জুন ২০, ২০২২ ২১:০৬ Asia/Dhaka

শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। আজকের অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় রয়েছি আমরা তিনজন। আমি নাসির মাহমুদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: শ্রোতাবন্ধুরা, শুরুতেই জানিয়ে রাখি- আজকের আসরটি সাজানো হয়েছে ডাকযোগে আসা কয়েকটি চিঠি, ইমেইল, প্রশ্নোত্তর, অডিও বার্তা, প্রাপ্তিস্বীকার ও একটি গান দিয়ে। মূল অনুষ্ঠানের যাওয়ার আগে একটি বাণী শোনা যাক। ইমাম হাসান (আ.) বলেছেন: "ঘনিষ্ঠ সেই ব্যক্তি, বন্ধুত্ব যাকে নিকটবর্তী করেছে, যদিও তার বংশীয় সম্পর্ক দূরের হয়। আর অচেনা সেই ব্যক্তি, যে বন্ধুত্ব থেকে দূরে থাকে, যতই তার বংশীয় সম্পর্ক নিকটের হোক না কেন।"

আকতার জাহান: বন্ধুত্বের গুরুত্ব সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ একটি বাণী শুনলাম। আমরা সবাই বন্ধুত্বের মাধ্যমে পরস্পরের ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করব- এ কামনায় নজর দিচ্ছি চিঠিপত্র ও ইমেইলের দিকে।

জিপিওতে রেডিও তেহরানের পোস্ট বক্সের ঠিকানায় দুটি চিঠি পাঠিয়েছেন ঢাকার গ্রিন রোড থেকে ডাবলু আনোয়ার। তিনি ডিএম ইন্টারন্যাশনাল রেডিও ক্লাবের সভাপতি। একটি চিঠিতে তিনি তার ক্লাব থেকে প্রকাশিত ২০২২ সালের একটি সুদৃশ্য ক্যালেন্ডার, বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল সুন্দরবনের ছবি ও একটি ক্যালিগ্রাফি পাঠিয়েছেন।

নাসির মাহমুদ: বাহঃ বেশ চমৎকার কিছু ছবি পাঠিয়েছেন ডাবলু আনোয়ার ভাই। ছবিগুলো দেখে জীবনানন্দ দাশের ভাষায় বলতে ইচ্ছে করছে-

বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি, তাই আমি পৃথিবীর রূপ

খুঁজিতে যাই না আর

আকতার জাহান: সত্যিই ডাবলু আনোয়ার ভাইয়ের পাঠানো ছবিগুলো আমাদেরকে নিয়ে গেছে বাংলার সবুজ-শ্যামল প্রকৃতিতে। তো এবার নজর দেওয়া যাক ডাবলু আনোয়ার ভাইয়ের চিঠির দিকে। তিনি লিখেছেন, আমি প্রতিদিন রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠান উপভোগ করি।  অনুষ্ঠানের শুধুতে কুরআন তেলাওয়াত আমার ভীষণ ভালো লাগে।

চিঠির একাংশের তিনি শ্রোতাদের সঙ্গে পত্র-যোগাযোগ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

আশরাফুর রহমান: অনেক দিন পর ডাবলু আনোয়ার ভাইয়ের হাতের লেখা চিঠি পেয়ে যারপরনাই ভালো লাগল। আর হ্যাঁ, বিগত দুই বছর ধরে আমরা মাঝেমধ্যে শ্রোতাদের সঙ্গে ডাকযোগে অথবা ইমেইলে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি। আশা করি আপনি তা লক্ষ্য করেছেন। তো চিঠি লিখার জন্য ডাবলু আনোয়ার ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ভারতের ছত্তিশগড়ের ভিলাই থেকে আনন্দ মোহন বাইন পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। লিখেছেন, খবর, দৃষ্টিপাত ও রংধনু আসর শুনলাম। অন্যের মাল চুরি করে যে দান করা যায় না- এ সম্পর্কে একটি শিক্ষণীয় গল্প প্রচার হয়েছে রংধনু আসরে। অনুষ্ঠানে প্রচারিত 'পারিব না এ কথাটি বলিও না আর' কবিতাটিও ভালো লেগেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

