মার্চ ০১, ২০২১ ১৬:৩২ Asia/Dhaka
  • আনুশকা’র  মর্মান্তিক মৃত্যু: নতুন তথ্য দিল সিআইডি

প্রিয় পাঠক/শ্রোতা! ১ মার্চ সোমবারের কথাবার্তার আসরে আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতেই ঢাকা ও কোলকাতা থেকে প্রকাশিত প্রধান প্রধান বাংলা দৈনিকের গুরুত্বপূর্ণ কিছু শিরোনাম তুলে ধরছি।

বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ খবরের শিরোনাম:

  • স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা, গোটা দেশ অবরোধের হুমকি– মানবজমিন
  • বীমা জীবনঘনিষ্ট সেবা, এই সেবা যেন অন্যভাবে ব্যবহৃত না হয়-প্রধানমন্ত্রী-কালের কণ্ঠ
  • প্রেসক্লাবের নিরাপত্তা রক্ষায় আরও সজাক থাকতে হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী-ইত্তেফাক
  • লেখব মুশতাকের মৃত্যু-ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও–প্রথম আলো
  • আমার সততা নিয়ে প্রশ্ন করার সুযোগ নেই- আমীর খসরু-যুগান্তর
  • আমাকে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান-বাংলাদেশ প্রতিদিন

এবার ভারতের কয়েকটি খবরের শিরোনাম:

  • বাতিল অমিত শাহর সফর মোদির বিগ্রেডেই পাখির চোখ-পুরোদমে প্রস্তুতি চায় পদ্ম বিগ্রেড-আনন্দবাজার পত্রিকা
  • উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের ‘‌নয়’, ভারতের ঘাড়ে ‘‌দায় চাপাল’‌ হাসিনা সরকার -আজকাল
  • একুশের ভোটে তৃণমূলকে নৈতিক সমর্থন সমাজবাদী পার্টির, লিখিত বার্তা অখিলেশের-সংবাদ প্রতিদিন

শ্রোতাবন্ধুরা! এবারে চলুন বাছাইকৃত কয়েকটি খবরের বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। প্রথমে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবর।

লেখক মুশতাকের মৃত্যু-স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা, গোটা দেশ অবরোধের হুমকি-দৈনিক মানবজমিন

পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে শান্তিপূর্ণভাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছে বামপন্থি ছাত্র সংগঠনগুলো। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল, কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিচার এবং মশাল মিছিল থেকে আটক নেতাকর্মীদের মুক্তিসহ, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাগারে আটক অন্যান্য বন্দিদের মুক্তির দাবিতে তারা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে। বেলা সোয়া ১২টার দিকে ছাত্র সংগঠনগুলো সচিবালয় মোড়ে অবস্থান নিয়ে দেড়টার দিকে কর্মসূচি শেষ করে। এর আগে বেলা পৌনে ১২টার দিকে বামপন্থি ৮টি সংগঠন টিএসসির রাজু ভাস্কর্য থেকে মিছিল নিয়ে সচিবালয়ের উদ্দেশে রওনা দেয়। শিক্ষা ভবন এলাকায় আসার পর তারা পুলিশি বাধার শিকার হন। পুলিশের সঙ্গে কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তির পর বাম সংগঠনের নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে সচিবালয়ের দিকে অবস্থান নেন। তারপর সেখানেই দাঁড়িয়ে তারা ঘণ্টাখানেক  বক্তব্য, স্লোগানের মধ্য দিয়ে কর্মসুচি পালন করে। বক্তারা জানিয়েছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে। ভবিষ্যতে দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে নিয়ে বড় কর্মসূচি পালন করা হবে।

প্রয়োজনে গোটা দেশ অবরোধ করে দেয়া হবে। পরবর্তী কর্মসূচি সংবাদ সম্মেলন করে জানানো হবে।

ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বলেন, দেশে দুঃশাসন ও ফ্যাসিবাদী শাসন চলছে। যার শিকার লেখক মুশতাক। এখনও কিশোর জেলে। মশাল মিছিলে হামলা হচ্ছে। পরে আবার দোষ চাপিয়ে মামলা দিয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের জেলে পাঠানো হচ্ছে। তাই আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। আমরা জেলের তালা ভেঙে বন্দিদের মুক্ত করবো। তিনি বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নামে একটি বর্বর, কুখ্যাত আইন করা হয়েছে যা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। যারাই কথা বলছে, মত প্রকাশ করছে তারা রাজাকার হচ্ছে। আমরা এই আইন বাতিলের জন্য প্রয়োজনে জীবন দিবো।

বিল্পবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ইকবাল কবির বলেন, আজ ৯টি সংগঠন আমরা একত্রিত হয়েছি। আমরা ৮ জন বন্দির মুক্তি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও লেখক মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবাদ জানাতে এসেছি। কারাগারে মুশতাক মারা গেলেন। কারাগারে লেখা থাকে রাখিবো নিরাপদ, দেখাবো আলোর পথ। কিন্তু কি আলোর পথ আপনারা দেখালেন? আমরা পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চাই না। কারণ এই পুলিশ এত অপকর্ম করেছে তাদের কাছে কিছু চাওয়ার নাই। পুলিশ এখন ভোট চুরিতে সহযোগিতা করে। শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা করে। পাহাড়ের এক ওসি অপরাধের আস্তানা গড়ে তুলে। তিনি বলেন, এই আওয়ামী লীগ ৭৩ সালে ছাত্রদের দিয়ে ব্যালট চুরি করিয়েছে। নৌকা মার্কায় ভোট না দেয়ায় এক নারীকে ধর্ষণ করেছে। তিনি বলেন, আমরা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী কর্মসূচি ঠিক করবো। আমাদের সমন্বিতভাবে আন্দোলন করে যাবো।

বীমা পদ্ধতির আধুনিকায়নে প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর-ইত্তেফাক

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বীমা পদ্ধতির আধুনিকায়নে প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চাই, মানুষ বীমা সম্পর্কে আরও আস্থাশীল হোক। এতে তারা যেন সুফলটা ভোগ করতে পারে। সেজন্য বীমা পদ্ধতির আধুনিকায়ন ও যাবতীয় আইন করে দিয়েছি।’সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় বীমা দিবস-২০২১’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বীমার প্রিমিয়াম জমা দেওয়া ও ক্ষতি নিরূপণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার এবং গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বীমায় গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। বীমার দাবি পূরণে সতর্ক থাকতে হবে। গ্রাহকের পাওনা সহজে পাওয়ার বিষয়ে যত্নবান হতে হবে। পাশাপাশি আর্টিফিশিয়াল ক্ষতি দেখিয়ে কেউ যেন বীমা দাবি করতে না পারে, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের দেশে এই সমস্যা আছে। একটা সুবিধার ব্যবহারের চেয়ে অপব্যবহার করতে চায় অনেকে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। আমি হাতেনাতে ধরতে পেরেছি বলে বললাম। বীমা জীবন ঘনিষ্ঠ সেবা। এই সেবাকে যাতে অন্যভাবে ব্যবহার করতে না পারে, খেয়াল রাখতে হবে। অবশ্য এটা এখন অনেকে কমে গেছে।’

বলির পাঁঠা হয়েছি আমি: সামিয়া রহমান-সমকাল

গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির অভিযোগে পদাবনতি দেওয়ার ঘটনাকে ষড়যন্ত্রমূলক দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সামিয়া রহমান। তার দাবি, তাকে অন্যায়ভাবে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে। বলির পাঁঠা হতে হয়েছে তাকে।সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

সামিয়া রহমান বলেন, বলির পাঁঠা হযেছি আমি। ট্রাইব্যুনাল নিজে বলেছে, ন্যায় বিচার হয়নি। তারা এমন সুপারিশ করেনি। সামিয়া ন্যায় বিচার পায়নি। গবেষণায় নকলের অভিযোগে পদাবনতি ষড়যন্ত্রমূলক। ক্ষমতার বলে যে যার মতো তথ্য দিচ্ছে। এগুলো মিথ্যা, বানোয়াট সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা।

এরআগে গত ২৮ জানুয়ারি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এই শিক্ষককে সহযোগী অধ্যাপক থেকে এক ধাপ নামিয়ে সহকারী অধ্যাপক করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট। গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির শাস্তি হিসেবে এই সিদ্ধান্ত বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

