মে ২১, ২০২২ ১৮:২৪ Asia/Dhaka

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা: ২১ মে শনিবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি।

বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ শিরোনাম:

  • মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ ইইউর, সুষ্ঠু নির্বাচনে গুরুত্ব-প্রথম আলো
  • পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টায় সরকার-মানবজমিন
  • যুগপৎ’ আন্দোলনের পথেই বিএনপি-যুগান্তর
  • বৈশ্বিক সংকট কাটিয়ে উঠতে প্রধানমন্ত্রীর ৪ প্রস্তাব–ইত্তেফাক
  • এবার মাঙ্কিপক্স ছড়িয়ে পড়ছে দেশে দেশে-কালের কণ্ঠ
  • ফিনল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করল রাশিয়া-বাংলাদেশ প্রতিদিন

এবার ভারতের কয়েকটি খবরের শিরোনাম:

  • জ্ঞানবাপী মসজিদের ‘শিবলিঙ্গ’ নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য! গ্রেপ্তার হিন্দু কলেজের অধ্যাপক-সংবাদ প্রতিদিন
  • অসমের পরিস্থিতি এখনও ভয়াবহ, রেললাইনে আশ্রয় নিয়েছে ৫০০ পরিবার! -আজকাল
  • স্টক এক্সচেঞ্জ দুর্নীতি: দেশ জুড়ে সিবিআই তল্লাশি, নিশানায় একাধিক ব্রোকার সংস্থা- আনন্দবাজার পত্রিকা

এবার বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিস্তারিত

বৈশ্বিক সংকট কাটিয়ে উঠতে প্রধানমন্ত্রীর ৪ প্রস্তাব-ইত্তেফাক

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে বিপর্যস্ত সরবরাহ ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে গুরুত্ব দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন বাংলাদেশ সরকার প্রধান শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে বৈশ্বিক সংকট কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্যে ৪টি প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন তিনি।তিনি বলেন, ‘ইউক্রেনের যুদ্ধ এমন এক সময়ে এসেছে যখন বিশ্ব কোভিড-১৯ মহামারি থেকে উদ্ধার পেতে লড়াই করে চলেছে। এ যুদ্ধ ইতিমধ্যে নাজুক বিশ্ব অর্থনীতিতে গুরুতর চাপ যুক্ত করেছে।’

বিশ্ববজুড়ে আর্থিক এ সংকট মোকাবিলায় নিজেকে গ্লোবাল সাউথের একজন প্রতিনিধি হিসেবে তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি এই সংকটে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত লাখো মানুষের কণ্ঠস্বরকে এই টেবিলে পৌঁছে দিচ্ছি।’

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ ইইউর, সুষ্ঠু নির্বাচনে গুরুত্ব-প্রথম আলো

ইইউ

বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে বিষয়গুলো সুরাহার জন্য জবাবদিহি নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এই প্রেক্ষাপটে সংবিধান অনুযায়ী সবার মানবাধিকার সমুন্নত রাখার প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ থাকার বিষয়টি উল্লেখ করেছে বাংলাদেশ।শুক্রবার ব্রাসেলসে বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) যৌথ কমিশনের দশম বৈঠকে ইইউর পক্ষ থেকে এমন উদ্বেগ জানানো হয়।শুক্রবার ইইউর ওয়েবসাইটে প্রচারিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতিশীল নাগরিক সমাজকে গণতন্ত্রের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে অভিহিত করে আলোচনায় বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানায় ইইউ। বিশেষ করে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ নিয়ে সুনির্দিষ্ট প্রতিবেদন এবং এসব মানবাধিকার লঙ্ঘনের জবাবদিহি নিশ্চিতের ওপর জোর দিয়েছে তারা। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের (ডিএসএ) কাঠামোর কারণে অফ ও অনলাইনে নাগরিক মতামতের চর্চা এবং মতপ্রকাশের অধিকার সংকুচিত হওয়া নিয়ে ইইউ উদ্বেগ জানিয়েছে।আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের বাধ্যবাধকতা অনুসরণের পাশাপাশি ডিএসএ যাতে ডিজিটাল অপরাধ দমনবহির্ভূত বিষয়ে যুক্ত না হয়, তার গুরুত্বের বিষয়টিও আলোচনায় উল্লেখ করেছে ইইউ। এ সময় বাংলাদেশ জানিয়েছে, সংবিধান অনুযায়ী সব নাগরিকের মানবাধিকার সুরক্ষায় বাংলাদেশ অঙ্গীকারবদ্ধ।