নাসির মাহমুদ: ডাকযোগে চিঠি পাঠানোর জন্য আনন্দ মোহন বাইন আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

নাসির মাহমুদ: নওগাঁ জেলার সাপাহার থানার তিলনা খোঁচাপাড়া থেকে মোঃ আলী আহম্মেদ আরিফ পোস্ট কার্ডে পাঠিয়েছেন চারটি চিঠি। একটি চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ১৭ জানুয়ারি প্রিয়জন অনুষ্ঠানে খায়রুল ইসলাম শাকিলের কণ্ঠে 'আয় মরু পারের হাওয়া' শিরোনামের নজরুল সঙ্গীতটি ভালো লেগেছে।  এছাড়া ১৪ ফেব্রুয়ারি তারিখে প্রিয়জন অনুষ্ঠানে সাক্ষাৎকার দিতে পেরে তিনি অনেক খুশি হয়েছেন বলে আরেকটি পোস্ট কার্ডে উল্লেখ করেছেন।

আকতার জাহান: পোস্ট কার্ডের পাশাপাশি ইমেইলেও নিয়মিত মতামত পাঠাচ্ছেন এ শ্রোতাবন্ধু। তো, রেডিও তেহরানকে পছন্দের গণমাধ্যম হিসেবে বেছে নেওয়ায় আরিফ ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আশরাফুর রহমান: বেশ কিছু চিঠি তো পড়া হলো। এবার নাহয় ইমেইলের ইনবক্সটা চেক করা যাক!

নাসির মাহমুদ: আমি তো ইমেইল খুলে বসে আছি অনেকক্ষণ ধরে। শুধুতেই যে মেইলটি পড়তে যাচ্ছি সেটি এসেছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার খিলগাঁও-এর ইকো ইন্টারন্যাশনাল লিসনার্স ক্লাব থেকে। আর পাঠিয়েছেন একসময়ের নিয়মিত শ্রোতা ও পত্রলেখক ড. সালেহ মতীন। 

তিনি লিখেছেন, দীর্ঘদিন পর রেডিও তেহরানকে লিখছি। সেই নব্বইয়ের দশকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন নিয়মিত লিখতাম। তারপর পেশাগত ব্যস্ততায় দীর্ঘদিন লেখালেখিতে অনিয়মিত হওয়া আমার নিজেকেও পীড়া দেয়। তবে রেডিও তেহরানের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গত ২৭ মে তারিখে ঢাকার জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত প্রোগ্রাম থেকে নতুন করে যেন জীবনীশক্তি সঞ্চার করেছি। এখন থেকে নিয়মিত লেখার নিয়ত করেছি ইনশাআল্লাহ।

আকতার জাহান: আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব আয়োজিত অনুষ্ঠানে সালেহ মতিন ভাই রেডিও তেহরান সম্পর্কে চমৎকার মূল্যায়ন করেছিলেন- আমরা তা ফেসবুকে লাইভে শুনেছি। তো দীর্ঘদিন পর ইমেইল করে মতামত দেওয়ায় আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করি নিয়মিত লিখবেন।

রেডিও তেহরানের ৪০তম বর্ষপূতি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান সম্পর্কে শ্রোতাবন্ধুরা আরও কিছু ইমেইল পাঠিয়েছেন। সেগুলোতে নজর দেওয়ার আগে আমরা অনুষ্ঠানের অন্যতম আয়োজক জাকারিয়া চৌধুরী যুবরাজ ভাইয়ের একটি অডিও বার্তা শুনব। 

