মার্চ ০৮, ২০২২ ২০:২৯ Asia/Dhaka

শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চিঠিপত্রের সাপ্তাহিক আসর 'প্রিয়জন'। আশা করছি সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। আজকের আসরে আপনাদের সঙ্গে রয়েছি আমি নাসির মাহমুদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: প্রত্যেক আসরের মতো আজও অনুষ্ঠানের শুরুতেই আমি একটি হাদিস শোনাতে চাই মহানবী (সা.) বলেছেন : যে ব্যক্তি ইচ্ছামতো খায়, ইচ্ছামতো পরিধান করে আর ইচ্ছামতো বাহনে আরোহণ করে, আল্লাহ তার ওপর অনুগ্রহের দৃষ্টি ফেলেন না যতক্ষণ না সে তা হারায় কিংবা বর্জন করে।

আকতার জাহান: আমরা সবাই আল্লাহর অনুগ্রহ লাভ করার জন্য তাঁর নির্দেশনাগুলো মেনে চলার চেষ্টা করব- এ প্রত্যাশা রেখে নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে।

আসরের প্রথম মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার মধুখালী থানার জগন্নাথদী গ্রাম থেকে। আর পাঠিয়েছেন ওয়ার্ল্ড রেডিও লিসেনার্স ক্লাবের সভাপতি এম, এম, গোলাম সারওয়ার।

তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরান সর্বমহলে প্রশংসিত একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামী প্রচার মাধ্যম। তেলাওয়াতের মাধ্যমে যার দৈনন্দিন অধিবেশনের শুভ সূচনা হয়। এর গ্রহণযোগ্যতা, জনপ্রিয়তা ও বস্তুনিষ্ঠতার কোনো জুড়ি নেই এবং প্রশ্নও নেই। রেডিও তেহরানের অসম্ভব শ্রোতানন্দিত একটি অনুষ্ঠান প্রিয়জন। শ্রোতাদের চিঠিপত্রের এই অনুষ্ঠানটি সত্যিকারার্থে আকাশচুম্বী শ্রোতাপ্রিয়তার স্বীকৃতি পেয়েছে। এখানে শ্রোতাদের মতামত, প্রস্তাব, বিভিন্ন প্রশ্ন, গঠনমূলক সমালোচনা ইত্যাদির সমাহারে ভরপুর।" এছাড়া রংধনু আসর অনুষ্ঠানও একটি জনপ্রিয় অনুষ্ঠান বলে তিনি চিঠিতে উল্লেখ করেছেন।

নাসির মাহমুদ: প্রিয়জন ও রংধনু আসর সম্পর্কে আপনার অভিমত জেনে ভালো লাগল। তো চিঠি লিখার জন্য গোলাম সারোয়ার ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের নেশামুক্ত বেতার শ্রোতা সংঘের সভাপতি মোঃ ওসমান গনি পাঠিয়েছেন পরের মেইলটি। তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরান আমার প্রাণ। ১৯৯৬ সাল থেকে আমি লেখালেখি করি এই বেতারে। সে সময় নিয়মিত শুনতাম খুব কষ্ট করে রেডিওর টিউন ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে। সম্প্রতি কুড়িগ্রামের সিনিয়র শ্রোতাবন্ধু আবদুল কুদ্দুস মাস্টার-এর অনুরোধ ফের শুনতে শুরু করেছি। এখন অনলাইনে অনুষ্ঠান শুনছি অনেক সহজে।"

