জুন ২৬, ২০২২ ১৮:২১ Asia/Dhaka

পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল জাভেদ কামর বাজওয়া এবং সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান একে অপরের সঙ্গে সাক্ষাতে দুই দেশের মধ্যে সামরিক সহযোগিতাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

জেনারেল জাভেদ কামার বাজওয়া জেদ্দায় যুবরাজ মোহাাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ বৈঠকে সৌদি প্রতিরক্ষা উপমন্ত্রী এবং দেশটির সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফসহ দুই দেশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। দুই মাস আগে শাহবাজ শরিফ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের পর  প্রথম বিদেশ সফর হিসেবে সৌদি আরব সফরে গিয়েছিলেন এবং তিনিও সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে সাক্ষাতে মিলিত হয়েছিলেন।  

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পাকিস্তান তার আর্থিক সমস্যা সমাধানের জন্য তেলসমৃদ্ধ আরব দেশ বিশেষ করে সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছ থেকে ৫০০ কোটি ডলারের বেশি ঋণ নিয়েছে। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান এমন সময় রিয়াদ সফরে গেলেন যখন দেশটি চরম অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে এবং এ মুহূর্তে ইসলামাবাদের জন্য ব্যাপকমাত্রায় সৌদি সাহায্যের প্রয়োজন। গত এপ্রিলে যখন শাহবাজ শরীফ পাকিস্তানের পার্লামেন্টে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রতি অনাস্থা ভোট নিয়ে ক্ষমতায় আসেন তখন থেকে তার সরকার বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছে যা ক্ষমতাসীন মুসলিম লীগ- অন্তর্ভুক্ত শাসক দলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের জন্ম দিয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গত তিন বছরে পাকিস্তানকে কঠিন অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়েছে এবং দেশটির বিভিন্ন অর্থনৈতিক বিভিন্ন খাতে এর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এছাড়া, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পাকিস্তান ঋণের জন্য আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কারো কাছ থেকে কোনো ইতিবাচক সাড়া পায়নি অথবা তার প্রত্যাশিত ঋণের একটা ক্ষুদ্র অংশে পেতে সক্ষম হয়েছে।

অন্যদিকে রাজস্ব আয় ক্রমাগতভাবে হ্রাস এবং ব্যয়ের পরিধি বহুগুণে বেড়ে যাওয়াার কারণে পাকিস্তান বর্তমানে চরম বাজেট ঘাটতির মুখে পড়েছে। ফলে দেশটির সরকার খাদ্যসহ মৌলিক পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে হিমশিম খাচ্ছে। মূলত বর্তমান পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে পাকিস্তানের জন্য এই মুহূর্তে ব্যাপক আর্থিক সহায়তার প্রয়োজন এবং সেই লক্ষ্য পূরণের জন্যই পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল বাজওয়া সৌদি আরব সফর করেন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। 

পাকিস্তানে শরীফ পরিবারের সাথে সৌদি রাজপরিবারের পরিবারের দীর্ঘদিনের সুসম্পর্ক রয়েছে এবং শাহবাজ শরীফের ক্ষমতায় আসার সাথে সাথে দুই দেশের মধ্যে আবারো দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার উন্নয়ন ও তা জোরদারে সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। 

শাহবাজ শরীফ যিনি আগামী বছর এবং নতুন সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবেন বলে প্রত্যাশা করছেন তিনি সৌদি আর্থিক সহায়তায় তার দেশের কঠিন অর্থনৈতিক অবস্থা কাটিয়ে আগামী বছর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের জন্য জনগণের আস্থা অর্জনে একটি ভিত্তি  প্রতিষ্ঠা করবেন মনে করা হচ্ছে। #

পার্সটুডে/ বাবুল আখতার /২৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