ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯ ১৬:৫৯ Asia/Dhaka

ক. বন্ধুরা, আপনাদের অনেক অনেক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর প্রিয়জন। প্রতি আসরের মতো আজও আলোচনা শুরু করবো একটি হাদিস শুনিয়ে।

ইমাম আলী ইবনে মুসা রেজা (আ.) বলেছেন, যে ব্যক্তি মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে কাউকে নিজের দ্বীনী ভাই হিসেবে গ্রহণ করবে তাকে জান্নাতে একটি ঘর প্রদান করা হবে।

খ. আমরা সবাই এ শ্বাশতবাণী  অনুসরণ করব এবং অন্যকে মেনে চলতে উৎসাহিত করবো। এতে সমাজে শান্তি আসবে। জীবনে অশান্তি কমবে।

ক. এ কামনা আমাদের সবার। আজকের আসরের প্রথমেই হাতে তুলে নিয়েছি বাংলাদেশ থেকে আসা একটি ইমেইল। এটি এসেছে ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে আর লিখেছেন রেডিও তেহরানের পুরনো এবং বিদগ্ধ শ্রোতা ভাই জিল্লুর রহমান। এ চিঠিতে তিনি লিখেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে আমরা বর্তমান সময়ে একটি ভালো বন্ধু বলে বিবেচনা করি। কারণ এখানে তাৎক্ষণিকভাবে সকলের মতামত, দৃষ্টিভঙ্গি, ছবি, ভিডিও ইত্যাদি দেখতে পারি এবং সাথে সাথে প্রতিক্রিয়া ও অনুভূতি ব্যক্ত করতে পারি। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কিছু নেতিবাচক দিকও আছে। যেমন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব বাতাসের আগে ধাবিত হয়। তাছাড়া, মিথ্যা কল্পকাহিনী গুজব ছড়াতে প্রবল সহযোগিতা করে এবং গুজব কোনো কোনো সময় সমাজে বড় ধরণের সমস্যা সৃষ্টি করে।

খ. এ ভাই আরও লিখেছেন, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ফেইসবুকে ধর্মীয় বিষয় নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে সাধারণ তৌহিদি জনতার বিক্ষোভ সমাবেশে চার জন নিহত ও শতাধিক লোক আহত হয়েছে। এ খবরটি রেডিও তেহরান বাংলাসহ সকল গণমাধ্যমে খুব গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করেছে।  ভোলার এ ঘটনার জেরে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এ সময় পার্শ্ববর্তী সীতাকালী মন্দিরে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করার চেষ্টা করলে মাদ্রাসার অন্য শিক্ষার্থীরা তাদের রুখে দেয় এবং কেউ যাতে মন্দিরে হামলা তথা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে না পারে সেজন্য তারা বেশ জোরালো ভূমিকা পালন করে। মন্দিরের নিরাপত্তায় মাদ্রাসা ছাত্রদের এ উদ্যোগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে এবং বেশ প্রশংসিত হয়েছে।

ক. ভাই জিল্লুর রহমান সবশেষে লিখেছেন, সমাজের নানা নেতিবাচক ঘটনার মধ্যে এটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। আমি মনে করি, গুজববিরোধী এ ধরণের সঙ্কটময় সময়ে গণমাধ্যম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা কার্যকর ভূমিকা পালন করলে, ভবিষ্যতে এ ধরণের ঘটনা আর ঘটবে না।

বহলুল: যথা সময়ে হক কথা- ভাই জিল্লুরের চিঠি নিয়ে কথাই বলছি। ধন্যবাদ ভাই ভবিষ্যতে আরও চিঠি দিবেন আশা করি। আর যারা এখনও চিঠি লিখেন নি তারও ঝটপট চিঠি লিখতে শুরু করুন। হ্যাঁ এবারে নাসির খানের কথা শুনবো।

খ. বহলুল ভাই আপনি সম্ভবত ভারতের রাজস্থানে বসবাসকারী পশ্চিমবঙ্গের শ্রোতা ভাই  নাসির খানের কথা বলতে চেয়েছেন।  বন্ধুদের হয়তো মনে আছে, আমরা এর আগেও তার কথা শুনেছি।  হ্যাঁ সে সময় আমরা জানতে চেয়েছিলাম রেডিও তেহরান সম্পর্কে শ্রোতা ভাই-বোনদের তিনি কিছু বলতে চান কিনা। এর উত্তরে তিনি বলেন: ...

বহলুল: ভাই নাসির খান আপনি একেবারে আমাদের মনের কথাই বলেছেন।

ক. হ্যাঁ  বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে আমরা হারানো ভাই-বোনদের সঙ্গে কথা বলার আনন্দ পাই। ধন্যবাদ আপনাকে।  এতোক্ষণ  ভারতের রাজস্থানে বসবাসকারী পশ্চিমবঙ্গের শ্রোতা ভাই  নাসির খানের কথা শুনছিলেন। ভবিষ্যতে আপনাদেরও কথা শোনার অপেক্ষায় রইলাম। ....

বহলুল: তাহলে এবারে শুরু হোক নিয়মিত আয়োজন...

খ. অর্থাৎ রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপ এবং ওয়েবসাইটে প্রকাশিত খবরে যে সব মন্তব্য হয়েছে এবার সেদিকে নজর দেব। হিজবুল্লাহর হাতে ১ লাখ ৩০ হাজার ক্ষেপণাস্ত্র- ২৯ অক্টোবর প্রকাশিত এই শিরোনামের এ খবরে বলা হয়েছে, ইহুদিবাদী ইসরাইলের সামরিক বাহিনীর জেনারেল ইজহাক ব্রিক বলেছেন, ইরান ও হিজবুল্লাহ ইসরাইলকে যুদ্ধবিধ্বস্ত অঞ্চলে পরিণত করতে পারে।

ক. ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ খবরে পুরনো পাঠক ভাই মকবুল হোসেইন লিখেছেন, হিজবুল্লাহ মনে মনে ঠিক করে রেখেছে এবার যদি ইজরায়েল আঘাত হানে কিংবা ইজরায়েলের দুষ্টমি আরো একটু বাড়তে থাকে তবে ইসরাইলের ধ্বংস অত্যাসন্ন।  হিজবুল্লাহ ধরে রেখেছে তাদের পাশে মুসলিম বিশ্ব এবং আল্লাহতালার রয়েছেন সুতরাং...

বহলুল: সুতরাং নো ভয় নো ডর। খালি প্রয়োজনে তাক করো এবং ছোঁড়!

খ.  এদিকে রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপে এ খবর নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। ভাই মুকিতুল ইসলাম আদিলসা লিখেছেন, সবেমাত্র বুঝতে শুরু করেছে ইসরাইলিরা।  এখন থেকে মুসলিম ভূমি দখল বাদ দিয়ে সঠিক পথে চলার চেষ্টা করুন। আর ভাই শিবলি আল ফারুক লিখেছেন, এ সব অস্ত্র আরও বাড়তে থাকবে।

বহলুল: দারুণ সব মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।  এদিকে কিন্তু আসরের সময়ে শেষ হয়ে এসেছে।

ক.  হ্যা বন্ধুরা এবার বিদায়ের পালা।  আপনারা সবাই চিঠি দিবেন, ইমেইল করবেন এবং ওয়েবসাইটের খবরে নিয়মিত মন্তব্য করবেন এ আহ্বান জানিয়ে ইসলামী গান শুনতে শুনতে আজ এখানেই বিদায় চাইছি প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে।#

ট্যাগ

মন্তব্য