আশরাফুর রহমান: ভাই ওসমান গনি, নতুন করে অনুষ্ঠান শুনতে শুরু করায় আপনাকে এবং অনুষ্ঠান শুনতে উদ্বুদ্ধ করায় আবদুল কুদ্দুস মাস্টার ভাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার কাজীপাড়া থেকে মুন্সি দরুদ পাঠিয়েছেন দুটি মেইল। একটিতে তিনি লিখেছেন, "২৪ জানুয়ারি সোমবার চিঠিপত্রর আসর প্রিয়জন শুনে ভালো লেগেছে। পশ্চিমবঙ্গের শ্রোতাদের চিঠি মন কেড়েছে।‌‌ ১৩ জানুয়ারি রংধনু আসরে প্রচারিত "সরল উট মালিক" গল্পটি দুর্দান্ত লাগল। এছাড়া বিশ্ব নবীর শিশুপ্রীতি সম্পর্কে প্রচারিত অনুষ্ঠানটিও ছিল চমৎকার। শিক্ষণীয় অনুষ্ঠান উপস্থাপন করার জন্য রেডিও তেহরানকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি"।

আকতার জাহান: ভাই মুন্সি দরুদ, প্রিয়জন ও রংধনু আসর সম্পর্কে মতামত জানানোর জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

নাসির মাহমুদ: বরিশাল সদরের কাশিপুর তৃণমূল বেতার শ্রোতা তথ্য ক্লাবের সভাপতি জিল্লুর রহমান জিল্লু পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি। রেডিও তেহরান সম্পর্কে তিনি একটি অন্তমিল কবিতা লিখার চেষ্টা করেছেন। কবিতাটি এরকম:

বস্তুনিষ্ঠ গণমাধ্যম রেডিও তেহরান,

ভালো লাগে রংধনু, ভালো লাগে প্রিয়জন।

ইসলামী মুখপাত্র সমাজের দর্পন,

সত্য কথা বলতে হয় নাকো কৃপণ।

সবার আগে সঠিক খবর পাই তেহরানে

বাংলা বিভাগ অতুলনীয়, পরিপূর্ণ গুনে-মানে।

আশরাফুর রহমান: কবিতার ছন্দে রেডিও তেহরান সম্পর্কে মূল্যায়ন করায় জিল্লু ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম জেলার ভূরুঙ্গামারী জেলার শাপলা শর্টওয়েভ লিসেনার্স ক্লাব থেকে এবারের মেইলটি পাঠিয়েছেন আব্দুল কুদ্দুস মাস্টার।

তিনি লিখেছেন, "৭ ফেব্রুয়ারির প্রিয়জন শুনে মন ভরে গেল। বিশেষ আঙ্গিকে সাজানো এই পর্বটি ছিল একটি বৈচিত্রময় প্রিয়জন। মুর্শিদাবাদ থেকে নাজিম উদ্দীন ভাইয়ের চিঠিতে রেডিও তেহরানের ২০২১ সালের শ্রোতাবান্ধব সব কর্মসূচির যৌক্তিক ও যথার্থ মূল্যায়ন ভীষণ ভালো লেগেছে। ২০২১ সালের বার্ষিক শ্রেষ্ঠ শ্রোতার শিরোপা অর্জনকারী শ্রোতাবন্ধু শাহাদত হোসেন ও বিধান চন্দ্র স্যানাল-এর অনুভূতি ছিল চমৎকার ও গঠনমূলক। এছাড়া, কুষ্টিয়ার বন্ধু মোখলেছুর রহমান ও আসামের আব্দুস সালাম সিদ্দিক ভাইয়ের চিঠি প্রেরণা যুগিয়েছে। সাক্ষাৎকার পর্বে পশ্চিম বঙ্গের হাওড়া থেকে শ্রোতাবোন ডা. সাহানা হাসানের রেডিও তেহরান শোনার অনুভূতি চমৎকার লেগেছে।

আকতার জাহান: প্রিয়জন অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে চমৎকার মতামতের জন্য আবদুল কুদ্দুস ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ভারতের আসামের বড়পেটা জেলার কান্দুলিয়া থেকে আবদুস সালাম সিদ্দিক পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি।

