জানুয়ারি ১২, ২০২০ ১৫:১২ Asia/Dhaka

ক. বন্ধুরা! আপনাদের সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর প্রিয়জন।

আশা করছি যে যেখানে বসেই আমাদের অনুষ্ঠান শুনছেন না কেন সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। শুরুতেই যথারীতি একটি হাদিস। ইমাম রেজা  (আ.) বলেছেন, ইবাদত কেবল বেশি বেশি নামায পড়া ও ব়োযা রাখা নয়। বরং ইবাদত হচ্ছে মহান আল্লাহর ব্যাপারে গভীর চিন্তাভাবনা করা।

খ. জীবনকে শ্বাশত বাণীর ভিত্তিতে সুন্দর করে গড়ে তুলবো এ কামনার মধ্য দিয়ে হাতে তুলে নিচ্ছি আসরের প্রথম ইমেইল। এটি এসেছে বাংলাদেশ থেকে। গোপালগঞ্জ জেলার ঘোড়াদাইড়ের মধুমতি বেতার শ্রোতা সংঘের সভাপতি শ্রোতা ভাই ফয়সাল আহমেদ শিপন পাঠিয়েছেন এ চিঠি। তিনি লিখেছেন, যে কয়েকটি কারণে বাংলাদেশের নাম সারা বিশ্বে পরিচিত তার মধ্যে পোষাক শিল্প অন্যতম। পোষাক রপ্তানির মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে। বাংলাদেশের লক্ষ লক্ষ পরিবারের জীবন নির্ভর করে এই গার্মেন্টস শিল্পের ওপর। কিন্তু বাংলাদেশের এই পোশাক শিল্প শুরুর ইতিহাস আমরা ক’জন জানি? এই বিষয়ে প্রতিবেদন প্রচারের অনুরোধ করছি।

বহলুল: আপনার অনুরোধটি ভালো। তবে এ মুহূর্তে সময় বের করা মুশকিল।

ক. ঠিক বলছেন বহলুল ভাই। তবে অনুরোধটি আমাদের মনে থাকবে। সুযোগ এবং সময় পেলে অনুরোধটি রক্ষা করার চেষ্টা আমরা করব।  চিঠি লেখার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই শিপন। আপনার কাছ থেকে আমরা আরো অনেক বেশি ইমেইল এবং অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত আশা করছি।

বহলুল: তাহলে এবারে বাংলাদেশের এক শ্রোতা বন্ধুর সঙ্গে কথা বলবো।

ক. হ্যা আমরা এবার কথা বলছি..., নাহ বরং পরিচয়টি তার মুখেই শুনি, হ্যা ভাই আপনার পরিচয় দিন...

খ. আপনাকে প্রিয়জনের আসরে স্বাগত ভাই আবদুল্লাহ আল মুজাহিদ।

বহলুল: দেখুন ভাই মুজাহিদ....

ক. এতোক্ষণ বাংলাদেশের শ্রোতাভাই আবদুল্লাহ আল মুজাহিদের কথা শুনছিলেন। ভবিষ্যতে তার কথা আরও শোনার প্রত্যাশা করছি। একইভাবে আপনাদের কথা শোনারও প্রতীক্ষায় রইলাম শ্রোতাবন্ধুরা।...

বহলুল: আসরের এ পর্বে যথারীতি নজর দেবো রেডিও তেহরানের অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপ এবং রেডিও তেহরানের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত খবরে পাঠক বন্ধুরা যে সব মন্তব্য করেছেন সে দিকে।  আজ আপনিই শুরু করেন।