শ্রমিকের এক দিনের খাবার-চাল, আটা, ডাল, তেলে ব্যয় বেড়েছে ৪০%-প্রথম আলো

একজন শ্রমজীবী মানুষের এক দিনের খাবারের জন্য প্রয়োজনমতো চাল, আটা, ডাল, তেল, আলু ও চিনি কিনতে বছর তিনেক আগে যে ব্যয় হতো, এখন তার চেয়ে ৪০ শতাংশ বেশি খরচ হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট এবং স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের ২০২১ সালের একটি জরিপ অনুযায়ী এ তথ্য উঠে এসেছে।খাদ্যপণ্যের দাম বেড়ে গেলে ও আয় না বাড়লে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া কমিয়ে দেন দরিদ্র মানুষেরা। তাঁরা ডাল, ভাত, আলু ও সবজি খেয়ে কোনোমতে জীবন যাপন করেন।সীমিত আয়ের মানুষ তাঁদের খাবারের পাত থেকে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম কমিয়ে এখন বাড়তি ব্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছেন। নিম্নবিত্তের বাস, এমন জায়গায় মাছ, মাংস বিক্রি কমেছে।বাজারে নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় সেসব মানুষ বেশি বিপাকে পড়েছেন, যাঁদের আয় নির্দিষ্ট। চাইলেই বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ নেই।

পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টায় সরকার-মানবজমিন

বর্তমানে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা সংকটের মধ্যদিয়ে যাচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে ডলারের দাম বাড়ায় সার্বিক অর্থনীতিতে বহুমুখী প্রভাব ফেলেছে। ডলারের দাম বাড়লে  খাদ্যশস্যের দাম বাড়ে। এর প্রভাব পড়ে সবার ওপর। মুদ্রাটির দাম বাড়লে নেতিবাচক দিকই বেশি। বৃদ্ধি পায় আমদানি খরচ। আমদানি পণ্যের দাম বাড়ে। বাড়ে শিল্প স্থাপনের খরচ। প্রভাব পড়ে বিনিয়োগে। টাকার মান কমে গিয়ে হ্রাস করে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা।মূল্যস্ফীতিও বেড়েছে। ইতিমধ্যেই চাল, ডাল, আটা, ময়দা, তেল, চিনিসহ প্রায় বেশিরভাগ নিত্যপণ্যের দাম বাড়তি। ফলে যন্ত্রণায় ভুগছে নিম্ন স্বল্প ও মধ্যআয়ের মানুষ। তাদের কষ্ট বেড়েছে। সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে। এখন তারা সবচেয়ে বেশি বিপাকে। 

সার্বিক বিষয় আমলে নিয়ে সামাল দিতে নানা রকম চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার। এরই মধ্যে ব্যয়ে লাগাম টানার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া দেশের ব্যাংকগুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা কেন্দ্রীয় ব্যাংকও ডলারের সংকট সামলাতে বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে।

যুগপৎ’ আন্দোলনের পথেই বিএনপি-যুগান্তর

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনসহ আরও কয়েক দফা দাবিতে যুগপৎ আন্দোলনের পথে হাঁটছে বিএনপি। এ নিয়ে দলটি একটি রূপরেখাও তৈরি করছে। ঘোষণা আসবে খুব শিগগিরিই। একই দাবিতে চারটি মঞ্চ গঠনের ইঙ্গিত দিয়েছে এবং রাজপথে এক হওয়ার আশা। বিএনপি নেতাদের মতে, রোজার ঈদের আগে ৩০টিরও বেশি সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক কথা বলেছেন তারা। দলগুলো বিএনপির দাবিগুলোর সঙ্গে একমত হলেও এখনই বৃহত্তর ঐক্যের পক্ষে নয়। তারা অভিন্ন দাবিতে যুগপৎ আন্দোলনে যাওয়ার বিষয়ে আগ্রহী। এজন্য কর্মসূচির ভিত্তিতে যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে রাজপথে ঐক্য গড়ে তোলাই যুক্তিযুক্ত বলে মনে করছে বিএনপি। 

