মে ২৩, ২০২২ ২০:৫৭ Asia/Dhaka

বন্ধুরা,আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। আজকের আসরেও আপনাদের সঙ্গে আছি আমরা তিন জন। আমি নাসির মাহমুদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: প্রত্যেক আসরের মতো আজও শুরুতেই আমি একটি বাণী শোনাতে চাই। আমিরুল মোমেনীন হযরত আলী (আ.) বলেছেন, 'তোমার বন্ধুর শত্রুর সাথে বন্ধুত্ব করো না, এতে তোমার বন্ধুর প্রতি শত্রুতা করা হবে।'

আকতার জাহান: আমরা সবাই এই গুরুত্বপূর্ণ উপদেশটি মেনে চলব- এ প্রত্যাশায় নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে।

আসরের প্রথম মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ থানার পূর্ব নলছিয়া গ্রাম থেকে। আর পাঠিয়েছেন জাগো রেডিও লিসেনার্স ক্লাবের সভাপতি হারুন অর রশীদ।

তিনি লিখেছেন, "এই অকাল দহন, এই কংক্রিট প্রতিযোগিতার অস্থির সময়েও আমি রেডিও শুনি। শুনি রেডিও তেহরানের অমীয় বাণী! অবারিত জ্ঞানের আলোকে আলোকিত শিশু-কিশোরদের আসর রংধনু শুনি প্রতি বৃহস্পতিবারে। আহরিত জ্ঞানে নিজেকে শাণিত করে সত্যিকারের মানুষের কাতারে খুঁজে পেতেই আমি শুনি রংধনু আসর। মসনবী থেকে 'অন্ধকারে হাতি দেখা’ তেমনই একটি শিক্ষামূলক চমৎকার গল্প যা প্রচারিত হয়েছে গত ১৭ মার্চ। ঐদিনের রংধনু আসরের ছোট্ট বন্ধুদের সম্মিলিত কণ্ঠের শিশুতোষ গান এবং ঢাকার আরমানিটোলার বন্ধু সাওদা নাওয়ার আলিশা’র সাক্ষাৎকারটি চমৎকার লেগেছে।"

নাসির মাহমুদ: ভাই হারুন অর রশীদ, ১৭ মার্চ প্রচারিত রংধনু আসরসহ রেডিও তেহরান সম্পর্কে আপনার মূল্যায়ন জেনে সত্যিই ভালো লাগল। আশা করি নিয়মিত লিখবেন।

ভারতের আসামের বড়পেটা জেলার কান্দুলিয়া থেকে সকাল-সন্ধ্যা রেডিও লিসেনার্স ক্লাবের সভাপতি আব্দুস সালাম সিদ্দিক পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি।

তিনি লিখেছেন, "গত ১৪ মার্চ তারিখে প্রচারিত শ্রোতানন্দিত অনুষ্ঠান চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন' বেশ ঘটা করে কয়েকবন্ধু ও বাড়িতে আসা মেহমানদের নিয়ে উপভোগ করেছি। বন্ধু ও মেহমানরা অনুষ্ঠান শুনে দারুণভাবে অভিভূত ও আনন্দিত। তাঁরা আগে জানতো যে, রেডিও তেহরান শুধুমাত্র শর্টওয়েভে প্রচারিত হয়। কিন্তু তাঁদেরকে অবাক করে দিয়ে প্রিয়জনসহ পুরো অনুষ্ঠান ফেসবুক লাইভ ও ইউটিউব শোনানোর পর তারা কথা দিয়েছেন নিয়মিত অনুষ্ঠান শুনবেন।"

আশরাফুর রহমান: লাইভ অনুষ্ঠান শুনিয়ে নতুন শ্রোতা বৃদ্ধি করায় আব্দুস সালাম সিদ্দিক ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

বরিশালের কাশিপুর থেকে এবারের মেইলটি পাঠিয়েছেন জিল্লুর রহমান জিল্লু। তিনি তৃণমূল বেতারশ্রোতা তথ্য ক্লাবের সভাপতি।

জিল্লু ভাই লিখেছেন, "ভালোলাগা, ভালোবাসা আর আস্থার এক গণমাধ্যম রেডিও তেহরান। সঠিক সংবাদ এবং সুস্থ বিনোদনের প্রধান ভরসা এ বেতারের বাংলা বিভাগ। সেই ছোট বেলা থেকে এখন পর্যন্ত রেডিও তেহরানের সাথে আছি। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তারিখের প্রিয়জনে কিছু কথা বলতে পারায় আমি খুবই আনন্দিত। এভাবেই আমাদের রেডিও এবং শ্রোতাদের মেলবন্ধন অটুট থাকুক সেই কামনা করি।"

আকতার জাহান: সাক্ষাৎকারের পাশাপাশি চিঠি লিখে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করায় জিল্লুর রহমান জিল্লু ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আকতার জাহান: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট ঢাকা কলোনী থেকে বিধান চন্দ্র সান্যাল পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি। তিনি জানিয়েছেন,

