মে ১৩, ২০২০ ১৬:৩৩ Asia/Dhaka
  • কথাবার্তা: করোনায় কোনদিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ! মে মাস ক্রিটিক্যাল

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা: ১৩ মে বুধবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি বাবুল আখতার। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। এরপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাবো। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • এশিয়ার সর্বোচ্চ ঝুঁকির দিকে বাংলাদেশ-দৈনিক ইত্তেফাক
  • দেশে করোনানয় একদিনে ১৯ জনের মৃত্যু-স্বাস্থ্য অধিদপ্তর-দৈনিক প্রথম সের্বাচ্চ 
  • দেশে করোনার উপসর্গ নিয়ে ৯২৯ জনের মৃত্যু-দৈনিক মানবজমিন
  • করোনায় আক্রান্ত ১৯২৬ পুলিশ সদস্য-দৈনিক যুগান্তর
  • এাবর ১৪ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে সারাদেশ-বাংলাদেশ প্রতিদিন
  • দেশের ৪১ ল্যাবে  এখন করোনা শনাক্ত করা হচ্ছে-কালের কণ্ঠ

ভারতের শিরোনাম:    

  • করোনা থাকবে তার মধ্যেই গ্রামবাঙলার অর্থনীতি চালু করতে হবে- মমতা-দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা
  • ভারতে করোনা সক্রমণ ছাড়াল ৭৪ হাজার, বাড়ছে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা-দৈনিক আজকাল
  • মহামারির মধ্যেও ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার ডাক-মোদির! কটাক্ষ প্রশান্ত কিশোরের-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন

পাঠক/শ্রোতা! এবারে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাব। 

কথাবার্তার বিশ্লেষণের বিষয়:

১) করোনা মহামারির মধ্যে ত্রাণ বিতরণ নিয়ে নানা অভিযোগ উঠেছে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক  ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অশুভ মহল ত্রাণ বিতরণ নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। অন্যদিকে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ত্রাণ চুরি ঠেকাতে সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দিতে হবে। আপনার মতামত কী?

২) আমেরিকা বলছে- তারা এখনও পরমাণু সমঝোতার অংশীদার আর রাশিয়া বলেছে এ দাবি হাস্যকর। আপনি কী বলবেন? 

বিশ্লেষণের বাইরে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবর:

cc

করোনা বিশ্ব

বিশ্ব করোনা পরিস্থিতির আপডেট খবর একনজরে দেখে নেই।ওয়ার্ল্ডওমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা, ২,৯৩,১১ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন, ৪৩,৫৬,৬২৮ জন। আর সুস্থ্য হয়েছেন ১৬,১০৭২৫ জন।

এপ্রিলেই যুক্তরাষ্ট্রে চাকরি হারিয়েছেন ২ কোটিরও বেশি মানুষ-

 দৈনিক যুগান্তরের এ অর্থনীতি বিষয়ক প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে,করোনা মহামারীর কারণে যুক্তরাষ্ট্রে অর্থনৈতিক বিপর্যয় নেমে এসেছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নীতি চালু হওয়ার কারণে দেশটির অর্থনীতি রীতিমতো সঙ্কটের মুখে।

করোনায় আমেরিকা

মার্কিন প্রশাসনের দেয়া তথ্যমতে, করোনা সংকটে শুধু এপ্রিলেই যুক্তরাষ্ট্রে চাকরি হারিয়েছেন ২ কোটি ৫ লাখ মানুষ। যা কুখ্যাত মহামন্দার (‘গ্রেট রিসিসন’) সময়ের কাজ খোয়ানো মানুষের সংখ্যার প্রায় তিন গুণ।সে সময় যুক্তরাষ্ট্রে কাজ হারিয়েছিল ৭৪ লাখ মানুষ। আর করোনার জেরে বেকারত্বের হার ১৪.৭ শতাংশে পৌঁছেছে, মহামন্দার পর দেশটিতে এই হার আর কখনো এত উচ্চতায় পৌঁছায়নি।করোনার প্রকোপ বাড়ার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষ চাকরি হারাচ্ছে। বেকারত্বের হার বাড়ছে দ্রুতগতিতে।

দৈনিক কালের কণ্ঠ’র শিরোনাম, আক্রান্ত হও করোনাকে হারাও –সুইডেেডনের এ নীতি শিগগিরি মানবে? 

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো তুলে ধরছি।

করোনা সক্রমণের পাশাপাশি দেশে মৃত্যুও দ্রুত বাড়ছে। বিশ্লেষকরা বলছেন গত দিন ধরে দেশে সংক্রমণ ও মৃত্যুতে ছোট লাফ দেখা যাচ্ছে। আজ মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। নতুন শনাক্ত ১,১৬২ জন।প্রথম আলো, যুগান্তরসহ প্রায় সব দৈনিকে পরিবেশিত হয়েছে খবরটি। এসব দৈনিকের অন্যান্য খবরে লেখা হয়েছে,দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ও আক্রান্তের রেকর্ড।করোনার উসর্গ নিয়ে ৯২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের একটি খবরে লেখা হয়েছে, কক্সবাজারে করোনায় আক্রান্ত এক যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে-পাওনা টাকা আদায়ের জন্য এক সুস্থ ব্যক্তিকে জড়িয়ে ধরে ঐ যুবক বলেছে, আমিও মরব- তুইও মর!

