জানুয়ারি ২৭, ২০২২ ১৬:১০ Asia/Dhaka

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ২৭ জানুয়ারি বৃহষ্পতিবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি বাবুল আখতার। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। এরপর গুরুত্বপূর্ণ দুটি খবরের বিশ্লেষণে যাবো। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • রাতের ভোট আমি দেখিনি, আদালতে কেউ অভিযোগও করেননি: সিইসি-প্রথম আলো
  • উপচার্যরা কী ধরনের দুর্নীতিবাজ হয়ে ওঠেন দেখেছি: সংসদে মেনন -যুগান্তর
  • ভিসি পদত্যাগ করলেই সমস্যার সমাধান হবে না : শিক্ষামন্ত্রী -মানবজমিন
  • শ্রমিক লীগের ৭ লাখ সদস্যের মধ্যে ৫ লাখই চাঁদাবাজিতে জড়িত-ইত্তেফাক
  • উপচার্যরা কী ধরনের দুর্নীতিবাজ হয়ে ওঠেন দেখেছি: সংসদে মেনন -যুগান্তর
  • রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘের ভূমিকা চায় ঢাকা -কালের কণ্ঠ

ভারতের শিরোনাম:

  • কমিউনিস্টরা কাঁকড়ার মতো! বুদ্ধদেবের পদ্ম-সম্মান প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ-আনন্দবাজার পত্রিকা
  • ‌হু’র মুখে সেই একই বুলি, ‘এখনই শেষ হচ্ছে না অতিমারি’ - আজকাল 
  • জাঠ ভোটব্যাংক বাঁচাতে অখিলেশের সঙ্গী জয়ন্ত চৌধুরিকে জোটের টোপ বিজেপির, প্রত্যাখ্যান RLD নেতার– সংবাদ প্রতিদিন

শ্রোতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবার দু'টি খবরের বিশ্লেষণে যাচ্ছি- 

কথাবার্তার বিশ্লেষণের বিষয়:

১. প্রতিষ্ঠান বন্ধের ক্ষেত্রে সবার শেষে, খুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে সর্বাগ্রে স্কুল থাকা উচিত: ইউনিসেফ। কি বলবেন আপনি?

২. ইহুদিবাদী ইসরাইল মানবতার শত্রু, একথা বলেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়েদ ইবরাহিম রায়িসি। কোন প্রেক্ষাপটে তিনি একথা বললেন?

বিশ্লেষণের বাইরে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবর:

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আন্দোলনে বেশি অবদান কবিদের: প্রধানমন্ত্রী-ইত্তেফাক

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের আন্দোলনের ক্ষেত্রে বেশি অবদান রয়েছে কবিদের উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি একজন রাজনীতিবিদ, বক্তৃতা দিয়ে বেড়াই কিন্তু আমার মনে হয়, আমি যে কথা বলে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে পারি তার চেয়ে অনেক বেশি উদ্বুদ্ধ হয় মানুষ একটা কবিতার মধ্য দিয়ে, গানের মধ্য দিয়ে, নাটকের মধ্য দিয়ে।

প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে ‘বঙ্গবন্ধু জাতীয় আবৃত্তি উৎসব ২০২০-২০২২’ এর উদ্বোধন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব জাতীয় আবৃত্তি পদক ২০২০-২২’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র ভাষণে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, ‘৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর যখন কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড করা যাচ্ছিল না তখন আমাদের কবিতার মধ্য দিয়েই প্রতিবাদের ভাষা বেরিয়ে আসে এবং মানুষ সেখানে উদ্বুদ্ধ হয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নাট্যকার দীন বন্ধু মিত্রের ‘নীল দর্পণ’ নাটকের মধ্য দিয়ে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন যেভাবে এগিয়ে গিয়েছিল- একটি কবিতার শক্তি যে কত বেশি সেটাতো আমরা নিজেরাই জানি। ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর যখন কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড করা যাচ্ছিল না তখন আমাদের কবিতার মধ্য দিয়েই প্রতিবাদের ভাষা বেরিয়ে আসে এবং মানুষ সেখানে উদ্বুদ্ধ হয়।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ওপর কত বার আঘাত এসেছে কিন্তু বাঙালি বসে থাকেনি, প্রতিবারই প্রতিবাদ করেছে। কারণ, আমাদের সাহিত্য চর্চাতো বৃথাই হয়ে যেতো। এক একজন কবি, শিল্পী, সাহিত্যিক, আবৃত্তিকার আমাদেরকে যা কিছু দিয়ে গেছেন এ গুলো আমাদের সম্পদ।’

