ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০ ০১:০১ Asia/Dhaka
  • বইয়ের প্রচ্ছদ
    বইয়ের প্রচ্ছদ

মার্কিন সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে নিয়ে বাংলা ভাষায় একটি বই প্রকাশিত হয়েছে। বইটির শিরোনাম  ‘জীবন্ত   শহীদ: সোলাইমানী   হত্যার   নেপথ্য   কাহিনী’। লিখেছেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট সাহিত্য-অনুবাদক ও সাংবাদিক প্রমিত হোসেন। ঢাকার বাংলাবাজার থেকে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান অন্যধারা বইটি প্রকাশ করেছে।

বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা চলার মধ্যেই বইটি প্রকাশিত হলো। লেখক প্রমিত হোসেন তার বইয়ে লিখেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মূলত কাসেম সোলাইমানিকে নয় বরং শান্তিকে হত্যা করেছেন।

বইয়ের একাংশে লেখকের অনুভূতি উঠে এসেছে ঠিক এভাবে- ‘হানাদার মার্কিন   সাম্রাজ্যবাদীরা  কিছুতেই   চায় না মধ্যপ্রাচ্যে,  বিশেষ করে  শত্রুভাবাপন্ন   আরব দেশগুলো  ও   ইরানের মধ্যে শান্তির  বাতাবরণ  সৃষ্টি   হোক।   তারা এ অঞ্চলে যুদ্ধ-যুদ্ধ পরিস্থিতি   জিইয়ে   রাখতে   চায়।   উত্তেজনা   বহাল   রাখতে   চায়। সৌদি-ইরান বিরোধ  বজায়  রাখতে  চায়।  তাহলে তৈলমসৃণভাবে লুটপাট করা যায়,আধিপত্য আর দখল ঠিকঠাক মত চলে। মার্কিন পুঁজিবাদ হেজে-মজে গেছে  অনেক   আগেই।   তা   টিকে   আছে যুদ্ধ-অর্থনীতির   ওপর।   আগ্রাসী, লুটেরা   যুদ্ধ ছাড়া   এ অর্থনীতি টিকিয়ে রাখা একদিনও সম্ভব নয়। সুতরাং শান্তি একটা সমস্যা। বড় ধরনের সমস্যা। তাই হত্যা করা হল শান্তির দূত কাশেম সোলাইমানীকে।...মূলত কাশেম সোলাইমানীকে নয়, ট্রাম্প হত্যা করেছেন শান্তিকে।’

ইরাকে গত ৩ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে পরিচালিত সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ হন ইরানের কুদস ফোর্সের অধিনায়ক লে. জেনারেল কাসেম সোলাইমানি, ইরাকের পপুলার মোবিলাইজেশন   ফোর্সের   উপ-প্রধান আবু মাহদি আল-মুহান্দিস ও আরও আটজন সামরিক ব্যক্তি। ওই ঘটনার প্রেক্ষাপটে জেনারেল  কাসেম সোলাইমানিকে কেন্দ্রে রেখে মধ্যপ্রাচ্যের সার্বিক একটি চিত্র তুলে ধরেছেন তিনি এ বইটিতে। সূচীপত্রের কয়েকটি শিরোনাম থেকে বইটির বিষয়বস্তু কিছুটা অনুমান  করা   যায়।

সূচীপত্রের কয়েকটি শিরোনাম হচ্ছে, জীবন দিয়েই শহীদ হলেন জীবন্ত শহীদ; সৈনিকের জন্য জনসমুদ্র; ক্ষেপণাস্ত্র হামলা আর   যুদ্ধের বলি; সোলাইমানীকে হত্যার প্রকৃত কারণ; দেশপ্রেমিকের প্রতিকৃতি; জীবন্ত শহীদ; ঈশ্বরপ্রেরিত ট্রাম্প, এ যুগের রোমান; একটি আমেরিকান ট্র্যাজেডি; ইসরায়েলের ইতিহাস সন্ত্রাসবাদের ইতিহাস।

এছাড়া লেখক মধ্যপ্রাচ্য সমস্যার মূল যেখানে সেই অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে কয়েকটি আরব রাষ্ট্রের  গোপন  সম্পর্ক, ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা  আর  ইরানবিরোধী তৎপরতার চিত্র তুলে ধরেছেন তার অনুসন্ধানী  দৃষ্টিতে। 

মধ্যপ্রাচ্যের প্রকৃত চিত্র, নেপথ্যের সত্য, আমেরিকা ও তার সহযোগীদের আগ্রাসন-লুণ্ঠন-ষড়যন্ত্র সম্পর্কেও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে এই বইয়ে। প্রমিত হোসেনের ১২৮ পৃষ্ঠার বইটি এখন পাওয়া যাচ্ছে বাংলা একাডেমি আয়োজিত গ্রন্থমেলায় অন্যধারার স্টলে।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/১৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ

মন্তব্য