খ. ধন্যবাদ বহলুল ভাই। হ্যাঁ ইরানে সামরিক সরঞ্জামের আধুনিকায়নে বিদেশি নির্ভরতা নেই- শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে নভেম্বরের ৯ তারিখে। এ খবরে বলা হয়েছে, ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরি বলেছেন, বিদেশি নির্ভরতা ছাড়াই সামরিক সরঞ্জামের আধুনিকায়ন চলছে, এতে খরচও কম হচ্ছে।  তিনি আরো বলেছেন, কোনো কোনো ক্ষেত্রে ট্যাংক, গোলা ও সাঁজোয়া যানের মূল অংশ রেখে সেগুলোকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।  বাকেরি আরও বলেছেন, পুরনো সামরিক সরঞ্জাম পরিবর্তন এবং নতুন প্রযুক্তিতে সজ্জিত করার ক্ষেত্রে ইরান অত্যন্ত ভালো অবস্থানে রয়েছে এবং বর্তমানে ইরান অত্যাধুনিক সরঞ্জামের অধিকারী।

ক. ফেসবুক গ্রুপে এ খবর বেশ আলোড়ন তুলেছে।

বহলুল: হ্যাঁ ইরান নিয়ে যেকোনও ভালো খবরই পাঠক-শ্রোতা মহলে আলোড়ন সৃষ্টি করে। হ্যাঁ! এ খবরে কি বলা হয়েছে?

ক. এ খবর রহুল আল নো লিখেছেন, না অন্যের ওপর নির্ভর করার কোনো দরকারই নেই। নিজেরা চেষ্টা করলে যে কোনও বাধা দূর হবেই হবে। এদিকে মোহাম্মাদ মোকালামা লিখেছেন, ভালো খবর।

খ. এদিকে সিরিয়ার তেলক্ষেত্র নিয়ন্ত্রণের মার্কিন উদ্যোগ দস্যুবৃত্তি শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ২৮ অক্টোবর। এ খবরে বলা হয়েছে, সিরিয়ার তেলক্ষেত্রগুলো নিয়ন্ত্রণের জন্য মার্কিন সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তাকে দস্যুবৃত্তি বলে মন্তব্য করেছে রাশিয়া। মস্কো বলেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন মিথ্যা অজুহাতে আরব এ দেশটির তেল সম্পদ লুট করার চেষ্টা করছে।

ক. রেডিও তেহরানের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এ খবরে জেডপি ছদ্মনামের পাঠক ভাই লিখেছেন, অবৈধ তেলক্ষেত্র নিয়ন্ত্রণকারীদের উড়িয়ে দেয়া হোক। আমেরিকা এখন বড় কোনো যুদ্ধ করার অবস্থায় নেই ।

বহলুল: গোদা পায়ের লাত্থি বলে একটা কথা গ্রাম বাংলায় প্রচলিত আছে। গোদ বা ফাইরেয়িা আক্রান্ত বিশাল সাইজের পা দিয়ে লাত্থি দেয়া হলে সাংঘাতিক ঘটনা ঘটবে। কিন্তু আসল ওমন পা নড়ানোই সম্ভবই না।

ক. যা বললেন বহলুল ভাই। এদিকে,'যুদ্ধ অব্যাহত রাখলে সৌদি আরবকে করুণ পরিণতি ভোগ করতে হবে’ শীর্ষক খবরটি প্রকাশিত হয়েছে ১০ নভেম্বর। এ খবরে বলা হয়েছে, ইয়েমেনের জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের নেতা আব্দুল মালেক আল-হুথি বলেছেন, তার দেশের বিরুদ্ধে যদি যুদ্ধ অব্যাহত রাখা হয় তাহলে সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত আরব জোটকে করুণ পরিণতি ভোগ করতে হবে।

খ. রেডিও তেহরানের ফেসবুক গ্রুপে এ খবরে অন্যতম মন্তব্যকারী হলেন ভাই শহিদুল ইসলাম। তিনি লিখেছেন- জ্বি।

বহলুল:  দেখুন দারুণ মন্তব্যের পর আজ হাসি মুখে বিদায় নিতে হবে।  কারণ আসরের সময় শেষ হয়ে এসেছে।

খ.জ্বি শ্রোতাবন্ধুরা আজকের আসরে যারা চিঠি লিখেছেন, ইমেইল করেছেন এবং এতোক্ষণ আমাদের সঙ্গ দিয়েছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে আজ এখানেই বিদায় চাইছি।#

ট্যাগ

মন্তব্য