আশরাফুর রহমান: প্রেস ক্লাবের শ্রোতা সম্মেলন সম্পর্কে অডিও বার্তাটির জন্য যুবরাজ ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে ব্যাংকার ও কলাম লেখক মো. জিল্লুর রহমান পাঠিয়েছেন পরের মেইলটি। তিনি লিখেছেন, "গত ২৭ মে শুক্রবার বিকেলবেলা জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বসেছিল বাংলাদেশের নানাপ্রান্ত থেকে আগত রেডিও তেহরানের শ্রোতা ও পাঠকদের এক মহামিলনমেলা। অনুষ্ঠানে নবীন-প্রবীণ সকল শ্রোতা প্রাণ খুলে নিজেদের মধ্যে নানা বিষয় মতবিনিময় করার সুযোগ পান এবং ছবি তোলার হিড়িক পড়ে যায়, যা ছিল হৃদয়ছোঁয়া এক অভূতপূর্ব মুহূর্ত। যারা এতদিন একে অপরের কণ্ঠ ও চিঠিপত্র শুনতে অভ্যস্ত ছিল, তারা একে অপরকে কাছে পেয়ে যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছিল। রেডিও তেহরান শ্রোতাদের মনিকোঠায় কতটা গভীরভাবে স্থান করে নিয়েছে তা শ্রোতাদের বক্তৃতা ও অভিব্যক্তিতে বারবার জোরালোভাবে উচ্চারিত হয়েছে।"

নাসির মাহমুদ: জিল্লুর রহমান ভাইয়ের চিঠি পড়ে অনুষ্ঠানটির প্রভাব সম্পর্কে জানতে পারলাম। পুরো চিঠিতে আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা লিখেছেন এই শ্রোতাভাই। তার চিঠিটি আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। আগ্রহীরা দেখে দিতে পারেন। চমৎকার চিঠিটির জন্য জিল্লুর রহমান ভাই, আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

একই অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত জানিয়ে আরও যারা মেইল পাঠিয়েছেন তারা হলেন-

  • রংপুরের পীরগাছা থেকে এ, টি, এম, আতাউর রহমান রঞ্জু  
  • ফরিদপুরের মধুখালী থানার জগন্নাথদী থেকে এম, এম, গোলাম সারওয়ার।
  • এবং গোপালগঞ্জের জলির পাড় থেকে বিধান চন্দ্র টিকাদার

আকতার জাহান: এই শ্রোতাবন্ধুদের চিঠিগুলো আমরা পরের আসরে পড়ার চেষ্টা করব- এ প্রত্যাশা রেখে পরের মেইলের দিকে নজর দিচ্ছি।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ থেকে এটি পাঠিয়েছেন মনীষা রায়। ৬ জুন তারিখে প্রচারিত ‘প্রিয়জন' অনুষ্ঠান সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, আসরের শুরুতেই আশরাফ ভাইয়ের পড়া মূল্যবান বাণীটির পর বাংলাদেশের আইআরআইবি ফ্যান ক্লাবের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী যুবরাজ ও কুয়েত প্রবাসী শাহজালাল হাজারীর মেইল পড়া হয়। এরপর রেডিও তেহরানের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকারী মাহমুদুল হাসান-এর লেখা থেকে পাঠ করা হয় এবং রংধনু অনুষ্ঠান সম্পর্কে ভারতের আসামের আবদুস সালাম সিদ্দিক ও বাংলাদেশের শরিফা আক্তার পান্নার মেইল পড়া হয়। এছাড়া, রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠানের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের এস এম নাজিম উদ্দিন-এর অডিও বাজিয়ে শোনানো হয়। বাংলা অনুষ্ঠান সম্পর্কে তার মধুমিশ্রিত কথাগুলো খুবই মনোমুগ্ধকর লেগেছে। সবশেষে 'আরোগ্য' শিরোনামের সঙ্গীতটি হৃদয় ছুঁয়ে গেল।

