জানুয়ারি ২৮, ২০২২ ১৫:৩৮ Asia/Dhaka

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা! সালাম ও শুভেচ্ছা নিন। আশা করি আপনারা যে যেখানেই আছেন ভালো ও সুস্থ আছেন। ২৮ জানুয়ারি শুক্রবারের কথাবার্তার আসরে আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি আমি নাসির মাহমুদ। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। তারপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবর বিস্তারিত তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আপনাদের সঙ্গ যথারীতি কামনা করছি।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • বেড়েছে শীতের তীব্রতা, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কুড়িগ্রামে: ইত্তেফাক
  • ১৫০ কোটি টাকার কাজ, সড়কে বালির বদলে মাটি ব্যবহারের অভিযোগ: ইত্তেফাক
  • ২০ বছরের ছদ্মবেশের পর ফাঁসির আসামি ধরা: প্রথম আলো
  • 'জনগণের ভোট নয়, ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করতে চায় বিএনপি': বাংলাদেশ প্রতিদিন
  • করোনা পরিস্থিতিতে ভিন্ন কৌশল:ঘরোয়া কর্মসূচিতে যাচ্ছে বিএনপি: যুগান্তর
  • বন্ধ নয় তবে খোলা নেই:বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ শ্রমবাজার হারাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ: মানব জমিন

ভারতের শিরোনাম:

  • দিল্লিতে গণধর্ষিতার মাথা মুড়িয়ে, কালি মাখিয়ে উল্লাসের ঘটনায় গ্রেফতার ৭ মহিলা: আনন্দবাজার পত্রিকা
  • এমন রাজ্যপালের দেখা ভূ-ভারতে মিলবে না' তৃণমূলের মুখপত্রে তীব্র কটাক্ষ ধনখড়কে: আজকাল

শ্রোতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবার কয়েকটি খবর বিস্তারিত তুলে ধরছি। প্রথমেই ঢাকার পত্রিকার খবর।

বেড়েছে শীতের তীব্রতা, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কুড়িগ্রামে: ইত্তেফাক এই খবরে বিস্তারিত জানায়, হিমালয় পাদদেশীয় জেলা কুড়িগ্রামে মাঝারী শৈতপ্রবাহ বয়ে যাওয়ায় তাপমাত্রার পারদ নেমেছে ৬ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা সারাদেশের রেকর্ডকৃত তাপমাত্রার মধ্যে সর্বনিম্ন। আজ কুড়িগ্রামের রাজারহাট আবহাওয়া পর্যবেক্ষনাগারে চলতি মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

কুড়িগ্রামে মাঝারী শৈতপ্রবাহ

এই শৈতপ্রবাহ আরও দুই/তিনদিন অব্যাহত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলের পর থেকে শৈতপ্রবাহের সঙ্গে উত্তরীয় হিমেল হাওয়ায় তাপমাত্রা নিম্নগামী হতে শুরু করে। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত প্রকৃতি কুয়াশাচ্ছন্ন থাকার পর দুপুরে আকাশে কিছু সময়ের জন্য সূর্য দেখা গেলেও তাতে উষ্ণতা ছিলো না। তার সঙ্গে উত্তরীয় হিমেল হাওয়ার প্রকোপে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে।    

১৫০ কোটি টাকার কাজ, সড়কে বালির বদলে মাটি ব্যবহারের অভিযোগ:  ইত্তেফাকের এই খবরে বলা হয়েছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা-মুজিবনগর সড়কের ১৫০ কোটি টাকার কাজে রাস্তা নির্মাণের প্রথমে দুপাশের বাড়তি ৩ ফুট প্রসস্থের সাববেজ তৈরির জন্য বালি ও খোয়া মিশ্রণের বদলে দিচ্ছে বালি মাটি ও খোয়া। এ অভিযোগের ঘটনাস্থল তদন্ত করেছে দামুড়হুদা উপজেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার দিকে দর্শনা-মুজিবনগর সড়ক দর্শনা গোপালখালী ব্রিজের ও মুনভাটার মাঝামাঝি স্থানের রাস্তার সাববেজ কাজ তদন্ত করেন দামুড়হুদা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট সুদীপ্ত কুমার সিংহ।

