জানুয়ারি ১৮, ২০২২ ২০:৩০ Asia/Dhaka

শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর প্রিয়জন। আজকের আসরে আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি আমি নাসির মাহমুদ আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: বরাবরের মতোই একটি বাণী শুনিয়ে আসর শুরু করতে চাই। আমীরুল মু‘মিনীন হযরত আলী (আ.) বলেছেন: 'কাজ যদিও কঠিন ও কষ্টকর, কিন্তু স্থায়ী কর্মহীনতা পাপাচার নিয়ে আসে।'

আকতার জাহান:  কায়িক শ্রমের প্রতি অনীহা থাকলে তা দূর করে আমরা সবাই যেকোনো বৈধ পেশায় আত্মনিয়োগ করব- এ প্রত্যাশায় নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে।

আসরের প্রথম মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানার বন্ধন অ্যান্ড লাকি শ্রোতা সংঘ থেকে। আর পাঠিয়েছেন ক্লাব সভাপতি নজরুল ইসলাম। 

রেডিও তেহরান সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, "আপনাদের সমসাময়িক বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ, গুরুত্বপূর্ণ সংবাদের বিশ্লেষণ, ঢাকা ও কোলকাতার সংবাদদাতার নিয়মিত প্রতিবেদন না শুনলে দিনটা খালি খালি লাগে। আর রংধনুতে যে গল্পগুলো নির্বাচিত করা হয় তা অত্যন্ত শিক্ষণীয় ও মনোগ্রাহী। সব ধরনের শ্রোতারা এখান থেকে উপকৃত হয় বলে আমার বিশ্বাস। এজন্য অনুষ্ঠানের কারিগর আশরাফ ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।"

নাসির মাহমুদ: এরপর চিঠিপত্রের আসর প্রিয়জন সম্পর্কে নজরুল ভাই লিখেছেন, ৮০'র দশক থেকে দেখছি প্রিয়জনের নাম প্রিয়জনই আছে। একসময় মাঝে মাঝে শ্রোতাদের সাক্ষাৎকার প্রচারিত হতো প্রিয়জনের আসরে। যুগের প্রয়োজনে ও শ্রোতাদের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ইদানীং প্রায় সপ্তাহে কোনো না কোনো শ্রোতার সাক্ষাৎকার প্রচারিত হচ্ছে। সাথে নতুন সংযোজন হয়েছে ভয়েস মেইল যা একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলে আমি মনে করি। প্রিয়জনের আপাদমস্তক এখন পরিপূর্ণতায় ভরপুর। তবে অনুষ্ঠানসূচি পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণে বোঝা যায় বিজ্ঞানবিষয়ক অনুষ্ঠানের বড়ই অভাব।"  

আশরাফুর রহমান:  আমাদের বিশ্বসংবাদ এবং সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান রংধনু ও প্রিয়জন সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন জেনে ভালো লাগল। আর বিজ্ঞানবিষয়ক অনুষ্ঠান সম্প্রচারের বিষয়টি আমাদের বিবেচনায় আছে। তো চিঠি লিখার জন্য নজরুল ইসলাম ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

বাংলাদেশের পর ভারত থেকে আসা একটি মেইল হাতে তুলে নিচ্ছি। এটি পাঠিয়েছেন আসামের বড়পেটা জেলার কান্দুলিয়া থেকে আবদুস সালাম সিদ্দিক। তিনি লিখেছেন, হজরত ঈসা আলাইহিস সালাম-এর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দর্পন অনুষ্ঠানে তাঁর সম্পর্কে প্রচলিত খ্রিষ্টীয় ধ্যান-ধারণার বিপরীতে পবিত্র কুরআনের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে পেরে বেশ ভালো লাগল। সুন্দর অনুভবের অসাধারণ একটি অনুষ্ঠান উপহার দেবার জন্য রেডিও তেহরানকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।  