তিনি লিখেছেন, "পারস্য উপসাগর থেকে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত প্রতি ঘরে ঘরে রেডিও তেহরানের বার্তা পৌঁছে দেবার যে শ্লোগান নিয়ে আজ চল্লিশ বছর আইআরআইবি বাংলা বিভাগের যাত্রা শুরু হয়েছিল তা আজ মহিরুহে পরিণত হতে যাচ্ছে।  যেদিন থেকে রেডিও তেহরানকে প্রথম আবিষ্কার করেছিলাম সেদিন থেকেই রেডিও তেহরানকে একটি আদর্শ পরিবার, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় গণমাধ্যম হিসেবে হৃদয়ে স্থান দিয়েছিলাম এবং পরিবারের সবাই মিলে অনুষ্ঠান উপভোগ করছিলাম, এ ধারা আজ অব্যাহত রয়েছে। যতদিন আল্লাহতায়ালা জীবিত রাখবেন ততদিন রেডিও তেহরানের পাশেই থাকব ইনশাআল্লাহ।"

নাসির মাহমুদ: রেডিও তেহরানকে পছন্দের গণমাধ্যম হিসেবে বেছে নেওয়ায় আবদুস সালাম সিদ্দিক ভাই আপনাকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

বন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে রয়েছে বাংলাদেশের নওগাঁর শ্রোতা আলী আহম্মেদ আরিফের সাক্ষাৎকার।  

 

আশরাফুর রহমান: ভারতের ওড়িশার ভুবনেশ্বর থেকে আলোক দাস পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি। রেডিও তেহরানে এটাই তার প্রথম চিঠি।

রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠানের সকল কলাকুশলী ও শ্রোতাবন্ধুকে প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানানোর পর তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরান থেকে প্রচারিত বিশ্ব সংবাদসহ প্রতিটি অনুষ্ঠানই খুব ভালো লাগছে। ১৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার কথাবার্তা  আসরে  ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণ ভালো হয়েছে। এছাড়া রংধনু আসর অনুষ্ঠানটি খুবই উপভোগ্য ছিল। অনুষ্ঠানে প্রচারিত গল্পটি বেশ শিক্ষণীয় হয়েছে। এমন একটি অতুলনীয় ও সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দেয়ার জন্য রেডিও তেহরানকে অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।"

আকতার জাহান: প্রথমবারের মতো চিঠি ও মতামতের জন্য আলোক দাস আপনাকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আশা করি নিয়মিত লিখবেন।

বাংলাদেশের চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট থানার ছোট জামবাড়িয়া থেকে মুহাম্মদ আব্দুল হাকিম মিঞা পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, "বর্তমানে রেডিও তেহরান আমার কাছে অতি জনপ্রিয় বেতারমাধ্যম হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। সোস্যাল মিডিয়ার যুগে যেখানে আন্তর্জাতিক বেতারগুলো তাদের অনুষ্ঠান প্রচার সীমিত করছে বা বন্ধ করে দিচ্ছে সেখানে রেডিও তেহরান পারস্য উপসাগর থেকে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বাংলা ভাষাভাষী অগণিত শ্রোতার মনিকোঠায় স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছে।"

চিঠির শেষাংশে এ শ্রোতাবন্ধু একটি প্রশ্ন করেছেন। জানতে চেয়েছেন- ইরানে সরকারি চাকরিতে যোগদানের বয়সসীমা কত? চাকরি হতে অবসর গ্রহণের বয়সসীমাইবা কত?

নাসির মাহমুদ: ইরানে সরকারি চাকরিতে নিয়োগের সর্বনিম্ন বয়স ২০ বছর আর সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৪৫ বছর। চাকরি প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক পাস হলে ৩০ বছর বয়স, স্নাতক সম্মান পাস হলে ৩৫ বছর, স্নাতকোত্তর হলে ৪০ বছর আর পিএইচডি ডিগ্রিধারী হলে ৪৫ বছর পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে যোগদানের সুযোগ থাকে। আর অবসরের বয়সসীমা ৬০ বছর।

আশরাফুর রহমান:  আব্দুল হাকিম ভাইয়ের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার হলো। আশা করি তার কৌতুহল মিটেছে।

ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলার নওপাড়া শিমুলীয়া থেকে পরের মেইলটি পাঠিয়েছেন জাকির হোসেন। লিখেছেন, "আমি রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠানের জন্ম লগ্নের শ্রোতা। রেডিও তেহরান ছাড়াও বহির্বিশ্বের বাংলা অনুষ্ঠান নিয়মিত শুনতাম। কিন্তু রেডিও তেহরান আমার কাছে এক নম্বর। তার অনেকগুলো দিক আছে। রেডিও তেহরান সব শ্রোতাকে সমান গুরুত্ব দিয়ে থাকে। সেই কারণেই আমাদের গ্রামের রেডিওপ্রেমী অনেক মানুষ রেডিও তেহরান শোনে।"

আকতার জাহান: ভাই জাকির হোসেন আপনার গ্রামে যারা রেডিও তেহরান শোনেন তাদেরকে প্রিয়জনের পক্ষ থেকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আর আপনাকে জানাচ্ছি অসংখ্য ধন্যবাদ।

আসরের শেষ মেইলটি এসেছে কুষ্টিয়ার খাদিমপুর বাজার থেকে। আর পাঠিয়েছেন মোখলেছুর রহমান। 

২০ জানুয়ারি প্রচারিত রংধনু আসরের প্রশংসা করে তিনি লিখেছেন,  "বিশ্বনবীর শিশুপ্রীতি শীর্ষক অনুষ্ঠানের শুরুতেই একজন ইরানি শিশুর সুমধুর কণ্ঠে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত, শিশুদের সাথে নবীজীর খেলাধুলা, শিশুদের প্রতি নবীজীর আদর ভালোবাসা, ঈদের দিনে ইয়াতিম শিশুকে নতুন জামা-কাপড় দেওয়ার গল্প, শিশুদের সমাধিকার, শিশুদের সাথে বড়দের আচরণ প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সেই  সাথে "গল্প বলি শোন প্রিয় নবীজীর" সমবেত কণ্ঠে গান এবং ছোট্টবন্ধু আফিয়া আলমের উচ্চারণে রাসুলেপাক হযরত মুহাম্মাদ (সা.)-কে নিবেদিত কবিতাটি ভীষণ ভালো লেগেছে। চমৎকার, শিক্ষণীয় ও মনোগ্রাহী অনুষ্ঠানটি উপহার দেওয়ার জন্য রেডিও তেহরানকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।" 

নাসির মাহমুদ: রংধনু আসরটি আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। মতামতের জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, আমাদের হাতে আরও কিছু চিঠি আছে। কিন্তু সময়ের অভাবে সেগুলোর জবাব দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। যারা চিঠিগুলো পাঠিয়েছেন তারা হলেন-

  • মোঃ শাহাদত হোসেন, সহকারী অধ্যাপক, গুরুদয়াল সরকারি কলেজ কিশোরগঞ্জ, বাংলাদেশ।
  • ঢাকা সেনানিবাস থেকে সোহেল রানা হৃদয়
  • আফিয়া খানম জুলী গোপালগঞ্জের ঘোড়াদাইড় থেকে
  • বগুড়ার শেরপর থেকে সম্পদ কুমার পোদ্দার বলরাম
  • চাঁপাই নবাবগঞ্জের নাচোল থানার সোনামনসা থেকে মো. আবদুল মান্নান।
  • ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট থেকে বিধান চন্দ্র সান্যাল
  • এবং মুর্শিদাবাদের বারুইপাড়া থেকে মুহাম্মদ নাজিমউদ্দিন।

আশরাফুর রহমান:  চিঠি লিখার জন্য আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তো শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আপনাদের জন্য রয়েছে একটি হামদে এলাহি। এটির কথা ও সুর মহিউদ্দিন তাহেরের। আর গেয়েছেন তাওহীদুল ইসলাম ও জেসান তৌহিদ। 

আকতার জাহান: তো শ্রোতাবন্ধুরা, আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদাই নিচ্ছি প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে। 

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৮

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