অক্টোবর ২৩, ২০২০ ১৮:১৪ Asia/Dhaka
  • ট্রাম্পের নীতিতে যেভাবে পশ্চিমা সংস্থাগুলোও 'ইহুদি-বিরোধী' হয়ে পড়ছে!

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নেতৃত্বাধীন মার্কিন সরকার ইসরাইলি অপরাধযজ্ঞ ও ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ইসরাইলের মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদের দায়ে পাশ্চাত্য-ভিত্তিক কয়েকটি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাকে 'ইহুদি-বিরোধী' বলে ঘোষণা দেয়ার চিন্তাভাবনা করছে।

এই সংস্থাগুলো হল অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মার্কিন শাখা, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এবং অক্সফাম। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শিগগিরই এই সংস্থাগুলোর ইহুদি-বিরোধী চরিত্র সম্পর্কে বক্তব্য প্রকাশ করবে। এই তিনটি সংস্থা ইসরাইল বিরোধী বিডিএস তথা ইসরাইলি পণ্য বর্জন, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ও পুঁজি-বিনিয়োগে ইসরাইলকে সহায়তা না দেয়া এবং ইসরাইলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া সংক্রান্ত ফিলিস্তিনিদের সমর্থক আন্দোলনকে সহায়তা দিচ্ছে বলেও সন্দেহ করা হচ্ছে। 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সরকার গত চার বছরে ইসরাইল-বিরোধীদের বিপক্ষে ব্যাপক কঠোর পদক্ষেপ ও ইসরাইল-বান্ধব বহু পদক্ষেপ নিয়েছে। এখন পাশ্চাত্য-ভিত্তিক কয়েকটি মানবাধিকার সংস্থার বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ নিয়ে এই সরকার আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইহুদি লবিগুলোর সহায়তা ও ইহুদিদের ভোট বেশি মাত্রায় আকৃষ্ট করতে চায়।

এর আগেও ট্রাম্পের সরকার ইসরাইলকে খুশি করতে বর্ণবাদী এই অবৈধ রাষ্ট্রের মানবাধিকার বিরোধী পদক্ষেপগুলোর নিন্দা করার দায়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ ও ইউনেস্কোর সদস্য-পদ ত্যাগ করেছে। এ দুটি সংস্থাকে 'ইহুদি-বিরোধী' বলে তকমা দিয়েছে ট্রাম্পের মার্কিন সরকার।

লক্ষণীয় ব্যাপার হল ইরান, হামাস ও হিজবুল্লাহর মত ইসলামপন্থী বা বিপ্লবী না হওয়া সত্ত্বেও এবং পাশ্চাত্যের নানা নীতি-আদর্শের পক্ষে কাজ করা সত্ত্বেও পাশ্চাত্য-ভিত্তিক বা পশ্চিমা মানবাধিকার সংস্থাগুলোও এখন কেবল ইসরাইল-বিরোধিতার কারণে মার্কিন সরকারের কালো তালিকায় স্থান পাচ্ছে। এরপর এসব সংস্থার ওপর নানা ধরনের মার্কিন সরকারি শাস্তিও নেমে আসবে। অন্য কথায় ওয়াশিংটন ও ইসরাইলের স্বার্থের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ না নেয়া পর্যন্ত সব মানবাধিকার সংস্থাকে সহ্য করে মার্কিন সরকার। কিন্তু ইসরাইল ফিলিস্তিনিদের বাড়িঘর ও কৃষি-খামার ধ্বংস করে সেসব জবর দখল করতে থাকায় ও ফিলিস্তিনিদের নিজ জমি থেকে বিতাড়ন করতে থাকায় কোনো দল বা সংস্থা যদি এর নিন্দা জানায় তাহলেই মার্কিন সরকারের দৃষ্টিতে ওই দল বা সংস্থা হয়ে যায় 'ইহুদি-বিরোধী'!

মার্কিন সরকারের এই নীতির তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে মানবাধিকার সংস্থাগুলো। তারা বলছে ইসরাইল সরকার ও ইহুদি জাতি বা ধর্মকে এক করে দেখানো তথা ইসরাইলের নিন্দা করাকে ইহুদিদের ওপর হামলা বলাটা অযৌক্তিক। মার্কিন সরকারের এ ধরনের উদ্ভট পদক্ষেপের সূত্র ধরেই ইসরাইল জাতিসংঘের ও মানবাধিকার সংস্থার অনেক কর্মকর্তাকে ইসরাইল থেকে বের করে দিয়েছে। #

পার্সটুডে/এমএএইচ/২৩ 

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।           


 

ট্যাগ

মন্তব্য