রাতের ভোট আমি দেখিনি, আদালতে কেউ অভিযোগও করেননি: সিইসি-প্রথম আলো

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনের ভোট রাতে হয়েছে বলে যে অভিযোগ তা অভিযোগ আকারেই থেকে গেছে। অভিযোগের তদন্ত আদালতের নির্দেশনা ছাড়া  হয় না।

 দিনের ভোট রাতে হওয়া প্রসঙ্গে সিইসি বলেন, ‘অভিযোগের ওপর ভিত্তি করে আমি কনক্লুসিভ কিছু বলতে পারি না। কারণ, আমি তো দেখি নাই। আপনিও দেখেননি যে রাতে ভোট হয়েছে। তদন্ত হলে বেরিয়ে আসত, বেরিয়ে এলে আদালতের নির্দেশে নির্বাচন বন্ধ হয়ে যেত। সারা দেশের নির্বাচনও বন্ধ হয়ে যেতে পারত। রাজনৈতিক দলগুলো কেন আদালতে অভিযোগ দেয়নি সেটা তাদের বিষয়। এ সুযোগ তারা হাতছাড়া করেছে।’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে ‌রিপোর্টার্স ফোরাম ফর ইলেকশন অ্যান্ড ডেমোক্রেসি (আরএফইডি) আয়োজিত ‘আরএফইডি টক উইথ কে এম নূরুল হুদা’ আয়োজনে এ কথা বলেন সিইসি।

সিইসি তাঁর বক্তব্যে সুশাসনের জন্য নাগরিকের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার এবং সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ টি এম শামসুল হুদার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ আনেন।

সিইসি বদিউল আলম মজুমদারের বিরুদ্ধে এক কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ এনেছেন। আগের কমিশনে কাজের সূত্রে বদিউল আলম মজুমদার এ দুর্নীতি করেছেন বলেও জানান তিনি। বক্তব্যে সিইসি বলেন, দায়িত্ব পাওয়ার পর বদিউল আলম মজুমদার আগের কমিশনের মতো বর্তমান কমিশনের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। তবে কমিশনের কর্মকর্তারা সতর্ক করায় তাঁর সঙ্গে কাজ করেননি তিনি। আর এ জন্যই বদিউল আলম মজুমদার বিভিন্ন অভিযোগ করে যাচ্ছেন।

শ্রমিক লীগের ৭ লাখ সদস্যের মধ্যে ৫ লাখই চাঁদাবাজিতে জড়িত-ইত্তেফাক

আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন জাতীয় শ্রমিক লীগের নামে ৪২৬ খাতে বছরে ২ হাজার ১৬০ কোটি টাকার চাঁদা আদায় করা হয়। চাঁদা উঠাতে এলাকা, প্রতিষ্ঠান ও খাতভিত্তিক সংশ্লিষ্ট নেতাদের দায়িত্ব দেওয়া আছে। চাঁদা আদায়ের উল্লেখযোগ্য খাত গণপরিবহন। এ খাত থেকে প্রতিদিন তোলা হয় ৪ কোটি টাকার চাঁদা। এছাড়া উল্লেখযোগ্য খাত হলো, ব্যাংকিং, সিটি করপোরেশন, রাজউক, ওয়াসা, ট্যানারি, ডিপিডিসি, ডেসকো, জাতীয় জাদুঘর, ঢাকা ঘাট প্রভৃতি। সরকারি গুরুত্বপূর্ণ সব প্রতিষ্ঠানেই আছে শ্রমিক লীগের শাখা। দেশব্যাপী ৭ লাখ ৫৫ হাজার ৫১৫ জন সদস্যের মধ্যে ৫ লাখই চাঁদাবাজির সঙ্গে সরাসরি জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অতীতের সব সরকারি দলের শ্রমিক সংগঠনগুলো একই কায়দায় চাঁদা নিয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকাকালে শ্রমিক দলের নামে বছরে ২ হাজার কোটি টাকার বেশি চাঁদা আদায় করা হতো। চাঁদা আদায়ের খাতও ছিল একই। কেন্দ্রের পাশাপাশি তৃণমূল শ্রমিক লীগের অনেক নেতাও চাঁদাবাজির টাকায় হয়েছেন শত শত কোটি টাকার মালিক। ঢাকার অভিজাত এলাকায় রয়েছে অনেকের আলিশান বাড়ি। চলাচল করেন দামি গাড়িতে। জাতীয় শ্রমিক লীগের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে চাঁদাবাজির ভাগাভাগি ও কমিটি গঠন বাণিজ্য নিয়ে দ্বন্দ্ব এখন চরমে।