প্রেস ক্লাবে পুলিশ চরম ধৈর্য্যের পরিচয় দিয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী-কালের কণ্ঠ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, আমাদের পুলিশ কোনোদিন প্রেস ক্লাবের ভেতরে ঢোকে না। কিন্তু গতকাল যেভাবে ইটপাটকেল ছুঁড়ছিল তখন দু-একজন হয়তো ঢুকেছে। সাধারণত পুলিশ ঢুকে না। যেভাবে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও মারামারির সৃষ্টি হয়েছিল সেখানে উচিত ছিল মারামারি না করা। চরম ধৈর্য্যের সাথে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে পুলিশ।

প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের কর্মসূচি পণ্ড

এদিকে প্রেসক্লাবে সংঘর্ষে- বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর নামে মামলা করা হয়েছে। এর বাইরে অজ্ঞাতনামা আরও ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আনুশকা’র মৃত্যু-সেক্সটয় ব্যবহার করেছিল দিহান-মানবজমিন

আনুশকা-দিহান

অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয়েছে মাস্টারমাইন্ডের শিক্ষার্থী আনুশকা নুর আমিনের। সেক্সটয় (ফরেন বডি) ব্যবহারের কারণেই অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণ হয় বলে জানিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। রাজধানীর কলাবাগানে কথিত বয়ফ্রেন্ড তানভীর ইফতেখার দিহানের বাসায় ধর্ষণের পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু ঘটে আনুশকার। গতকাল দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি’র সদর দপ্তরে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সিআইডি। বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে সিআইডি’র সাইবার ক্রাইম কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সেন্টারের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কামরুল আহসান বলেন, নির্যাতনের সময় মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের ওই শিক্ষার্থীর শরীরে এক ধরনের ফরেন বডি বা সেক্সটয় ব্যবহার করা হয়েছিল। ধর্ষণের ফলে মৃত্যুর ঘটনায় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী জানা গেছে, বিকৃত যৌনাচারের কারণে তার অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণেই মারা যায় ওই শিক্ষার্থী। ওই শিক্ষার্থীর ময়নাতদন্তের পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন পেতে আরো কিছুদিন সময় লাগবে বলে জানান তিনি।

অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কামরুল আহসান বলেন, ইতিমধ্যে ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসক জানিয়েছেন, নিহত আনুশকার শরীরে নির্যাতনের সময় সেক্সটয়ের (ফরেন বডির) উপস্থিতি ছিল। এ ঘটনায় সিআইডি’র ডিএনএ টেস্ট প্রক্রিয়া এখনো চলছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দিহানের ব্যবহৃত ফরেন বডির উৎস খুঁজতে গিয়ে ছয় জনকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি।

গত শনিবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মিরপুরের পল্লবী এলাকা থেকে চক্রের মূলহোতা মো. মেহেদী হাসান ভূঁইয়া ওরফে সানি (২৮), রেজাউল আমিন হৃদয় (২৭), মীর হিসামউদ্দিন বায়েজিদ (৩৮), মো. সিয়াম আহমেদ ওরফে রবিন (২১), মো. ইউনুস আলী (৩০), আরজু ইসলাম জিম’কে (২২) গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে এ সময় অসংখ্য সেক্সটয়, পাঁচটি মোবাইল ফোন, একটি ল্যাপটপ এবং বিভিন্ন কোম্পানির নয়টি সিমকার্ড জব্দ করা হয়। সংঘবদ্ধ এ চক্রটির মূল টার্গেট কিশোর এবং ত্রিশোর্ধ্ব বয়সীরা। তাদেরকে টার্গেট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে সেক্সটয় বিক্রি করতো চক্রটি। তাদের স্থায়ী কোনো দোকান নেই। অনলাইনে দেয়া মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে তাদের কাছ থেকে এই সেক্সটয় ক্রয় করে থাকেন ক্রেতারা।

