ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২২ ১৭:০৩ Asia/Dhaka

শ্রোতা ভাই-বোন ও বন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। আশা করছি সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। আজকের আসরে আপনাদের সঙ্গে রয়েছি আমি নাসির মাহমুদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: প্রত্যেক আসরের মতো আজও অনুষ্ঠানের শুরুতেই আমি একটি হাদিস শোনাতে চাই মহানবী (সা.) বলেন, 'ইবাদতের সাতটি অঙ্গ। তন্মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ হলো হালাল রুজি অর্জন করা।'

আকতার জাহান: আমরা সবাই হালাল রুজি অর্জনের চেষ্টা করব- এ প্রত্যাশায় নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে।

আসরের প্রথম মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার জগন্নাথদী থেকে। আর পাঠিয়েছেন ওয়ার্ল্ড রেডিও লিসেনার্স ক্লাব এম, এম, গোলাম সারওয়ার।

তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগ আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে যথেষ্ট সমৃদ্ধ। আমি এটা হলফ করে বলতে পারি। আর রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগ যেভাবে অনুষ্ঠান প্রচার করে আসছে তাতে আমি রীতিমত বিমুগ্ধ। বরাবরই শ্রোতানন্দিত অনুষ্ঠানগুলো আমাদের মতো পাগলপারা শ্রোতাদের কাছে অসম্ভব ভালো লাগে। রেডিও তেহরানকে অন্তর থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই এই জন্য যে, রেডিও তেহরান বিশ্বকে যেভাবে যা দিয়ে আসছে, বোধকরি অন্য কোনো বেতার তার কিঞ্চিত দিতে পারেনি।"

নাসির মাহমুদ: রেডিও তেহরানে সম্পর্কে চমৎকার মূল্যায়নের জন্য গোলাম সারওয়ার ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করি নিয়মিত মেইল পাঠাবেন।

বাংলাদেশের পর এবার ভারত থেকে আসা একটি মেইল ওপেন করছি। এটি পাঠিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাটের সিনিয়র শ্রোতা বিধান চন্দ্র সান্যাল। এ মেইলে তিনি 'রেডিও তেহরান' শিরোনামে একটি কবিতা লেখার প্রয়োস পেয়েছেন। কবিতাটি এ রকম:

রেডিও তেহরানের সংবাদ

জাগছে আজি- ভাঙছে মিথ্যাচার,

ধনী-দরিদ্রে নেইকো ভেদ---

উচ্চ-নীচে করছে একই বিচার।

শক্তিধর কেউ কাছে এলেও

কাঁপছে না তার বুক,

সত্যের পথে সুন্দরের বেশে

সে যেন সত্যি অপরূপ!

রংধনু শ্রোতাদের ঘরের সম্পদ 

ভবিষ্যতের অনন্যা

অন্য অনুষ্ঠানগুলোও জনপ্রিয় হোক

রংধনু ওদের প্রেরণা।

আশরাফুর রহমান: রেডিও তেহরানের সংবাদ ও রংধনু আসর সম্পর্কে কবিতাটি লিখার জন্য বিধান চন্দ্র সান্যাল আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

বাংলাদেশের কুষ্টিয়ার খাদিমপুর বাজার থেকে মোখলেছুর রহমান পাঠিয়েছেন আসরের পরের মেইলটি।

রেডিও তেহরানের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাবিষয়ক অনুষ্ঠান স্বাস্থ্যকথা সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, "স্বাস্থ্য সংরক্ষণের জন্য প্রয়োজন সুচিকিৎসা। আর তাইতো রেডিও তেহরান শ্রোতাদের কথা মাথায় রেখে প্রতি বুধবার 'স্বাস্থ্যকথা' নামে একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে আসছে। এই অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ মানব দেহের যাবতীয় রোগ, তার প্রতিকার সম্পর্কে আলোচনা করে থাকেন এবং পরামর্শ দিয়ে থাকেন।  তাই আমি রেডিও তেহরানের অন্যান্য অনুষ্ঠানগুলোর সাথে সাথে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ক অনুষ্ঠান 'স্বাস্থ্য কথা' শুনতে কখনোই ভুল করি না। আপনারাও নিয়মিত রেডিও তেহরানের সম্প্রচারিত স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা  বিষয়ক অনুষ্ঠান 'স্বাস্থ্যকথা' শুনুন, সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন।"

আকতার জাহান: স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠানটি থেকে শ্রোতাবন্ধুরা উপকৃত হচ্ছেন জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। তো চিঠি লিখার জন্য মোখলেছুর রহমান ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