সড়কে বালির বদলে মাটি

দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ তাসলিমা আক্তারের তত্ত্বাবধানে সরেজমিন তদন্তে ঘটনাস্থলে রাস্তার সাববেজের বালি মাটি ও খোয়ার মিশ্রণ সংগ্রহ করে জনসম্মুখে সিলগালা করে নিয়ে যান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা এলজিইডি এর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আক্তারুজ্জামান, কার্য-সহকারী রমজান আলী, চুয়াডাঙ্গা রোড এ্যান্ড হাইওয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. আজিজ, সাইড ইঞ্জিনিয়ার মো. রফিকুল ইসলাম। তদন্তে আসা চুয়াডাঙ্গা এলজিইডি এর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আক্তারুজ্জামান বলেন, রাস্তার  ঘটনাস্থলে এসে প্রাথমিকভাবে ওই স্থানে মাটি  ও খোয়ায় মিশ্রণ বলে মনে হচ্ছে। তবে পরীক্ষা শেষে সঠিত তথ্য পাওয়া যাবে।

২০ বছরের ছদ্মবেশের পর ফাঁসির আসামি ধরা: প্রথম আলোর খবর।

র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার সৈয়দ আহমেদ

তিনি কখনো উদ্বাস্তু, কখনো বাবুর্চি, কখনোবা নিরাপত্তাকর্মীর ছদ্মবেশে ঘুরে বেড়িয়েছেন চট্টগ্রাম নগরে। তাঁর নাম সৈয়দ আহমেদ। তিনি চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় আলোচিত ব্যবসায়ী জানে আলম হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি। ২০ বছর ধরে তিনি পলাতক ছিলেন। অবশেষ ধরা পড়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নগরের আকবর শাহ থানা এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। সৈয়দ আহমেদ জানিয়েছেন, জানে আলম হত্যাকাণ্ডের পরপরই তিনি চট্টগ্রামের বাঁশখালীর ডাকাত দলের সঙ্গে সমুদ্র পাড়ি দিয়ে আত্মগোপন করেন। প্রথম চার থেকে পাঁচ বছর সৈয়দ আহমেদ তাঁর পরিবার ও আত্মীয়স্বজন ছেড়ে বাঁশখালী, আনোয়ারা, কুতুবদিয়া, পেকুয়ায়ার সাগর কূলবর্তী এলাকায় থাকতে শুরু করেন। পরে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড এলাকায় উদ্বাস্তু হিসেবে অবস্থান করেন। সৈয়দ আহমেদ একপর্যায়ে জঙ্গল ছলিমপুরে মশিউর বাহিনীর প্রধান মশিউরের ছত্রচ্ছায়া ও সহযোগিতায় সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। র‍্যাব জানায়, পলাতক থাকাকালে সৈয়দ আহমেদ দুটি ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র বানান। তিনি তাঁর পরিবার-পরিজন-আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রাখেন। ফলে তাঁকে কোনোভাবেই শনাক্ত করা যাচ্ছিল না। গ্রেপ্তার সৈয়দ আহমেদকে লোহাগাড়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান র‍্যাব কর্মকর্তা নুরুল আবসার।

'জনগণের ভোট নয়, ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করতে চায় বিএনপি': ওবায়দুল কাদের, বাংলাদেশ প্রতিদিন

ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে গণমানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশন আইন এক অনন্য মাইল ফলক হিসেবে বিবেচিত হবে। এই আইন প্রণয়নের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে। আজ শুক্রবার সকালে তার বাসভবনে ব্রিফিংকালে তিনি একথা বলেন। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারী) জাতীয় সংসদে জনগণের বহুল প্রত্যাশিত 'প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল' পাশ হওয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া সংবিধানের অভিপ্রায় অনুযায়ী দেশের পঞ্চাশ বছর পর বিলটি পাশ হওয়ায় সংসদ নেতাসহ জাতীয় সংসদের সকল সদস্যদের প্রতি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান ওবায়দুল কাদের।

করোনা পরিস্থিতিতে ভিন্ন কৌশল: ঘরোয়া কর্মসূচিতে যাচ্ছে বিএনপি

হবে ধারাবাহিক সভা-সেমিনার, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ইস্যুসহ সরকারের নানা অন্যায়-অনিয়ম-দুর্নীতি তুলে ধরা হবে: যুগান্তর আরও জানিয়েছে, করোনা পরিস্থিতিতে কর্মসূচি নিয়ে ভিন্ন কৌশল নিয়েছে বিএনপি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সভা-সেমিনারের মতো ঘরোয়া কর্মসূচি দিয়ে সক্রিয় থাকবে দলটি। এসব কর্মসূচির মাধ্যমে সরকারের নানা অন্যায়, অনিয়ম, দুর্নীতি তুলে ধরা হবে এবং খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবি জানানো হবে।