আকতার জাহান: একই অনুষ্ঠান সম্পর্কে বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহাদত হোসেন পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগ থেকে ২৪ ডিসেম্বর প্রচারিত অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর্পন আমাদের হৃদয় ছুঁয়ে গেছে। হযরত ঈসা (আ.)-এর শুভ জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রচারিত এই অনুষ্ঠানটি আমাদেরকে আল-কুরআনের আলোকে বিবি মরিয়ম ও হযরত ঈসা (আ.) সম্পর্কে জানার সুযোগ করে দিয়েছে। চমৎকার এই অনুষ্ঠানটির জন্য রেডিও তেহরানকে ধন্যবাদ জানাই।

নাসির মাহমুদ: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট ঢাকা কলোনী থেকে বিধান চন্দ্র সান্যালও একই অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত জানিয়ে ইমেইল পাঠিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, "ইসলামের আদর্শ ও বিশ্বাস অনুযায়ী ঈসা (আ.) বেঁচে আছেন এবং শেষ জামানায় হযরত মাহদি (আ.) যখন আবির্ভূত হবেন তখন তাঁরও আগমন ঘটবে। শুধু তাই নয়, তিনি ইমাম মাহদির ইমামতিতে নামাজ পড়বেন এবং বিশ্বব্যাপী শান্তি ও ন্যায়ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে তাকে সহযোগিতা করবেন। আজ ঈসা (আ.) বা যিশুখ্রিস্টের বিশ্বাসীদের উচিত ফিলিস্তিন, ইরাক, সিরিয়া, ইয়েমেন, বাহরাইন, আফগানিস্তানসহ বিশ্বের সব নির্যাতিত জনপদে শান্তি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা। তাহলেই ঈসা (আ.)-এর জন্মদিন বা বড়দিন পালন সার্থক হবে।"

আশরাফুর রহমান: হযরত ঈসা (আ.)-এর জন্মদিন উপলক্ষে প্রচারিত বিশেষ অনুষ্ঠান সম্পর্কে চমৎকার মতামতের জন্য আবদুস সালাম সিদ্দিক, মোঃ শাহাদত হোসেন এবং বিধান চন্দ্র সান্যাল আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আকতার জাহান:  বাংলাদেশের চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট উপজেলার ছোট জামবাড়িয়া থেকে মুহাম্মদ আব্দুল হাকিম মিঞা পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি।

খ্রিষ্টীয় নববর্ষ ২০২২ সালের একরাশ প্রাণঢালা প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি চিঠিটি শুরু করেছেন। লিখেছেন, "রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠান শ্রোতাদের বস্তুনিষ্ঠ মতামত প্রকাশের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করে চলেছে। যা পারস্য উপসাগর থেকে শুরু করে বঙ্গোপসাগর হয়ে সারা বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষী শ্রোতাদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে। বস্তুনিষ্ঠ ও নিরপেক্ষ বাংলা সংবাদ, সংবাদভাষ্যের অনুষ্ঠান দৃষ্টিপাত এবং পত্রপত্রিকার পাতার অনুষ্ঠান কথাবার্তার মাধ্যমে সংবাদপিয়াসু হাজারও শ্রোতার মনের খোরাক অত্যন্ত আন্তরিকতা ও দক্ষতার সাথে জুগিয়ে চলেছে রেডিও তেহরান; যা আমাদের মুগ্ধ করে।

'রংধনু আসর রেডিও তেহরানের সকল শ্রোতার কাছেই খুব প্রিয় অনুষ্ঠান' মন্তব্য করে তিনি লিখেছেন, 'শিশু-কিশোরদের অনুপ্রাণিত করার জন্য রংধনু আসর থেকে ১৮ বছরের নিচের শ্রোতাদের জন্য সাপ্তাহিক কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করার প্রস্তাব রাখছি'।

নাসির মাহমুদ: ভাই মুহাম্মদ আব্দুল হাকিম মিঞা, রংধনু আসরের শ্রোতাদের জন্য আলাদা কুইজ চালুর যে প্রস্তাবটি আপনি দিয়েছেন তা আমাদের বিবেচনায় থাকল। সুন্দর মতামতের জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ থেকে মনীষা রায় পাঠিয়েছেন পরের মেইলটি।

