নের সোনার বাংলা মানতে পারেনি, তাই তারা পদ্মা সেতুকেও মানতে পারছে না। তাই তারা স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করতে পারে না। এই কারণে এই দেশের জনগণ তাদেরকে বার বার প্রত্যাখ্যান করেছে। আগামী নির্বাচনেও জনগণ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করবে।'

আমন্ত্রণ পাননি খালেদা জিয়া, পত্র নিয়েছেন ড. ইউনূস

আমন্ত্রণ পাননি খালেদা জিয়া, পত্র নিয়েছেন ড. ইউনূস। দেশের সর্ববৃহৎ মেগাপ্রকল্প পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আমন্ত্রণ জানায়নি সরকার। তবে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে জমকালো এ অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তিনি আমন্ত্রণপত্র গ্রহণ করেছেন। সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঋণখেলাপি করার নীতিতে বড় ছাড়-যুগান্তর

নিয়মিত ঋণকে খেলাপি করার প্রচলিত নীতিমালায় আরও বড় ছাড় দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ঋণের কিস্তির আকার ও পরিশোধের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ফলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোনো ঋণ বা ঋণের কিস্তি পরিশোধ না করলেও ওই গ্রাহককে খেলাপি করা যাবে না। শিল্প, কৃষি খাতে মেয়াদি ঋণ, চলতি মূলধন ঋণসহ সব ধরনের ঋণে এ ছাড় দেওয়া হয়েছে। 

করোনার নেতিবাচক প্রভাব, দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আকস্মিক বন্যায় সৃষ্ট ক্ষয়ক্ষতি ও বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড স্বাভাবিক রাখতে এ ছাড় দেওয়া হয়েছে। 

এ বিষয়ে বুধবার রাতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একটি সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ওয়েবসাইটেও এটি আপলোড করা হয়েছে।  এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়েছে।

বাসযোগ্যতার সূচকে ১৭২টি শহরের মধ্যে ঢাকা ১৬৬তম-প্রথম আলো

বাসযোগ্য শহরের তালিকায় তলানির দিক থেকে (বাস অযোগ্য) সপ্তম হয়েছে ঢাকা। ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) ২০২২ সালের সূচকে ১৭২টি শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান ১৬৬তম। আজ বৃহস্পতিবার এই তালিকা প্রকাশ করে ইআইইউ। খবর দ্য গার্ডিয়ানের

অবশ্য আগের বছরের চেয়ে বাসযোগ্য শহরের তালিকায় তিন ধাপ এগিয়েছে ঢাকা। ২০২১ সালের সূচকে ১৪০টি শহরের মধ্যে ১৩৭তম হয়েছিল ঢাকা। বাসযোগ্যতার সূচকে এ বছর ঢাকার স্কোর ১০০ নম্বরে মধ্যে ৩৯ দশমিক ২। আগের বছর প্রাপ্ত স্কোর ছিল ৩৩ দশমিক ৬। মহামারিসংক্রান্ত বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করার কারণে স্কোর বেড়েছে বলে জানিয়েছে ইআইইউ।

শহরগুলোর স্থিতিশীলতা, স্বাস্থ্যসেবা, সংস্কৃতি ও পরিবেশ, শিক্ষা এবং অবকাঠামোর মতো গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ইআইইউ বাসযোগ্যতার এ তালিকা তৈরি করে থাকে।

তালিকার একেবারে তলানিতে আছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক। অবশ্য তলানিতে থাকা ১০টি শহরের মধ্যে অবকাঠামোতে সবচেয়ে কম স্কোর ঢাকার—মাত্র ২৬ দশমিক ৮। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ইআইউর এই তালিকা প্রকাশ ধাক্কা খায়। ২০২০ সালে তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। পরের বছর তালিকায় শহরগুলোর অবস্থান ব্যাপক ওলটপালট হয়। কারণ, লকডাউন ও সামাজিক দূরত্বের মতো পদক্ষেপ বিশ্বব্যাপী শহরগুলোর সাংস্কৃতিক, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবার স্কোরকে প্রভাবিত করে।

এবারে কোলকাতার কয়েকটি খবরের বিস্তারিত:

উদ্ধবের সঙ্গে মাত্র ১৩ জন বিধায়ক!‌ ‘ফিরে আসুন, দরকারে ছাড়ব জোট’, বিক্ষুব্ধদের বলল Shiv Sena-আজকাল

