মে ২৩, ২০২০ ১৬:৪০ Asia/Dhaka
  • কথাবার্তা: আম্পান মস্ত ক্ষতচিহ্ন রেখে গেছে জনপদে

সুপ্রিয় পাঠক/শ্রোতা: রেডিও তেহরানের প্রাত্যহিক আয়োজন কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি মুজাহিদুল ইসলাম। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আজ ২৩ মে শনিবারের কথাবার্তার আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি।

বাংলাদেশের শিরোনাম:

  • করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে মৃত্যু ২০ জনের–যুগান্তর অনলাইন 
  • আম্পানে বিধ্বস্ত চিংড়ি ঘের, বেড়িবাঁধ-বিদ্যুৎ সংযোগ,ভেসে গেছে উপকূলের ঈদ আনন্দ-বাংলাদেশ প্রতিদিন
  • বিদেশফেরত কর্মীদের অর্ধেকেরই জরুরি সহায়তা প্রয়োজন- ব্রাক জরিপ-দৈনিক সমকাল
  • করাচি ট্রাজেডি: বিমান দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯৭-দৈনিক ইত্তেফাক 
  • ব্রিটিশ কোম্পনিকে কালো তালিকা ভুক্ত করার হুমকি বিজিএমইএ-বিকেএমইএর-দৈনিক কালের কণ্ঠ
  • জাফলংয়ে বিএএফর গুলিতে বাংলাদেশি নিহত-দৈনিক প্রথম আলো
  • রোহিঙ্গা-তৃতীয় দেশে প্রত্যাবাসনে রাজি ঢাকা!-দৈনিক মানবজমিন

ভারতের শিরোনাম:    

  • বেতন নেই ,কুয়োয় ঝাঁপিয়ে ৯ জনের আত্মহত্যা-দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা
  • মোদি ক্ষমতায় থাকাকালীন আর শহরে আসব না’, রাহুলকে বলেছিলেন শ্রমিকরা -দৈনিক সংবাদ প্রতিদিন
  • জোড়া সঙ্কটে মমতার নেতৃত্বের প্রশংসা মোদির-দৈনিক আজকাল
করোনাভাইরাস

পাঠক/শ্রোতা ! এবারে চলুন, বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। বিশ্ব মহামারি করোনাভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট খবর বিশেষ গুরুত্বসহ পরিবেশিত হয়ছে বিশ্ব মিডিয়ায়। অন্যদিকে বাংলাদেশ ভারতের দৈনিকগুলোতে সুপার ঘূর্ণিঝড় আম্পান পরবর্তী মৃত্যু ও ক্ষয়ক্ষতির হিসাব নিকাষ ও করোনা বিষয় হয়ে উঠেছে  প্রধান খবর।একনজরে সেসব খবর দেখে নেয়া যাক।

প্রথমেই ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ক্ষয়ক্ষতির আপডেট খবর: ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পানকে ঠেকিয়ে সুন্দরবন বিপর্যস্ত। ক্ষতচিহ্ন রেখে গেল আম্পান, মৃত্যু বেড়ে ২২-দৈনিক মানবজমিন,ইত্তেফাকসহ বেশ কয়েকটি দৈনিকের প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, আম্পান ভেঙে দিয়েছে অনেকের স্বপ্ন। প্রায় এগারশ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতির কথা প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। 