বাংলাদেশের কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার শাপলা শর্টওয়েভ লিসেনার্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। প্রিয়জন সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, "৩১ জানুয়ারির প্রিয়জন শুনলাম। অনুষ্ঠানে ফরিদপুরের সিনিয়র শ্রোতা জনাব আফজাল আলী খানের সাক্ষাৎকারে অন্যান্য বেতারের সাথে রেডিও তেহরানের মূল পার্থক্য এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্পর্কে তার চমৎকার মূল্যায়ন শুনে আমি যারপরনাই মুগ্ধ হয়েছি। তিনি যেন আমার মনের কথাগুলোই তার জবানিতে তুলে ধরেছেন। তাঁকে আমার শ্রদ্ধাসহ ধন্যবাদ জানাচ্ছি।"  

চিঠি পর্বে জামালপুরের হারুন অর রশীদ, কোচবিহারের শ্রোতাবোন মনিষা রায়সহ আরও কয়েকজনের চিঠি ভালো লেগেছে বলে আব্দুল কুদ্দুস ভাই জানিয়েছেন।

নাসির মাহমুদ: প্রিয়জন অনুষ্ঠানটি মনোযোগ দিয়ে শোনার পর একেকজন শ্রোতার চিঠি সম্পর্কে সুন্দরভাবে মতামত তুলে ধরায় আব্দুল কুদ্দুস ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আসরের পরের মেইলটি পাঠিয়েছেন বিধান চন্দ্র টিকাদার। তিনি গোপালগঞ্জ ইন্টারন্যাশনাল রেডিও ক্লাবের সভাপতি।

আশরাফুর রহমান: এ শ্রোতাবন্ধু একসময় আমাদের কাছে নিয়মিত চিঠি লিখতেন। অবশ্য চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ৭টি ইমেইল পাঠিয়ে তিনি আবারো চিঠি লিখা শুরু করেছেন।

নাসির মাহমুদ: নতুন করে লিখা শুরু করায় বিধান দা'কে ধন্যবাদ জানিয়ে আমি তার চিঠি থেকে কিছু অংশ পড়ে শোনাচ্ছি। তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগের অসংখ্য শ্রোতার মধ্যে আমিও একজন। নিয়মিত অনুষ্ঠান শুনছি, বিশ্বসংবাদসহ সকল অনুষ্ঠানই খুব ভালো লাগছে। ঢাকা ও কলকাতা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সংবাদ পত্রের সংবাদ শিরোনাম ও পর্যালোচনাভিত্তিক অনুষ্ঠান কথাবার্তা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠান। দৃষ্টিপাত, স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠানটিও অনেক গুরুত্ববহ।"

এই শ্রোতাবন্ধু আরও লিখেছেন, "২৪ জানুয়ারি প্রচারিত প্রিয়জন অনুষ্ঠানটিতে শ্রোতাদের সুন্দর মতামত সম্বলিত লেখাগুলোর বক্তব্য শুনে খুবই ভালো লেগেছে। আরও বেশি ভালো লেগেছে বন্ধুবর আব্দুল কুদ্দুস মাস্টার ভাইয়ের সাক্ষাৎকারটি।"

আকতার জাহান:  বিধান চন্দ্র টিকাদারের এ চিঠিটি ওয়েবসাইটে প্রকাশের পর প্রিয়জনের ফেসবুক মেসেঞ্জার গ্রুপে এক প্রতিক্রিয়ায় টাঙ্গাইলের সিনিয়র শ্রোতা আবু তাহের লিখেছেন, "বিধান চন্দ্র টিকাদার দাদার রেডিও তেহরান বাংলায় নিয়মিত উপস্থিতি এবং সুন্দর লেখা পাঠানোর জন্য কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। সেই সাথে রেডিও তেহরান বাংলাকে সমৃদ্ধ করতে সবধরনের সহযোগিতা করবেন বলে বিশ্বাস রাখি। পুরোনো দিনের অভিজ্ঞতাগুলো নিশ্চয়ই আমাদের সাথে শেয়ার করবেন। তুলে ধরবেন ডি-এক্সিং জগতের খুটিনাটি বিষয়গুলিও। আমার ধারণা বিধান দাদা অতি শীঘ্রই মাসিক শ্রেষ্ঠ শ্রোতার শিরোপা অর্জন করবেন।"

আশরাফুর রহমান: আবু তাদের ভাই যেসব প্রত্যাশা করেছেন বিধান চন্দ্র টিকাদার নিশ্চয়ই তা পূরণে উদ্যোগী হবেন। তো চিঠির জন্য বিধান চন্দ্র টিকাদার আর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য আবু তাহের ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আমরা কথা বলব কুষ্টিয়ার সিনিয়র শ্রোতা মোখলেছুর রহমানের সঙ্গে। 

আশরাফুর রহমান: আসরের পরের মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলার পূর্ব নলছিয়া থেকে। আর পাঠিয়েছেন হারুন অর রশীদ।