মাত্র ১৩ জন বিধায়কই পড়ে রয়েছেন শিবসেনা সুপ্রিমো উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে!‌ আজ সকালে বৈঠক ডেকেছিলেন তিনি। তাতে দেখা যায়, মাত্র ১৩ জন বিধায়কই উপস্থিত। তার পরেই একনাথ শিণ্ডের নেতৃত্বাধীন বিক্ষুব্ধদের ফিরে আসতে বললেন সেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত। দরকারে তাঁদের দাবি মেনে বর্তমান জোট থেকে বেরিয়ে যাবে সেনা।

শিবসেনার প্রধান মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত

শিবসেনার প্রধান মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বললেন, ‘আমরা মহাবিকাশ আঘারি ভেঙে চলে আসার বিষয়ে কথা বলছি। কিন্তু বিক্ষুব্ধদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গুয়াহাটি থেকে মুম্বইতে ফিরতে হবে।’

এদিকে বুধবার থেকে গুয়াহাটির রিজর্টে রয়েছেন একনাথ শিণ্ডে। তাঁর দাবি, সঙ্গে রয়েছেন ৪১ জন বিধায়ক। যা শিবসেনা–এনসিপি–কংগ্রেস জোট সরকার ভাঙার জন্য যথেষ্ট।

আজকালের অপর এক খবরে লেখা হয়েছে, বন্যার বদলে উদ্ধবের সরকার ফেলতে টাকা ঢালছে বিজেপি!‌ অসমে শিণ্ডেদের হোটেলে বিক্ষোভ তৃণমূলের। এ খবরে বলা হয়েছে, বন্যায় ভাসছে অসম।

৫৫ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। মারা যাচ্ছেন বহু মানুষ। আর রাজ্যের শাসক দল বিজেপি মহারাষ্ট্রের সরকার ফেলতে ব্যস্ত। শিবসেনা বিধায়কদের তুলে এনে হোটেল ভাড়া করে রাখছে। খরচ করছে। এই অভিযোগ তুলেই গুয়াহাটির হোটেলের বাইরে বিক্ষোভ দেখাল তৃণমূল।  

ইডি মোদী সরকারের চাপিয়ে দেওয়া নির্দেশ পালনের সংস্থায় পরিণত হয়েছে, তোপ কংগ্রেসের-আনন্দবাজার পত্রিকা

‘প্রতিহিংসার রাজনীতি’ করছে বিজেপি-jকংগ্রেস নেতৃত্ব

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গাঁধী এবং প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গাঁধীকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-র তলব নিয়ে রাজধানীর বুকে শুরু থেকেই বিক্ষোভ আন্দোলন করছেন দলের নেতা-কর্মীরা। ওয়েনাডের কংগ্রেস সাংসদ রাহুলকে গত দু’সপ্তাহে অন্তত ৫০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি।

রাহুল গান্ধী

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার এমন ‘উঠে পড়ে লাগা’ দেখে কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্বের অভিযোগ, ইডি এখন নিজের কাজ ছেড়ে শুধুই কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের ‘চাপিয়ে দেওয়া নির্দেশ’ পালনের সংস্থায় পর্যবসিত হয়েছে। রাহুলকে বার বার তলব করে ‘হেনস্থা’ করা হচ্ছে বলে দাবি করে কংগ্রেস নেতৃত্বের অভিযোগ, ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি’ করছে বিজেপি।

আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদেও মুখ্যমন্ত্রী! রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব করার বিল পাশ বিধানসভায়-সংবাদ প্রতিদিনের এ খবরে লেখা হয়েছে, রাজ্যের আরও এক বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য় পদে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (Aliah University) আলিয়া-ই-জামিয়া পদ থেকে রাজ্যপালকে অপসারণ করে মুখ্যমন্ত্রীকে বসাতে চায় রাজ্য। সেই উদ্দেশ্যে বৃহস্পতিবার বিল পাশ হল বিধানসভায়। বিল নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিল বিরোধী দল বিজেপি। কিন্তু ভোটাভুটি হলে বিরোধীদের হার নিশ্চিত ছিল। তাই এদিন আর সেই পথে হাঁটেনি বিজেপি।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/২৩

ট্যাগ