আম্পানের ক্ষত

এ প্রতিবেদনে আরও লেখা হয়েছে,দেশের বিভিন্ন এলাকায় বাঁধ, রাস্তা, ব্রিজ-কালভার্টসহ অবকাঠামোর পাশাপাশি ঘরবাড়ি, কৃষি এবং চিংড়ি ঘেরসহ মাছের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দেশের ২৫টি জেলায় প্রায় দেড় কোটি মানুষ ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার আগের দিন থেকে বিদ্যুৎহীন পড়ে। ৪০ জেলায় এর প্রভাব পড়েছে। এই ঘূর্ণিঝড় আস্পানের তাণ্ডবের চিত্রটা ছিল ভিন্ন ধরণের। উপকূলীয় অঞ্চলের বাইরে যে জেলাগুলোতে সাধারণত ঘূর্ণিঝড় হয় না, এসব জেলাতেও ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।দক্ষিণ পশ্চিমের জেলার পানের বরজ থেকে শুরু করে রাজশাহীতে মৌসুমী ফল আম এবং উত্তরের অন্য জেলাগুলোয় ধান এবং সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে এ পর্যন্ত আট জেলায় মোট ২২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।তবে কোনো  কোনো দৈনিক লিখেছে ৩২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বিশ্ব করোনা পরিস্থিতি: করোনায় প্রতিমুহূর্তে মৃত্যুর মিছিল বাড়ছে গোটা বিশ্বের ২১৩ টি দেশ এবং অঞ্চলে। দৈনিক যুগান্তরে ওয়ার্ল্ডওমিটারে দেয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ লাখ ছাড়াল। মৃত্যু ৩ লাখ ৩৮ হাজার ছাড়িয়েছে। করোনায় সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় ব্রাজিল। দৈনিক ইত্তেফাক লিখেছে, করোনার নতুন কেন্দ্রভূমি দক্ষিণ আমেরিকা বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর সুখবরে বলা হয়েছে, দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়ালে খুব ভালোভাবে এগোচ্ছে অক্সফোর্ডের করোনার ভ্যাকসিন।

মহামারি করোনাভাইরাসে বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্ত

বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি: করোনায় ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে যাচ্ছে  বাংলাদেশে। একদিনে সর্বোচ্চ ১৮৭০ জন আক্রান্ত হয়েছে।২০জনা মারা গেছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৫২ জনে। আর মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ৭৮ জন। যুগান্তরসহ প্রায় সব অনলাইন সংস্করণের খবর। প্রথম আলো লিখেছে,করোনা মোকাবেলায় এলাকায় নেই বেশিরভাগ সাংসদ। এদিকে কড়াকড়ি শিথিলের পর আবার ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। বিষয়টি উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে।

বিদ্যুতে ক্ষতি হতে পারে ৪০ হাজার ৬০০ কোটি টাকা

পাওয়ার সেলের প্রতিবেদন-করোনায় বিদ্যুতে ক্ষতি হতে পারে ৪০ হাজার ৬০০ কোটি টাকা-এ শিরেনামের প্রতিবেদনে দৈনিক সমকাল লিখেছে,করোনার কারণে তিন মাসে (এপ্রিল-জুন) বিদ্যুৎ খাতে ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ২০ হাজার ২২০ কোটি টাকা। করোনাকাল দীর্ঘ হলে আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত নয় মাসে ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ৪০ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। চাহিদা হ্রাস পাওয়ায় বিদ্যুৎ বিক্রি কম হওয়ায়, বন্ধ রাখলেও বেসরকারি কেন্দ্রগুলোর রেন্টাল চার্জ প্রদান, প্রকল্প ব্যয় বৃদ্ধিসহ উৎপাদন, বিতরণ ও সঞ্চালন খাতে এই লোকসান গুণতে হবে বিদ্যুৎ বিভাগকে। কোভিড-১৯ এর কারণে সৃষ্ট বিরূপ পরিস্থিতিতে দেশের বিদ্যুৎ খাতের সম্ভাব্য ক্ষতির এই পরিমাণ বিদ্যুৎ বিভাগের নীতি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পাওয়ার সেলের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। 