ভিসি পদত্যাগ করলেই সমস্যার সমাধান হবে না : শিক্ষামন্ত্রী-মানবজমিন

ভিসি পদত্যাগ করলেই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সব সমস্যার সমাধান হবে না বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বুধবার সন্ধ্যায় শাবিপ্রবির সাম্প্রতিক ইস্যু নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের সব সমস্যার সমাধান করা হবে। তারা যেকোনো সময় সেসব বিষয় নিয়ে আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে পারেন। তবে, তাদের কয়েক দফা দাবি হঠাৎ এক দফায় কীভাবে পরিণত হল, সেটা বুঝতে পারলাম না। শিক্ষার্থীদের সমস্যা আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান করতে হবে।

ভিসির পদত্যাগের বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ভিসির পদত্যাগ অন্য বিষয়। তাকে রাষ্ট্রপতি নিয়োগ দেন।

মানবজমিনের এ সম্পর্কিত অপর এক খবরে লেখা হয়েছে, সিলেটের শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক জাফর ইকবালের অনুরোধে এবং ‘সরকারের উচ্চ মহলের’ পক্ষ থেকে তাঁর মাধ্যমে দেয়া প্রতিশ্রুতির প্রেক্ষিতে অনশন ভঙ্গ করেছেন। দেড়শো ঘন্টারও বেশি সময় ধরে অনশনের কারণে ইতিমধ্যেই অনেক শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্যের অবনতির কারণে আমি উদ্বিগ্ন এবং শঙ্কিত ছিলাম। তারপরেও তাঁরা জীবন বাজি রেখেই তাঁদের দাবি আদায়ে অনড় থেকেছেন। অনশন ভাঙ্গার পরে শিক্ষার্থীরা একে বলেছেন ‘অনশন স্থগিত’ করা এবং তাঁরা আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন। সরকারের পক্ষ থেকে বারবার অভিযোগ করা হয়েছিলো যে, সিলেটের আন্দোলনে ‘তৃতীয় পক্ষ’ সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির বিবৃতিতে বলা হয়েছিলো যে,

তারা ‘তৃতীয় পক্ষের’ ইন্ধন দেখতে পান। এই তৃতীয় পক্ষ কে বা কারা কেউই খোলামেলাভাবে বলেননি।

আপাতদৃষ্টে অধ্যাপক জাফর ইকবাল এবং অধ্যাপক ইয়াসমিন হক প্রথম বা দ্বিতীয় পক্ষ নয়।

কিন্ত তাঁরা নিশ্চয় সরকার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কথিত তৃতীয় পক্ষ নন। কেননা সরকারের উচ্চ মহলের লোকজন তাঁদের কাছে উপস্থিত হলে এবং তাঁদের কাছে শিক্ষার্থীদের দাবি মানার প্রতিশ্রুতি দিলেই তাঁরা সেখানে গেছেন – জাফর ইকবাল বলেছেন ‘সরকারের উচ্চ মহল আমাকে পাঠিয়েছেন’ (বাংলানিউজ২৪, ২৬ জানুয়ারি ২০২২)। তাঁর মানে কী এই দাঁড়ায় যে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে যৌক্তিক মনে করলেও তিনি সেখানে গিয়েছিলেন সহমর্মিতা জানাতে নয় সরকারের হয়ে প্রতিশ্রুতি জানাতে?

