২০১৯-০৯-০৬ ১১:৪১ বাংলাদেশ সময়
  • রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন
    রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

আইএনএফে চুক্তির আওতায় নিষিদ্ধ থাকা বিভিন্ন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। গগতকাল (বৃহস্পতিবার) রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় ভ্লাদিভস্তক শহরে এক অর্থনৈতিক ফোরামে বক্তৃতা দেয়ার সময় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এ ঘোষণা দেন।

তবে আমেরিকা যদি এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা থেকে নিজেদের বিরত রাখে, সেক্ষেত্রে মস্কোও তা মোতায়েন করা থেকে বিরত থাকবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি। নতুন করে অস্ত্র প্রতিযোগিতার আশঙ্কা জানিয়ে পুতিন বলেন, মস্কোর পক্ষ থেকে অস্ত্র প্রতিযোগিতা কমানোর ক্ষেত্রে আমেরিকাকে অনুরোধ জানানো হলেও তারা কোনো সাড়া দেয় নি। বরং জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ায় আমেরিকা ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করতে যাচ্ছে। তিনি উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, রাশিয়ার বিভিন্ন অংশ এসব ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় পড়বে।  

নতুন করে ৫০০ কিলোমিটার পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে আমেরিকা 

গত মাসে আমেরিকা ৫০০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম এমন ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষাও চালিয়েছে। আইএনএফ চুক্তিতে এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র নিষিদ্ধ ছিল। ওই চুক্তির আওতায় ৩১০ মাইল থেকে ৩ হাজার ৪০০ মাইল পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিষিদ্ধ ছিল।

আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে পুতিন বলেন, “অবশ্যই আমরা এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করবো। আমরা মোটেও আনন্দিত নই, পেন্টাগন প্রধান আমাদের জানিয়েছেন, তারা জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ায় এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করতে যাচ্ছে। এ খবরে আমরা বিমর্ষ এবং এটি নিঃসন্দেহে উদ্বেগের বিষয়।”  

পুতিন আরো জানান, সম্প্রতি তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ফোন করে বলেন, তারা চাইলে মস্কোর কাছ থেকে একটি হাইপারসোনিক পরমাণু অস্ত্র কিনতে পারে। কিন্তু প্রত্যুত্তরে ট্রাম্প বলেন, ওয়াশিংটন নিজেই তেমন অস্ত্র তৈরি করছে।#

পার্সটুডে/এসআইবি/৬

ট্যাগ

মন্তব্য