আশরাফুর রহমান:  প্রিয়জন অনুষ্ঠান আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। তো বোন মনীষা রায়, ইমেইলে মতামত পাঠানোয় আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আসরের পরের মেইলটি পাঠিয়েছেন মো. তোফায়েল ভুইয়া। ডাক যোগাযোগ ঠিকানাবিহীন এই মেইলে তিনি জানিয়েছেন যে, রেডিও তেহরানের ফেসবুক পেইজ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পেইজ কিভাবে পাওয়া যাবে তিনি তাও জানতে চেয়েছেন।

নাসির মাহমুদ: ভাই তোফায়েল ভূইয়া, আপনার মতো অনেকেই আমাদের ফেসবুক পেইজটি কিছুদিন ধরে খুঁজে পাচ্ছেন না। এর কারণ হচ্ছে- কোনোরকম সতর্কতা কিংবা নোটিশ ছাড়াই গত ২৪ মে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ রেডিও তেহরানের পেইজটি ব্লক করে দেয়। আপনি ইচ্ছে করলে আমাদের নতুন পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকতে পারেন। আমাদের নতুন পেইজের ঠিকানা হচ্ছে- www.facebook.com/IRIBBangla

আকতার জাহান: আসরের শেষ মেইলটি পাঠিয়েছেন বাংলাদেশের জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ থানার পূর্ব নলছিয়া গ্রাম থেকে হারুন অর রশীদ।

অন্তরঙ্গ প্রীতিসহ অনুপম শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি লিখেছেন, "রেডিও তেহরান একটি নির্ভরতার নাম, একটি ভরসার জায়গা, একটি আলোকিত প্রতিষ্ঠান। তাইতো, মধ্যপ্রাচ্যসহ সারা বিশ্বের  মজলুম ও নিরীহ মানুষের পক্ষের কণ্ঠস্বর হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে রেডিও তেহরান। সততা, মেধা, প্রজ্ঞা আর নিরলস পরিশ্রমের ফলে তিল তিল করে গড়া গণমাধ্যম রেডিও তেহরান এখন আকাশসম শ্রোতাপ্রিয়তা লাভ করেছে। এর মুল কারণ হলো রেডিও তেহরান তার নীতিতে অটল। বিশ্বের পরাশক্তি বিশেষ করে পশ্চিমা মুলুকের রক্ত চক্ষু ও কুটকৌশল উপেক্ষা করে মহীরুহ হয়ে টিকে আছে রেডিও তেহরান।"

আশরাফুর রহমান: বরাবরের মতোই রেডিও তেহরান সম্পর্কে চমৎকার মূল্যায়নের জন্য শ্রোতাবন্ধু হারুন অর রশীদকে অসংখ্য ধন্যবাদ। অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে কয়েজন শ্রোতার চিঠির প্রাপ্তিস্বীকার করছি।

  •  রাজবাড়ী জেলার খোশবাড়ী গ্রামের রংধনু বেতার শ্রোতা সংঘ থেকে শাওন হোসাইন
  •  কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল কলেজ থেকে মোঃ শাহাদত হোসেন
  •  ঢাকার গুলশান থেকে মোঃ হাবিবুর রহমান
  •  পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ থেকে হরিদাস রায়
  •  বিধান চন্দ্র সান্যাল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট থেকে
  •  পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বসিরহাট থানার বেগমপুর থেকে মোঃ আনারুল ইসলাম  
  •  কেরালার কোল্লাম থেকে রাধাকৃষ্ণ পিল্লাই
  •  এবং নয়াদিল্লি থেকে জয়ন্ত চক্রবর্তী

নাসির মাহমুদ: চিঠি লিখার জন্য আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তো বন্ধুরা, অনুষ্ঠান থেকে বিদায় নেওয়ার আগে আপনাদের জন্য রয়েছে একটি নজরুলগীতি। 'খেলিছ এ বিশ্ব লয়ে' শিরোনামের বিখ্যাত গানটি গেয়েছেন শিল্পী ইউসুফ আহমেদ খান। 

আকতার জাহান: তো বন্ধুরা, আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে।#                                                                                                                                           

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২০

ট্যাগ