সুজনের গোলটেবিল-নির্বাচন কমিশন নিয়োগে সন্দেহ অবিশ্বাস দূর করা জরুরি-মানবজমিন

সংসদে পাসের অপেক্ষায় থাকা সিইসি ও নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ সংক্রান্ত আইনের বেশকিছু ত্রুটি চিহ্নিত করে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলেছেন, এই আইনের মাধ্যমে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন হলে তা ভালো ফল বয়ে আনবে না। আইনে সার্চ কমিটির মাধ্যমে যে প্রক্রিয়ায় নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে তা রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সন্দেহ-অবিশ্বাস তৈরি করবে। প্রেসিডেন্টের কাছে সার্চ কমিটির প্রস্তাবিত নামগুলো জনসম্মুখে প্রকাশ করা না হলে এই প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন থাকবে। এ অবস্থায় প্রস্তাবিত আইনে বেশকিছু সংশোধনী আনার পরামর্শ দিয়েছে নাগরিক সমাজ।

এবার ভারতের কয়েকটি খবরের বিস্তারিত:

জাঠ ভোটব্যাংক বাঁচাতে অখিলেশের সঙ্গী জয়ন্ত চৌধুরিকে জোটের টোপ বিজেপির, প্রত্যাখ্যান আর এল ডি নেতার-সংবাদ প্রতিদিন

প্রার্থী তালিকা নিয়ে যতই অসন্তোষ থাক। যতই অখিলেশের দলের প্রতি ক্ষুব্ধ হোক জাঠেরা। তাঁদের নিজস্ব দল আরএলডি অখিলেশের সঙ্গেই থাকার সিদ্ধান্ত নিল। আরএলডি নেতা জয়ন্ত চৌধুরি সাফ জানিয়ে দিলেন, বিজেপি তাঁকে যে আমন্ত্রণ পাঠাচ্ছে, সেটা তাঁকে না পাঠিয়ে পাঠানো হোক সেই ৭০০ কৃষকের বাড়িতে, যাঁদের ঘর ভেঙেছে বিজেপি। আসলে, সপ্তাহখানেক আগে পর্যন্ত পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে বিজেপি বিরোধী হাওয়া একপ্রকার তুঙ্গে ছিল। কিন্তু ভোটের প্রার্থী তালিকা সামনে আসতেই হিসেবনিকেশ উলটে যেতে শুরু করেছে।সপার প্রধান অখিলেশ যাদবের প্রার্থী নির্বাচনের জন্যই পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে, বিশেষ করে মেরঠের মতো জেলায় জাঠ-মুসলিম ভোটের সমীকরণ বিগড়ে গিয়েছে। মেরঠের আওতায় থাকা সাতটি বিধানসভা আসনের মধ্যে চারটিতে মুসলিম প্রার্থী দেওয়ার পর থেকেই সেখানকার জাঠদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে।

কমিউনিস্টরা কাঁকড়ার মতো! বুদ্ধদেবের পদ্ম-সম্মান প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ-আনন্দবাজার

বৃহস্পতিবার সিপিএম নেতার পদ্ম সম্মান প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে বিজেপি-র সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ কটাক্ষ করেছেন সিপিএমকে।পদ্মভূষণ প্রত্যাখ্যান করেছেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতর অব্যাহত। বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে বিজেপি-র সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ কটাক্ষ করেছেন সিপিএমকে। দিলীপ বলেন, ‘‘কমিউনিস্টরা কাঁকড়ার মতো। বুদ্ধবাবু আগে এই নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেননি। দল বলার পর তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’প্রসঙ্গত, তিনি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু প্রধানমন্ত্রী না হওয়ার বিষয়টি তুলে বলেন, ‘‘এরা জ্যোতিবাবুকে প্রধানমন্ত্রী হতে দেয়নি। দিলীপের এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে সিপিএম। সিপিএম নেতা শমীক লাহিড়ি বলেন, ‘‘দিলীপবাবু কাগজ পড়েন না। ইতিহাসও জানেন।

‌হু’র মুখে সেই একই বুলি, ‘এখনই শেষ হচ্ছে না অতিমারি’-আজকাল

যবে থেকে করোনা অতিমারি দেখা দিয়েছে, তবে থেকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আশঙ্কার কথা শুনিয়েই যাচ্ছে। কবে শেষ হবে অতিমারি? সদুত্তর দেওয়া তো দূর অস্ত, সোমবার ফের ভয় ধরিয়ে দেওয়ার মতো তথ্য প্রকাশ্য এনেছে হু। বলেছে, বিশ্ব গত সপ্তাহে গড়ে প্রতি তিন সেকেন্ডে ১০০ জন আক্রান্ত হয়েছে। তাই অতিমারি এখনই শেষ হচ্ছে না–সেই একই কথা আরও একবার বলেছে হু। সংস্থার প্রধান বলেছেন, ‘এটা মনে করাটা বোকামি যে ওমিক্রনেই শেষ হবে করোনা।’#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/২৭

ট্যাগ