জানুয়ারি ২২, ২০২০ ১৩:৩১ Asia/Dhaka
  • ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্ব্স্ত মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে বিমর্ষ এক সেনাকে দেখা যাচ্ছে
    ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্ব্স্ত মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে বিমর্ষ এক সেনাকে দেখা যাচ্ছে

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি'র ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আরো অনেক মার্কিন সেনার চিকিৎসা নেয়ার কথা স্বীকার করেছে সেনা সদরদপ্তর পেন্টাগন।

গতকাল (মঙ্গলবার) মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড বা সেন্টকম ঘোষণা করেছে, আগে যে আহত ১১ সেনার চিকিৎসা নেয়ার কথা বলা হয়েছিল তার চেয়েও বেশি সেনা চিকিৎসা নিয়েছে। তবে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় এ পর্যন্ত কত আহত সেনা চিকিৎসা নিয়েছে তার প্রকৃত সংখ্যা জানাতে অস্বীকার করেছে সেন্টকম।

মার্কিন সরকার এবং পেন্টাগনের এই লুকোচুরি দেখে দৃশ্যত বোঝা যাচ্ছে যে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টের যে প্রক্রিয়া চলছে তাতে কিছুটা সুবিধা পেতে মার্কিন সেনাদের হতাহতের খবর গোপন করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে- যতটা সম্ভব ধীরে ধীরে সহনশীলভাবে মার্কিন সেনাদের এই বিপর্যয়কর পরাজয়ের খবর প্রকাশ করা হবে।

ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্ব্স্ত মার্কিন সামরিক ঘাঁটি

সেন্টকম-এর মুখপাত্র ক্যাপ্টেন আরবান দাবি করেন, আহত সেনাদের সংখ্যা প্রকাশ করাটা জরুরি না তবে ভবিষ্যতে তা হয়তো প্রকাশ করা সম্ভব হবে। আহত এসব সেনাকে জার্মানির ল্যান্ডস্টুলে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে। তিনি জানান, সেনাদের পরিস্থিতির মূল্যায়ন ও অপারেশন অব্যাহত রয়েছে।

ইমপিচমেন্টের চূড়ান্ত বিচারের মুখে ট্রাম্প (বামে)

গত ৩ জানুয়ারি মার্কিন সেনারা ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের কাছে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি'র কুদস ফোর্সের কমান্ডার জেনারেল সোলাইমানিকে সন্ত্রাসী কায়দায় হত্যা করে। এর প্রতিশোধ হিসেবে ৮ জানুয়ারি আইআরজিসি ইরাকে অবস্থিত আমেরিকার দুটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এসব ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পারে নি মার্কিন সেনারা বরং সেখানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু আমেরিকা তা স্বীকার করতে চেইছে না। হামলার পরপরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছিলেন, ইরানি হামলায় কোনো সেনা হতাহত হয় নি কিন্তু পরবর্তীতে ১১ সেনা আহত হওয়ার কথা স্বীকার করে পেন্টাগন। এবার নতুন করে এই আহত সেনাদের চিকিৎসা নেয়ার খবর বের হলো।#

পার্সটুডে/এসআইবি/২২

ট্যাগ

মন্তব্য