তিনি লিখেছেন, "প্রিয় রেডিও তেহরান, তুমি আমার অক্সিজেন। তোমায় শুনে আমি জীবনে প্রাণ ফিরে পাই। আমার শ্রান্ত ক্লান্তিময় শরীরে তুমি এনে দাও একরাশ প্রশান্তির ছোঁয়া। তোমার সেই প্রশান্তিময় ছোঁয়ার অনুভবে আমার শারীরিক ও মানসিক দুইই সচল রাখি। তুমি আমাকে ধৈর্যশীল হতে সাহায্য করছ। তোমার সহায়তা পেয়ে আমি আমার কর্মক্ষেত্র, সাংসারিক জীবন এবং আরও অন্যান্য কাজ সামলে নিয়ে চলছি। তোমার আন্তরিকতা আমায় মুগ্ধ করে। সেই মুগ্ধতার আবেশে আমি কলম ধরার শক্তি পাই। যতদিন এ ক্ষুদ্র প্রাণ বাঁচবে ততদিন শুনে যাব তোমায়।"

আশরাফুর রহমান: চমৎকার ভাষায় রেডিও তেহরানকে মূল্যায়ন করার জন্য মনীষা রায় আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আমরা ২০২১ সালে রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠানমালা ও শ্রোতাবান্ধব কর্মসূচি সম্পর্কে মূল্যায়ন এবং নতুন বছরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ জানব আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব, কিশোরগঞ্জ শাখার সভাপতি মোঃ শাহাদত হোসেনের কাছ থেকে।  

আকতার জাহান: গত বছর প্রচারিত রেডিও তেহরানের বিভিন্ন অনুষ্ঠান এবং শ্রোতাবান্ধব কর্মসূচি সম্পর্কে মূল্যায়নের পাশাপাশি আগামী বছরের অনুষ্ঠানের জন্য পরামর্শ দেওয়ায় মোঃ শাহাদত হোসেন ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

নাসির মাহমুদ: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার কাজীপাড়া থেকে মুন্সি দরুদ পাঠিয়েছেন এই মেইলটি।

তিনি লিখেছেন, "২০ ডিসেম্বর, সোমবার রেডিও তেহরানের জনপ্রিয় অনুষ্ঠান প্রিয়জন শুনে মুগ্ধ হয়েছি। সর্বোপরি বিভিন্ন শ্রোতাদের সুদীর্ঘ মতামত পড়ে ভালো লাগছে এবং তাঁদের মতামতগুলো বেশ সাবলীল। আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল, রংধনু আসরের লেখাগুলোও অসাধারণ লাগে। শিশু-কিশোরদের মন জয় করার মতো অনুষ্ঠান রংধনু আসর।"

চিঠির শেষাংশ এ শ্রোতাবন্ধু লিখেছেন, "আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব বাংলাদেশ’-এর উদ্যোগে বিশেষ কুইজ প্রতিযোগিতায় নভেম্বর মাসে আমি বিজয়ী হয়েছি। পুরস্কার কবে, কিভাবে পাব- তা জানতে চাই।"  

আশরাফুর রহমান: ভাই মুন্সি দরুদ, আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে, কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ডাকযোগাযোগ বন্ধ আছে। আবার ডাকব্যবস্থা  চালু হলে অথবা কেউ ভারতে গেলে তাঁর কাছে পুরস্কার পাঠানো হবে বলে আইআরআইবি ফ্যান ক্লাবের সভাপতি যুবরাজ চৌধুরী আমাদেরকে জানিয়েছেন।  

আসরের পরের মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণপুর ছয়ঘরিয়া থেকে। আর পাঠিয়েছেন জাফুরুল ইসলাম জাফর।

আকতার জাহান: জাফর ভাইতো সৌদি আরবের তাবুক থেকে লিখতেন! এখন কি তিনি বাংলাদেশে?