বিএনপি'র নিউজ ব্রিফিং

সোমবার জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া শিগগিরই সংবাদ সম্মেলন করে আর্থিক ও ব্যাংক খাতের নানা দুর্নীতি সম্পর্কে জাতিকে জানানোর সিদ্ধান্ত হয়। বিএনপির একাধিক নীতিনির্ধারক এসব তথ্য জানিয়েছেন। করোনা পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধ জারি রাজনৈতিক কারণে করা হয়েছে বলে মনে করছে বিএনপি নেতারা। তাই এবার সীমিত পরিসরে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড না করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি। বরং জেলার সমাবেশকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে যে স্পিরিট তৈরি হয়েছে তা ধরে রাখতে চায়। এজন্য নানা ইস্যুতে সভা-সেমিনার করবে দলটি, যা ধারাবাহিকভাবে করা হবে। গুম-খুন নিয়েও বেশ কয়েকটি ঘরোয়া কর্মসূচি দেবে দলটি।

বন্ধ নয় তবে খোলা নেই:বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ শ্রমবাজার হারাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ: মানব জমিন

মানব জমিন

রেমিট্যান্স পাঠানোর দিক থেকে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) প্রবাসীরা। কারণ সৌদি আরবের পর বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শ্রমবাজার মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটি। শিক্ষিত, কর্মঠ ও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বাঙালি কর্মীদের চাহিদাও বেশ ভালো এখানে। অথচ প্রায় এক যুগ ধরে দেশটি বাংলাদেশিদের শ্রমিক ভিসা দেয়া বন্ধ রেখেছে। এই সময়ে অন্য দেশগুলো ক্রমান্বয়ে শ্রমিক পাঠানোয় বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশটির শ্রমবাজার ধীরে ধীরে হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে।

এবারে ভারতের কটি খবর বিস্তারিত:

দিল্লিতে গণধর্ষিতার মাথা মুড়িয়ে, কালি মাখিয়ে উল্লাসের ঘটনায় গ্রেফতার ৭ মহিলা: আনন্দবাজার পত্রিকা

আনন্দবাজার পত্রিকা

আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে আরও এসেছে, সাত মহিলাকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি দুই অপ্রাপ্তবয়স্ককেও আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে দিল্লি পুলিশ। অধরাদের সন্ধানে মোতায়েন রয়েছে পাঁচটি দল। পূর্ব দিল্লির কস্তুরবা নগরে প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন গণধর্ষিতা তরুণীকে অপহরণ করে, তাঁর চুল কেটে, মুখে কালি মাখিয়ে প্রকাশ্য রাস্তায় হাঁটানোর ঘটনায় তোলপাড় দেশ। ঘটনার তদন্তে নেমে ন’জনকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে সাত জন মহিলা। পাশাপাশি দু’জন অপ্রাপ্তবয়স্ককেও আটক করেছে পুলিশ। দিল্লি মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন স্বাতী মালিওয়ালের টুইট করা ভিডিয়োয় এই ঘটনার কথা জানাজানি হয়। স্বাতী দিল্লি পুলিশকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত করে রিপোর্ট দিতে বলেছিলেন। তার পরই এই গ্রেফতার।

এমন রাজ্যপালের দেখা ভূ-ভারতে মিলবে না' তৃণমূলের মুখপত্রে তীব্র কটাক্ষ ধনখড়কে: 

আজকাল জানিয়েছে, এবার তৃণমূলের মুখপত্রে তীব্র কটাক্ষ রাজ্যপালকে। 

রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়

গানের ছন্দ মিলিয়ে সরাসরি কটাক্ষ করা হয়েছে তাঁকে। লেখা হয়েছে, ‘দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের বিখ্যাত গান এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি...। দরকার শুধু সামান্য বদল। এমন রাজ্যপালের দেখা ভূ-ভারতে মিলবে না।’ জাগো বাংলা'য় জগদীপ ধনখড়ের সমালোচনা করে লেখা হয়েছে, ‘স্বাধীনতার পর বাংলায় অনেক রাজ্যপাল এসেছেন। বিতর্কেও জড়িয়েছেন। কিন্তু তাঁরা কখনই সাংবিধানিক গণ্ডি লঙ্ঘন করেননি। ভুলেও যাননি তাঁদের পদটা আসলে আলঙ্কারিক। তাঁরা সাংবিধানিকভাবে শীর্ষে থাকলেও আসলে ক্ষমতা রয়েছে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের হাতে। তাঁদের সিদ্ধান্তকে তিনি সাংবিধানিক রূপ দেন। কিন্তু রাজ্যের বর্তমান রাজ্যপাল মনে করেন তিনি বোধহয় রাজ্যের শেষ কথা।’সেই সঙ্গে সরাসরি রাজ্যপালকে প্রশ্ন করা হয়েছে, ‘নতুন নীতিশাস্ত্র তৈরি করার আপনি কে?’

পার্সটুডে/এনএম/২৮

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

ট্যাগ