এশিয়ায় সর্বোচ্চ ঝুঁকির দিকে বাংলাদেশ-দৈনিক ইত্তেফাকের এ প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে,বিশ্ব জুড়ে এখন সবচেয়ে

এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির দিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ

বড়ো আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস। এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির দিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ। গত সাত দিনে ৪২ হাজার ২৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে সংক্রমিত হন ৫ হাজার ৭৩১ জন। এক সপ্তাহে আক্রান্তের হার ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, চলতি মে মাসের আরো ১৮ দিন বাকি আছে। করোনার অবস্থা বুঝতে জুন মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রোভিসি ও মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. রুহুল আমিন বলেন, করোনা ভাইরাস এ পর্যন্ত নয়বার চরিত্র পরিবর্তন করেছে। এ কারণে বিশ্বের গবেষকেরা এর টিকা বের করতে পারেননি। টিকা বের হওয়া অনিশ্চিত। এর কোনো ওষুধ নেই। আগামী জুন মাস না গেলে দেশের অবস্থা বোঝা যাবে না। পরীক্ষা যত বাড়ছে, আক্রান্তের সংখ্যা তত বাড়ছে। মে মাস ক্রিটিক্যাল হবে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ও করোনা মোকাবিলায় গঠিত জাতীয় টেকনিক্যাল কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. খান মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, আগামী জুন মাস কীভাবে যাবে বলা মুশকিল। মানুষের আচরণ দেখে বোঝা যায় সংক্রমণের সংখ্যা আরো বাড়বে। দেশের মানুষের সবকিছুতেই এলোমেলো ভাব। মানুষ আড্ডা দিতে পছন্দ করে। নিয়ম মানতে চায় না। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলছে না অনেকেই। তিনি বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাবের তুলনায় যেহেতু দেশে চিকিত্সার ব্যবস্থা নেই, তাই সবারই উচিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। নইলে সামনে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে।

এবার ভারতের কয়েকটি খবর তুলে ধরছি

করোনা সংক্রমণে চিনের পরেই ভারত, সারা দেশে আক্রান্ত ৭৪ হাজারের বেশি-দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকার এ শিরোনামের খবরে বলা হয়েছে,

ভারতে করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত বাড়ছে 

ভারতে  করোনা সংক্রমণ বড়সড় লাফ দিয়েছিল সোমবার। ৪,২১৩ জন যা এখনও পর্যন্ত রেকর্ড। সেই তুলনায় কম হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে আরও ৩,৫২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তার জেরে করোনা সংক্রমণের নিরিখে গোটা বিশ্বে এখন চিনের ঠিক পরবর্তী স্থানেই উঠে এল ভারত। এখনও পর্যন্ত ৭৪ হাজার ২৮১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। চিনে ওই সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৮৪ হাজার মানুষ। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে সারা দেশে মৃতের সংখ্যা এখন ২, ৪১৫ জন।

জিডিপির ১০ শতাংশ? হিসেব বলছে, বাজারে পৌঁছবে মাত্র ৫%-দৈনিক আজকালের এ খবরে লেখা হয়েছে,২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ। গড় জাতীয় উৎপাদনের ১০ শতাংশ। শুনতে ভারী ভারী লাগলেও, আসলে তা নয়। হিসেব করলে দেখা যাবে, জিডিপির মোটামুটি পাঁচ শতাংশ টাকা এবার বাজারে ঢালবে মোদি সরকার। কারণ এর আগে দু’বার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়ে গিয়েছে। দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করতে এখনও পর্যন্ত রিজার্ভ ব্যাঙ্ক বেশ কয়েকবার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। 

তবে, সরকারি সূত্রে বলা হয়েছে, চলতি বছরে ৪.‌২ লক্ষ কোটির বেশি রাজকোষ ঘাটতি আটকাতে বদ্ধপরিকর কেন্দ্র। আর দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে ২০ লক্ষ কোটির টাকার প্যাকেজ নিয়ে ধন্দ থাকছেই!

মহামারির মধ্যেও ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার ডাক! মোদিকে বেনজির কটাক্ষ প্রশান্ত কিশোরের-দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের এ শিরোনামের খবরে লেখা হয়েছে, 

করোনা মহামারিতে গোটা বিশ্ব যখন ত্রস্ত, তখন ভারতকে ঘুরে দাঁড়ানোর মন্ত্র দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি চাইছেন, করোনার এই পরিস্থিতিকে সুযোগ হিসেবে ব্যবহার করে আবার জগৎসভার শ্রেষ্ঠ আসন দখল করতে। প্রধানমন্ত্রী বলছেন, এখন ভারতকে আত্মনির্ভর হতে হবে। আত্মনির্ভর হলেই আবার বিশ্বের সবার উপরের সারিতে ভারতের অবস্থান হবে। সেই লক্ষ্যে ২০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজও ঘোষণা করেছেন তিনি।করোনা আবহে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘আত্মনির্ভরতার এই ডাককে তীব্র কটাক্ষ করে তৃণমূলের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোর বলেছেন,’হয় গোটা দুনিয়া বোকা। আর নাহয় আমরা অনেক বেশি চালাক হয়ে গিয়েছি।’ প্রশান্তের মতে, এই পরিস্থিতিতে গোটা দুনিয়া যখন করোনা নামক মহামারির বিরুদ্ধে লড়ছে তখন আত্মনির্ভরতার স্বপ্ন দেখা বোকামি।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/১৩


 

ট্যাগ

মন্তব্য