"গত ২০ মার্চ কলকাতার ৩২ পার্ক স্ট্রিটে AWR-এর এক শ্রোতা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বিহার, নেপাল সীমান্ত, কলকাতা, বাঁকুড়া, হাওড়া, মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদ, কোচবিহার, বর্ধমান, দক্ষিণ দিনাজপুর সহ বহু এলাকার প্রায় ৯০ জন শ্রোতাবন্ধু এতে অংশ নেন। আমিও এই সম্মেলনে যোগ দিই। 

সম্মেলনের ফাঁকে বিভিন্ন শ্রোতাদের সাথে রেডিও তেহরান নিয়ে ব্যক্তিগত আলাপ করি। সবাই যেটা বলবার চেষ্টা করে সেটা হলো পুরস্কার পাবার ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতা-  পুরস্কার পাবার আনন্দকে ম্লান করে দিচ্ছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এবং পশ্চিমবঙ্গে রেডিও তেহরানের একটি শ্রোতা সম্মেলনের আয়োজনের অনুরোধ করছি।"

নাসির মাহমুদ: করোনা পরিস্থিতির কারণে ডাকযোগাযোগ বন্ধ থাকাসহ একাধিক কারণে আমরা সময়মতো পুরস্কার পাঠাতে পারিনি বলে দুঃখ প্রকাশ করছি। আর শ্রোতা সম্মেলনের বিষয়টি আমাদের বিবেচনায় আছে। সময়-সুযোগমতো তা বাস্তবায়ন হবে বলে আশাবাদী। নিয়মিত চিঠি লিখার জন্য বিধান চন্দ্র সান্যাল আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে যে, আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব, কিশোরগঞ্জ- 'মজলুম জনগোষ্ঠীর পাশে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান' শীর্ষক প্রবন্ধ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল। ওই প্রতিযোগিতায় যৌথভাবে প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের রাজশাহী কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী খন্দকার রাবিবা ইয়াসমিনপ্রিয়জনের আজকের আসরে তার লেখার কিছু অংশ তুলে ধরছি। তিনি লিখেছেন-

আশরাফুর রহমান: "ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান মধ্যপ্রাচ্যের ও আফ্রিকার আরব দেশসমূহ এবং বিশ্বব্যাপী উন্নয়নশীল দেশগুলোর সাথে ব্যাপক সাংস্কৃতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে তোলার পাশাপাশি বিভিন্ন অঞ্চলের মজলুম জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়িয়েছে বিশ্বস্ত বন্ধুর মতো। ফিলিস্তিন, আফগানিস্তান, ইয়েমেন, ইরাক, সিরিয়া, সুদান, গাম্বিয়া, লেবানন ইত্যাদি বিভিন্ন দেশের সাথে ইরানের রয়েছে ব্যাপক ও দীর্ঘমেয়াদী সহযোগিতামূলক বন্ধুত্ব। এই সমস্ত দেশ ছাড়াও বিভিন্ন অঞ্চলে নির্যাতিত জনগোষ্ঠী, যেমন রোহিঙ্গা, কুর্দি ইত্যাদি জাতিগোষ্ঠীর পক্ষে সবসময় শক্তিশালী অবস্থান গ্রহণ করে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান। এভাবে মজলুম জনগোষ্ঠীর কাছে প্রিয় একটি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান।"

আকতার জাহান: 'মজলুম জনগোষ্ঠীর পাশে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান' শীর্ষক প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করায় খন্দকার রাবিবা ইয়াসমিন আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আমরা রেডিও তেহরান বাংলা বিভাগের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে পাঠানো একটি অডিও ফাইল বাজিয়ে শোনাব। এটি পাঠিয়েছেন আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব, কিশোরগঞ্জের সভাপতি ও গুরুদয়াল সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহাদত হোসেন।

নাসির মাহমুদ: রেডিও তেহরানের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এই বেতারকে মূল্যায়ন করে ভয়েজ মেইল পাঠানোয় শাহাদত ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

কুষ্টিয়ার খাদিমপুর বাজার থেকে মোখলেছুর রহমান পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি। সালাম ও শুভেচ্ছা জানানোর পর তিনি লিখেছেন, "প্রতিদিনের মত আজকেও আমার প্রাণের বেতার রেডিও তেহরানের সম্প্রচারিত বিশ্বসংবাদ, দৃষ্টিপাত, স্বাস্থ্যকথা, কথাবার্তা এবং সাপ্তাহিক ধারাবাহিক অনুষ্ঠান কুরআনের আলো অত্যন্ত ধৈর্য ও মনোযোগ সহকারে শ্রবণ করেছি। সত্যি কথা বলতে কী, আজকের সম্প্রচারিত প্রতিটি অনুষ্ঠানই ছিল শিক্ষণীয়, তথ্যবহুল এবং মনোগ্রাহী।  তবে 'স্বাস্থ্যকথা' অনুষ্ঠানে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মোঃ তাইফুর রহমান সাহেবের সাক্ষাৎকারে ব্রেইন ষ্ট্রোকের ওপর আলোচনার ৪র্থ পর্বে ঘুমের কার্যকারিতা, গুরুত্ব, সময়, ক্ষতি নানা দিক সম্পর্কে আলোচনাটি এবং স্বাস্থ্য বিষয়ক কিছু পরামর্শ শুনে ভীষণ ভালো লেগেছে। একটি চমৎকার জ্ঞানগর্ভ ও তথ্যসমৃদ্ধি অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগের সকল কর্মী ভাই ও বোনদের অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।" 

