নভেম্বর ২৫, ২০২২ ০৯:১৪ Asia/Dhaka
  • স্নায়ুযুদ্ধের পর এখন পূর্ব ইউরোপে অস্ত্র ব্যবসা রমরমা

রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের সংঘাতের প্রেক্ষাপটে পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো কিয়িভ সরকারকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র সরবরাহ করছে। এর ফলে পূর্ব ইউরোপে ফুলে ফেঁপে উঠেছে অস্ত্র ব্যবসা। এ অঞ্চলের কোনো কোনো দেশ অস্ত্র বিক্রিতে নতুন রেকর্ড গড়তে যাচ্ছে।

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসনের পর থেকে ইউরোপের দেশগুলোর অর্থনীতিতে স্থবিরতা নেমে এলেও বিপরীত চিত্র দেখা যাচ্ছে অস্ত্র খাতে। পূর্ব ইউরোপের অস্ত্রশিল্প এখন রীতিমতো ফুলে ফেঁপে উঠেছে। এসব দেশে এত বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ তৈরি হচ্ছে যা স্নায়ুযুদ্ধের অবসানের পর আর কখনো হয়নি।

পূর্ব ইউরোপের সরকারগুলো কিয়িভ সরকারকে সহযোগিতা করতে আগ্রহী। এজন্য অস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো নিচ্ছে সুযোগ। এর একেবারে সামনের সারিতে রয়েছে পোল্যান্ড যারা ড্রোন থেকে শুরু করে সব ধরনের অস্ত্র ও গোলাবারুদ তৈরি করছে। দেশটি আগামী এক দশকে অস্ত্র শিল্পখাতে বিনিয়োগ দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। পোল্যান্ডের অস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান পিজিযেড জানায়, তারা ইউক্রেনে মর্টারসহ ক্ষুদ্রাস্ত্র ও গোলাবারুদ পাঠাচ্ছে। ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর আগে পোল্যান্ড দেড়শ কোটি ডলারের অস্ত্র রপ্তানি করত। কোম্পানিটি আশা করছে- চলতি বছর অস্ত্র খাতে তাদের আয় আগের বছরকে ছাড়িয়ে যাবে।

একই ধরনের ঘটনা চেক প্রজাতন্ত্রে ঘটেছে। ইউক্রেন যুদ্ধর শুরুর পর থেকে গত নয় মাসে দেশটি কিয়েভকে ২১০ কোটি ডলারের অস্ত্র দিয়েছে। ১৯৮৯ সালের পর চেক প্রজাতন্ত্র অস্ত্র রপ্তানি খাতে নতুন রেকর্ড গড়তে চলেছে। এমন তথ্য জানিয়েছেন দেশটির উপ প্রতিরক্ষামন্ত্রী টমাস কোপেকনি। তিনি জানান, বিশ্বের অন্যতম বড় অস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তার দেশের অংশীদারিত্ব রয়েছে যা প্রাগের জন্য বিরাট সুযোগ।#

পার্সটুডে/এসআইবি/২৫

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