অক্টোবর ০৭, ২০২২ ১৫:৩৪ Asia/Dhaka
  • ট্রাম্প-বাইডেন
    ট্রাম্প-বাইডেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট স্বীকার করেছেন উন্নয়ন ও গবেষণায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে তাঁর দেশের র‍্যাঙ্কিং ব্যাপকভাবে হ্রাস পেয়েছে।

হঠাৎ করে পেট্রোলের দাম বৃদ্ধি, ভাড়া বৃদ্ধি এবং খাদ্যসহ মৌলিক ভোগ্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধির কারণে যুক্তরাষ্ট্রে গত ৪১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি হয়েছে। মার্কিনীরা যখন অর্থনৈতিক বিভিন্ন সংকট মোকাবেলা করছে তখন বাইডেন সরকার ইউক্রেনে সমরাস্ত্র পাঠিয়ে যুদ্ধের আগুনে ঘি ঢালছে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন: আমরা একসময় গবেষণা ও উন্নয়নে জিডিপির পরিপ্রেক্ষিতে বিনিয়োগের দিক থেকে বিশ্বে প্রথম স্থানে ছিলাম কিন্তু আজ নবম স্থানে রয়েছি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও বলেন: চীন এক দশক আগেও এক্ষেত্রে অষ্টম স্থানে ছিল, আজ তারা বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। সম্প্রতি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও বর্তমান সরকারের কার্যক্রম সম্পর্কে দু:খ প্রকাশ করে বলেছেন: বিশ্ববাসী আমাদের কাজকর্ম দেখে হাসে, অবজ্ঞার দৃষ্টিতে আমাদের দিকে তাকায়। গত বুধবার মায়ামিতে দলীয় এক সমাবেশে ট্রাম্প ওই মন্তব্য করেন। বর্তমান সরকারের পদক্ষেপগুলোকে তিনি 'অসুস্থ পদক্ষেপ' বলে উল্লেখ করে বলেন: বাইডেন সরকারের উচিত জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়া। তিনি বাইডেনের তেল ভিক্ষা আর তেল উৎপাদন বৃদ্ধির অনুরোধের কড়া সমালোচনা করেন। জো বাইডেন সরকারের এ ধরনের কাজকে তিনি পাগলামি বলে মন্তব্য করেন। আমরা ভেনিজুয়েলার কাছে হাত পাতি, সৌদি আরবের কাছে ভিক্ষা চাই, সবার কাছেই তেল ভিক্ষা করছি অথচ সবার চেয়ে বেশি তেল আমাদের পায়ের নীচেই রয়েছে।#

পার্সটুডে/এনএম/৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