আশরাফুর রহমান: স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠান থেকে উপকৃত হয়েছেন জেনে ভালো লাগছে। তো চিঠি লিখার জন্য মোখলেছুর রহমান ভাই আপনাকে অনেক অনেক শুভ্ছো ও ধন্যবাদ।

আসরের পরের মেইলটিও স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠান সংক্রান্ত। এটি পাঠিয়েছেন বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ ইন্টারন্যাশনাল রেডিও ক্লাবের সভাপতি বিধান চন্দ্র টিকাদার। তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠানের একটি অতীব গুরুত্বপূর্ণ সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান হচ্ছে স্বাস্থ্যকথা। ঘরে বসে আমরা এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিষয়ে বিনামূল্যে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ পেয়ে থাকি যা আমাদের খুবই উপকারে আসছে। গত ২৩ মার্চ নাক কান গলা বিশেষজ্ঞ ডাক্তার জনাব এম মঈনুল হাফিজের কাছ থেকে টনসিল নিয়ে অনেক অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও পরামর্শ পেলাম। আগামীতে স্বাস্থকথা অনুষ্ঠানে নাকের পলিপাস নিয়ে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ শুনতে চাই।"

আকতার জাহান: বিধান চন্দ্র টিকাদার, স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠান থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও পরামর্শ পাচ্ছেন জেনে ভালো লাগল। আর নাকের পলিপাস নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের আলোচনা প্রচারের ইচ্ছে আমাদের রয়েছে। চিঠি ও মতামতের জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আসরের শেষ চিঠিটি পাঠিয়েছেন শরিফা আক্তার পান্না, কিশোরগঞ্জের খড়ম পট্টি থেকে। 

তিনি লিখেছেন, "২৫ মার্চ শুক্রবার রেডিও তেহরানের বাংলা বিভাগ থেকে প্রচারিত প্রতিটি অনুষ্ঠানই ছিল আকর্ষণীয়, সহজবোধ্য, নিরপেক্ষ, শিক্ষামূলক ও তথ্যবহুল। প্রতিটি অনুষ্ঠান সম্পর্কেই আমার মনের মধ্যে অনেক কথা আনাগোনা করছে। নিয়মিত অনুষ্ঠান বিশ্বসংবাদ, দৃষ্টিপাত ও কথাবার্তা যেমন আমার তথ্যভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করেছে, তেমনি সুন্দর জীবন ও আলাপন অনুষ্ঠান দুটি থেকে আমি অনেক কিছু শিখতে পেরেছি। এসব শিক্ষা আমার ও আমার পরিবারের জন্য অত্যাবশ্যকীয় বলেই আমি মনে করি।"

চিঠির শেষাংশে এ শ্রোতাবোন আলাপন অনুষ্ঠানে ইউক্রেন সংকট নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোঃ রুহুল আমিনের সাক্ষাৎকারটি ভালো লেগেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

নাসির মাহমুদ: বোন, শরিফা আক্তার পান্না, রেডিও তেহরানের বিশ্বসংবাদসহ দুটি অনুষ্ঠান সম্পর্কে আপনার ভালোলাগার অনুভূতি জেনে আমাদের ভালো লাগল। আশা করি আবারো লিখবেন।  

শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে কয়েকজন শ্রোতার ইমেইলের প্রাপ্তিস্বীকার করছি।

  • বাংলাদেশের রাজবাড়ী জেলার খোশবাড়ী থেকে শাওন হোসাইন
  • নারায়ণগঞ্জের আলী সাহারদি থেকে এইচ এম তারেক
  • মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থানার ইমামপুর থেকে সাকিয়া রহমান মারিয়া, ফারিয়া রহমান, রিনিতা রিনি ও সাঈফ আহমেদ উৎস
  • ভারতের ছত্তিশগড়ের ভিলাই থেকে আনন্দমোহন বাইন
  • এবং পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার বারুইপাড়া থেকে এস এস নাজিমউদ্দিন।

আশরাফুর রহমান: চিঠি লিখার জন্য আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তো শ্রোতাবন্ধুরা, অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে রয়েছে একটি দেহতত্ত্ব গান। হাসান মতিউর রহমানের কথায়, নাজির মাহমুদের সুরে 'কবর' শিরোনামের গানটি গেয়েছেন ইমরান মাহমুদুল।

আকতার জাহান: বন্ধুরা, আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে। 

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/মো.আবুসাঈদ/২৩

ট্যাগ