এবার মাঙ্কিপক্স ছড়িয়ে পড়ছে দেশে দেশে-কালের কণ্ঠ

করোনাভাইরাস মহামারি বিদায় না নিতেই আফ্রিকা, ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকার কয়েকটি দেশে নতুন রোগ ‘মাঙ্কিপক্স’ শনাক্ত হয়েছে।  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, ১১টি দেশে মোট ৮০ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে। এই সংখ্যা আরো বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করেছে ডাব্লিউএইচও।

বিবিসি জানিয়েছে, ইতালি, সুইডেন, ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে মাঙ্কিপক্স শনাক্ত করা হয়েছে।প্রাথমিক লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে জ্বর, মাথাব্যথা, ফুলে যাওয়া, পিঠে ব্যথা, পেশিতে ব্যথা এবং সাধারণ ক্লান্তি।

জ্বর সারা শুরু হলে ফুসকুড়ি তৈরি হতে পারে, প্রায়শই তা মুখমণ্ডল থেকে শুরু হয়। তারপর শরীরের অন্যান্য অংশে, সাধারণত হাতের তালু এবং পায়ের তলায় ছড়িয়ে পড়ে।ফুসকুড়িগুলোতে খুব চুলকানি হতে পারে। বিভিন্ন পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে শেষ পর্যায়ে খোসা গঠিত হতে পারে। খোসাটি পরে পড়ে যায়। এর ক্ষত থেকে দাগ থেকে যেতে পারে। সংক্রমণটি সাধারণত নিজে থেকেই চলে যায়। এটি ১৪ থেকে ২১ দিন স্থায়ী হয়। মানুষ কীভাবে সংক্রমিত হতে পারে?কেউ সংক্রমিত ব্যক্তির ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে এলে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হতে পারে। ভাইরাসটি ত্বকের ক্ষত, শ্বাসতন্ত্র বা চোখ, নাক বা মুখ দিয়ে শরীরে প্রবেশ করতে পারে।এটিকে আগে যৌনবাহিত সংক্রমণ হিসাবে বর্ণনা করা হয়নি, তবে যৌনতার সময় সরাসরি শারীরিক সম্পর্কের মাধ্যমে এ ভাইরাস ছড়াতে পারে।

পশ্চিমাদের পাঠানো বিশাল অস্ত্রের চালান ধ্বংস: রাশিয়া-ইত্তেফাক

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ

ইউক্রেনকে সাহায্য করার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর পাঠানো অস্ত্রের একটি বড় চালান ধ্বংস করা হয়েছে। রাশিয়ার পক্ষ থেকে এই দাবি করা হয়েছে। শনিবার (২১ মে) বিবিসির লাইভ প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে। 

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, সমুদ্র থেকে উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে কিয়েভের পশ্চিমে উত্তর জাইতোমির অঞ্চলের একটি রেলস্টেশনের কাছে হামলা চালানো হয়েছে। বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স এই তথ্য জানিয়েছে।মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, ইউক্রেনের বাহিনীর জন্য পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস অঞ্চলে এসব অস্ত্র পাঠানোর কথা। এছাড়া আরেক আপডেটে রাশিয়া জানিয়েছে, তারা ইউক্রেনে স্পেশাল অপারেশন ফোর্সের ট্রেনিং ঘাঁটিতেও হামলা চালিয়েছে। পাশাপাশি ওডেসা বন্দর নগরীর কাছে জ্বালানি ভাণ্ডারেও হামলা চালিয়েছে বলে দাবি রাশিয়ার। তবে বিবিসির পক্ষ থেকে রাশিয়ার এসব দাবির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এবার ভারতের কয়েকটি খবরের বিস্তারিত

জ্ঞানবাপী মসজিদের ‘শিবলিঙ্গ’ নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য! গ্রেপ্তার হিন্দু কলেজের অধ্যাপক-সংবাদ প্রতিদিন