আশরাফুর রহমান: হ্যাঁ, আপনি ঠিকই ধরেছেন। জাফর ভাই এ সম্পর্কে লিখেছেন, "দীর্ঘদিন প্রবাসে কর্মব্যস্ততা শেষে, দেশের মাটিতে বসে শুনলাম ২৫ ডিসেম্বরের সান্ধ্য অধিবেশন। পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত থেকে শুরু করে সকল আয়োজন অনেক ভালো লেগেছে। পক্ষপাতবিহীন নির্ভেজাল সংবাদ প্রচারের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ রেডিও তেহরানকে।"

নাসির মাহমুদ: আপনাকেও ধন্যবাদ দেশে যাওয়ার পরও রেডিও তেহরান শোনার জন্য।

আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব, কিশোরগঞ্জের সহযোগী সদস্য মার্জিয়া পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলায়।

আকতার জাহান: এ শ্রোতাবোনের এটাই কি প্রথম চিঠি?

নাসির মাহমুদ: হ্যাঁ ইমেইলে পাঠানো এটাই তার প্রথম চিঠি। প্রথম চিঠিতেই তিনি আমাদের অনুষ্ঠান সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু মতামত দিয়েছেন। লিখেছেন, "রেডিও তেহরানের ‘রংধনু আসর’, ‘আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল’, ‘গল্প ও প্রবাদের গল্প’, ‘আসমাউল হুসনা’, ‘কুরআনের আলো’ প্রভৃতি মূল্যবোধ ও নৈতিকতায় সমৃদ্ধ অনুষ্ঠান আমার জীবনে অনেক প্রভাব ফেলেছে। আমার ব্যক্তি এবং পারিবারিক জীবনকে আলোকিত করছে। আমি মনে করি বিশ্বসংবাদ, দৃষ্টিপাত, কথাবার্তা, ইরান ভ্রমণ, পাশ্চাত্যে জীবন ব্যবস্থা,  দর্পন, স্বাস্থ্যকথা এবং উপরে উল্লেখিত অনুষ্ঠানগুলোর চাহিদা শ্রোতাদের কাছে কখনও ফুরাবে না। আর এসব অনুষ্ঠান শুনে আমার মতো অনেক শ্রোতা ব্যক্তি ও পারিবারিক জীবনকে আলোকিত করছে।" 

আশরাফুর রহমান: রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠানমালা আপনার ব্যক্তি ও পারিবারিক জীবনকে আলোকিত করছে জেনে আমাদের খুব ভালো লাগছে। আশা করি নিয়মিত অনুষ্ঠান শোনার পাশাপাশি মতামত জানাবেন।

আসরের শেষ চিঠিটি এসেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর থানার নওপাড়া শিমুলিয়া থেকে আর পাঠিয়েছেন জাকির হোসেন।  

আকতার জাহান: খ্রিষ্টীয় নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে চিঠিটি শুরু করেছেন তিনি। লিখেছেন, "রেডিও তেহরান মানে পারস্য উপসাগর তথা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ধরনের সঠিক খবর আমাদের কাছে তুলে ধরা। ইসলামি সংস্কৃতিকে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তুলে ধরে শ্রোতাদেরকে আকৃষ্ট করা। তাই রেডিও তেহরানকে আমি কোনোদিন ভুলিনি, ভুলবও না।"

পছন্দের গণমাধ্যম হিসেবে রেডিও তেহরানকে বেছে নেওয়ায় জাকির হোসেন ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, দেখতে দেখতে আমাদের আজকের আসরেও সময় প্রায় ফুরিয়ে এসেছে। বিদায় নেওয়ার আগে আপনাদের জন্য রয়েছে একটি নজরুল সঙ্গীত। গেয়েছেন বাংলাদেশি সঙ্গীতশিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল।

নাসির মাহমুদ: আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে।#  

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/১৮

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