রোহিঙ্গা: তৃতীয় দেশে প্রত্যাবাসনেও রাজি ঢাকা!-দৈনিক মানবজমিনের এ প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গার ঘানি টানার ৩ বছর পূর্ণ করতে চলেছে বাংলাদেশ। ২০১৭ সালের ২৫ শে আগষ্ট মিয়ানমার থেকে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত নাগরিকদের সীমান্তে ঢল নামার ৩ মাসের মধ্যে নাটকীয়ভাবে দ্বিপক্ষীয় প্রত্যাবাসন চুক্তি সই করে নেপি'ড। এরপর অবিশ্বাস্য দ্রুততায় প্রত্যাবাসনের ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্টও সই হয়। চুক্তি মতে তাদের ফেরানোর জন্য বাস-ট্রাক, ট্রানজিট ক্যাম্পসহ উভয় পক্ষে ব্যাপক প্রস্তুতি দেখে দুনিয়া। দু'দফা সেই চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর অাওয়াজ ওঠে বিশ্ব দরবারে গিয়ে লাভ নেই, চীনের মধ্যস্থতায় হবে কার্যকর প্রত্যাবাসন! কিন্তু না, সব প্রচেষ্টা আজ ব্যর্থ প্রায়, এ অবস্থায় ঢাকা হার্ডলাইনে যেতে বাধ্য হচ্ছে- এমনটাই দাবি সেগুনবাগিচার। বলা হচ্ছে- এখন আর রাখঢাক নেই। দ্বিপক্ষীয় প্রত্যাবাসনে চাপ বাড়ানোর পাশাপাশি থার্ড কান্ট্রি বা তৃতীয় দেশে প্রত্যাবাসনেও রাজি বাংলাদেশ। 

পশ্চিবঙ্গে আম্পানে ক্ষতি

এবার ভারতের কয়েকটি খবর তুলে ধরছি: ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে আপডেট খবরে দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে, ক্ষতি প্রায় লক্ষ কোটি টাকা। মোদির প্রতিশ্রুতি হাজার কোটি টাকা। এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৬ জন। এখনও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, বিদ্যুৎ নেই। কোলকাতার চেহারা এখনও লণ্ডভণ্ড। ত্রাণ নিয়ে অসন্তোষ বিভিন্ন জেলায়। 

দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের করোনা আপডেট খবরে লেখা হযেছে, ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা রেকর্ড আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৬৫৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ১৩৭ জনের। ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১ লক্ষ ২৫ হাজার ১০১। এখন পর্যন্ত করোনার মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৩,৭২০ জন।

মোদি ক্ষমতায় থাকাকালীন আর শহরে আসব না’, রাহুলকে বলেছিলেন শ্রমিকরা সংবাদ প্রতিদিনের এ প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে,১৭ মে মানবতা দেখিয়ে দিল্লির সুখদেব বিহারের ফ্লাইওভারের কাছে পথচলতি কয়েকজন পরিযায়ী শ্রমিকের সঙ্গে দেখা করেছিলেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তাঁর সেই সাক্ষাৎ নিয়ে বিস্তর রাজনীতি হয়েছে। পরিযায়ীদের নিয়ে রাজনীতি ও নাটক করছে কংগ্রেস,  এমন অভিযোগ উঠেছে। সেই ‘নাটকের’ পূর্ণাঙ্গ ভিডিও শনিবার প্রকাশ করল কংগ্রেস।সেই ভিডিওতে দেখা যায় হরিয়ানা থেকে ঝাঁসির পথে হাঁটতে থাকা একদল পরিযায়ী শ্রমিকদের সাথে কথা বলছেন রাহুল। আর কংগ্রেস নেতাকে কাছে পেয়ে নিজেদের কষ্টের কথা, দুঃখের কথা উগরে দিলেন শ্রমিকরাও। কেউ বললেন, ‘মোদি শুধু বড়লোকদের কথা ভাবেন, গরিবদের কথা ভাবেন না।’ কেউ বললেন, ‘আমরা খাবারের জন্য কাতর আবেদন করেছি। একটা টাকাও পায়নি।কেউ বললেন, ‘মোদি ক্ষমতায় থাকাকালীন আর শহরে ফিরব না। কেউ চোখের জলে বললেন, ‘করোনা আমাদের মারেনি। পেটের জ্বালা আমাদের মারছে।’ ভিডিওটির শেষে দেখা যায়, রাহুল গান্ধী উদ্যোগ নিয়ে ওই শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দেন।# 

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/২৩
 

ট্যাগ

মন্তব্য