ডিসেম্বর ০৪, ২০২১ ০৭:৪১ Asia/Dhaka
  • ভিয়েনায় গত ২৯ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সপ্তম দফা আলোাচনা হয়
    ভিয়েনায় গত ২৯ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সপ্তম দফা আলোাচনা হয়

ভিয়েনা বৈঠকে ইরানের পক্ষ থেকে দেয়া দু’টি খসড়া প্রস্তাব সম্পর্কে তিন ইউরোপীয় দেশের কূটনীতিকরা নয়া দাবি উত্থাপন করেছেন। ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানীর কূটনীতিকরা পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার একতরফাভাবে বেরিয়ে যাওয়া এবং ইউরোপীয় দেশগুলোর প্রতিশ্রুতি পালনে ব্যর্থতার প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়ে দাবি করেন, ইরানের প্রস্তাবগুলো ‘অত্যন্ত কঠিন’।

অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত সংলাপে ইরান পাঁচ জাতিগোষ্ঠীর কাছে দু’টি খসড়া প্রস্তাব হস্তান্তর করেছে বলে এর আগে খবর দিয়েছিলেন ইরানি প্রতিনিধিদলের প্রধান আলী বাকেরি-কানি। তিনি বলেছিলেন, এর একটিতে ইরানের পরমাণু কর্মসূচির বিবরণ তুলে ধরা হয়েছে এবং দ্বিতীয়টিতে ইরানের ওপর থেকে নিপীড়নমূলক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়েছে। বুধবার রাতে ওই খসড়া হস্তান্তরের পর গত দু’দিন এসবের বিষয়বস্তু নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়।

তিন ইউরোপীয় দেশের প্রতিনিধিরা দাবি করেছেন, এবারের আলোচনায় ইরানি প্রতিনিধিদলের ‘কঠোর অবস্থানে’ তারা ‘হতাশ ও উদ্বিগ্ন’ হয়েছেন। ব্রিটেন, ফ্রান্স ও রাশিয়ার প্রতিনিধিরা দাবি করেছেন, এর আগের ছয় দফা আলোচনায় যে অগ্রগতি হয়েছিল ইরান তা থেকে পিছিয়ে গেছে।

এর আগে পাঁচ জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের পরমাণু সমঝোতা পুনরুজ্জীবনের সপ্তম দফা আলোচনা শুক্রবার ভিয়েনায় শেষ হয়। বৈঠকের বিষয়বস্তু সম্পর্কে প্রতিটি দেশের প্রতিনিধিরা তাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শলাপরামর্শ করার জন্য নিজ নিজ দেশে ফিরে গেছেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক উপ প্রধান এনরিক মুরা বলেছেন, আগামী বুধ অথবা বৃহস্পতিবার আবার সব দেশের প্রতিনিধিরা আরো আলোচনার জন্য ভিয়েনায় ফিরে আসবেন।গত পাঁচ দিনের বৈঠকে বেশ কয়েকটি খসড়া প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে মুরা উল্লেখ করেন।

পার্সটুডে/এমএমআই/৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