জ্ঞানবাপী মসজিদ

স্পর্শকাতর জ্ঞানবাপী (Gyanvapi Mosque) মামলা নিয়ে দেশজুড়ে চর্চা চলছে। এর মধ্যেই জ্ঞানবাপী মসজিদের ওজুখানায় প্রাপ্ত ‘শিবলিঙ্গ’ নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করায় গ্রেপ্তার করা হল দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের হিন্দু কলেজের (HIndu Mandir) সহকারী অধ্যাপক রতন লালকে। বৃহস্পতিবারই তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছিল। এরপর ৫০ বছরের অধ্যাপককে ডেকে পাঠানো হয়েছিল জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। অবশেষে গ্রেপ্তার করা হল।

ঠিক কী অভিযোগ ইতিহাসের ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে? এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যাচ্ছে, গত মঙ্গলবার তিনি ওই ‘শিবলিঙ্গে’র একটি ছবি পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানেই তাঁকে ওই লিঙ্গ নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করতে দেখা যায় বলে অভিযোগ। এরপরই তাঁকে ডেকে পাঠানো হয় থানায়। শুক্রবার রাতে রতন লালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে।

এই গ্রেপ্তারি ঘিরে ইতিমধ্যেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অনেকে। বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনকে দেখা গিয়েছে থানার বাইরে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে। এদিকে রতন লালের পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার পরে তাঁকে একটি ভিডিও-ও শেয়ার করতে দেখা গিয়েছে। সেখানে ওই অধ্যাপক জানিয়েছিলেন, অনলাইনে অনেকেই তাঁকে হুমকি দিয়েছে। পুলিশের কাছে নিজের নিরাপত্তার ব্যাপারে আরজি জানিয়েছিলেন তিনি। পরে অবশ্য তাঁর নামেই এফআইআর দায়ের হয়। একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

গত বুধবারই এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় রতন লাল তাঁর বিরুদ্ধে শুরু হওয়া বিতর্ক সম্পর্কে বলতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন, ”আমি ভাবতে পারিনি ওই মন্তব্যের জন্য এত হুমকির সামনে পড়তে হবে। হিন্দু ধর্মের সমালোচকদের এক দীর্ঘ ধারা রয়েছে। ফুলে, রবিদাস ও আম্বেদকরের কথা বলতে পারি। এখানে তো আমি সমালোচনাও করিনি। স্রেফ একটা পর্যবেক্ষণ। আমাদের দেশে সব কিছুতেই ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লেগে যায়। মানুষ কী করবে, মুখে ব্যান্ডেজ বেঁধে ঘুরে বেড়াবে?”

স্টক এক্সচেঞ্জ দুর্নীতি: দেশ জুড়ে সিবিআই তল্লাশি, নিশানায় একাধিক ব্রোকার সংস্থা-আনন্দবাজার পত্রিকা

ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ (এনএসই)-এর কো-লোকেশন দুর্নীতির মামলায় দেশ জুড়ে তল্লাশি অভিযান চালাল সিবিআই। তদন্তকারী সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই, গাঁধীনগর, নয়ডা, গুরুগ্রাম-সহ বিভিন্ন শহরের এক ডজন ঠিকানায় শুক্রবার তল্লাশি হয়েছে। এর মধ্যে একাধিক ‘ব্রোকার সংস্থা’র দফতরও রয়েছে।সিবিআইয়ের অভিযোগ, দিল্লির ব্রোকিং সংস্থা ওপিজি সিকিউরিটিজ ও তার প্রোমোটার সঞ্জয় গুপ্ত নিয়ম ভেঙে এনএসই-র কো-লোকেশন ব্যবস্থার সুবিধা নিয়েছিলেন। এর ফলে অন্য ব্রোকারদের থেকে কিছুটা সময় আগেই লেনদেনের জন্য লগ-ইন করতে পারতেন এবং তার সাহায্যে মুনাফা লুটতেন সঞ্জয় এবং তার সহযোগী ব্রোকাররা। এই মামলায় এনএসই-র প্রাক্তন সিইও চিত্রা রামকৃষ্ণ এবং প্রাক্তন গ্রুপ অপারেটিং অফিসার আনন্দ সুব্রহ্মণ্যমকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/২১

ট্যাগ