শীতের সকালে কুয়াশা ভেদ করে ওঠা মিহি রোদের মিষ্টি শুভেচ্ছা জানানোর পর তিনি লিখেছেন, "মিথ্যে, মরীচিকা আর অবক্ষয়ের পৃথিবীতে এখনো শান্তির সুবাতাস হয়ে পারস্য উপসাগরের বুক চিরে স্বগর্বে মহীরুহ হয়ে টিকে রয়েছে রেডিও তেহরান। ইথার সম্প্রচারের ধারাবাহিকতায় অনন্য, অতুলনীয় এবং সময়োপযোগী  নানা অনুষ্ঠান প্রচার করে শ্রোতাদের মনে আসন করে নিয়েছে যুগ যুগ ধরে। তেমনই কালজয়ী এক অনুষ্ঠানের নাম 'রংধনু আসর'। সম্প্রতি রংধনু আসরে প্রচারিত হয়েছে 'বিশ্বনবীর শিশুপ্রীতি' শিরোনামে একটি চমৎকার অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটিতে ফ্রান্সের বিখ্যাত মনীষী সিদুয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন চিন্তাবিদদের লেখার উদ্ধৃতির মাধ্যমে চমৎকারভাবে ফুটে ওঠেছে শিশুদের প্রতি হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর আন্তরিকতা, মমতা ও দয়াশীলতার অনুপম নিদর্শন। চমৎকারভাবে অনুষ্ঠানটিরর জন্য রংধনু সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানাই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।"

নাসির মাহমুদ: বিশ্বনবীর শিশুপ্রীতি সম্পর্কে প্রচারিত রংধনু আসরটি আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। মতামতসমৃদ্ধ চিঠিটির জন্য ভাই হারুন অর রশীদ আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

বাংলাদেশের মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে লেখা বেশকিছু ইমেইল দেখতে পাচ্ছি ইনবক্সে। এগুলো যারা পাঠিয়েছেন আমি তাদের পরিচয় তুলে ধরছি।

  • গোপালগঞ্জের ঘোড়াদাইড় থেকে ফয়সাল আহমেদ সিপন
  • নারায়ণগঞ্জের আলী সাহারদি থেকে এইচ এম তারেক ও সাঈফ আহমেদ উৎস
  • মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থানার ইমামপুর থেকে মারিয়া খানম মৌরি ও  ফারিয়া রহমান

আকতার জাহান: অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানানোয় আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আসরের পরের মেইলটি এসেছে ভারতের আসামের বড়পেটা জেলার কান্দুনিয়া থেকে। আর পাঠিয়েছেন সকাল-সন্ধ্যা রেডিও লিসেনার্স ক্লাবের সভাপতি আব্দুস সালাম সিদ্দিক।

তিনি ইমাম আলী (আ.)-এর জ্ঞান ও বিচক্ষণতা সম্পর্কে ২৭ জানুয়ারি তারিখে রংধনু আসরে প্রচারিত 'তিন মুসাফির ও আট রুটি' শীর্ষক সত্য ঘটনাটির প্রশংসা করেছেন। এরপর লিখেছেন, "আজকের রংধনু আসরের আরেকটি আকর্ষণ ছিল পাকিস্তানের এক ছোট্ট বন্ধু গোলাম মোস্তফা কাদরীর কণ্ঠে হজরত আলীকে নিয়ে অসাধারণ গজলটি। সেইসাথে বাংলাদেশের ছোট্ট খুকী জাহরা জেরিন নওরোজের সাক্ষাৎকারটি আমাকে মুগ্ধ করেছে।"

আশরাফুর রহমান: রংধুন আসর সম্পর্কে সম্পর্কে মতামত জানানোর জন্য আব্দুস সালাম সিদ্দিকী ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আসরের শেষ চিঠিটি এসেছে বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ শহর থেকে। আর পাঠিয়েছেন শরিফা আক্তার পান্না।

তিনি লিখেছেন, ২৫ জানুয়ারি প্রচারিত প্রতিটিই আমাদের খুব ভালো লেগেছে, তবে কিছু কারণে অধিক ভালো লেগেছে দর্পন। ওই দিন দর্পনের বিষয় ছিল আফগানিস্তানে দায়েশের উত্থান, আক্রমণ, হামলা ও নিরাপত্তার হুমকি। এতে পাকিস্তানের উগ্র ওহাবি-সালাফি গোষ্ঠীর প্রভাব বিস্তারের কারণ ও তাদের প্রতি কয়েকটি আরব দেশের পৃষ্ঠপোষকতার বিষয়টিও তুলে ধরা হয়।

নাসির মাহমুদ: দর্পন অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে মতামত জানানোয় বোন শরিফা আক্তার পান্না, আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। তো বন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আপনাদের জন্য রয়েছে একটি বাংলা কাওয়ালি। এটি গেয়েছেন হাসান শিহাবী ও তার দল।

আকতার জাহান:  তো শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা কাওয়ালিটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদাই নিচ্ছি প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে। #

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২২

 

 

ট্যাগ