সিআইডির এই অতিরিক্ত ডিআইজি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে সেক্সটয়ের বিজ্ঞাপন দিতো এই চক্রটি। যারা নিঃসঙ্গ জীবনযাপন করছেন, সেইসঙ্গে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্রেতা হিসেবে টার্গেট করতো চক্রটি। শিক্ষার্থীর মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করতে গিয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থেকে ইতিমধ্যে এই চক্রের মূলহোতাসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডির সাইবার ইনভেস্টিগেশন টিম।

সিআইডির এই কর্মকর্তা বলেন, সিআইডি’র সাইবার মনিটরিং এবং সাইবার ইনভেস্টিগেশন টিম ব্যাপক অনুসন্ধানে একাধিক সংঘবদ্ধ চক্রের সন্ধান পায়। এই চক্রগুলো নিজেদের পরিচয় গোপন রেখে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজে যৌন উত্তেজক বিভিন্ন পণ্যের ছবি এবং ভিডিওসহ বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। সাইবার মনিটরিং এবং ইনভেস্টিগেশন টিম এ ধরনের একাধিক ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেইজকে দীর্ঘদিন অনুসরণ করে অবশেষে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়। বিদেশ থেকে বৈধ পণ্য আমদানির আড়ালে এসব নিষিদ্ধ পণ্য অবৈধভাবে দেশে আনতো তারা। পরবর্তীতে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে চটকদার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে উচ্চমূল্যে বিক্রি করা হতো এই টয়। বিক্রির জন্য ডিজিটাল প্লাটফর্ম হিসেবে লাইকি, টিকটক ব্যবহার করে গ্রুপ তৈরি করে ডিজেপার্টি, হোটেল, রেস্টুরেন্টের আড়ালে এ ধরনের কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল তারা। এসব নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রির আর্থিক লেনদেন করা হতো বিকাশ, নগদ ও রকেটসহ একাধিক মাধ্যমে।

অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে আনুশকার মৃত্যু হয়। এ ধরনের ঘটনায় তরুণ সমাজের বিপথগামীতা চিত্র স্পষ্ঠভাবে ফুটে ওঠে। প্রশ্ন ওঠে মূল্যবোধের অবক্ষয়ের, প্রশ্ন ওঠে সচেতনাবোধ নিয়ে। তরুণ সমাজ দেশের ভবিষ্যত তরুণ প্রজন্ম যদি এভাবে নষ্ট হতে থাকে তাহলে গোটা রাষ্ট্রে তার প্রভাব পড়বে বলে মনে করেন সমাজ বিশেষজ্ঞরা।

এবার ভারতের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিস্তারিত:

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক খবরে দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা লিখেছে,বাতিল অমিত শাহর সফর মোদির বিগ্রেডেই পাখির চোখ-পুরোদমে প্রস্তুতি চায় পদ্ম বিগ্রেড।

নীলবাড়ি দখলের লক্ষ্যে বিজেপি-র শেষ পর্বের লড়াই শুরু আগামী রবিবার। সেই রবিবার, ৭ মার্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ব্রিগেড সমাবেশ দিয়েই শুরু হবে পদ্মশিবিরের প্রচার। তার আগে মঙ্গল ও বুধবার অমিত শাহর আসার কথা ছিল রাজ্যে। দু’দিনই মূলত তিনি কলকাতায় থাকবেন বলে ঠিক ছিল। কিন্তু শেষমুহূর্তে তা বাতিল হয়ে গেল। কারণ, মোদীর ব্রিগেড সমাবেশকে ‘চূড়ান্ত সফল’ করতে গোটা সপ্তাহটাই নিরবচ্ছিন্ন ভাবে দিতে চায় বিজেপি।

উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের ‘‌নয়’, ভারতের ঘাড়ে ‘‌দায় চাপাল’‌ হাসিনা সরকার-আজকাল

মাঝ সমুদ্র থেকে উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ‘‌ফেরাতে চায় না’‌ বাংলাদেশ। তাঁরা বাংলাদেশের নাগরিক নন। মায়ানমারের নাগরিক। স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন সে দেশের বিদেশমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। 

সম্প্রতি আন্দামান সাগরে রোহিঙ্গা–ভর্তি জাহাজের ইঞ্জিন খারাপ হওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছিলেন যাত্রীরা। শেষমেশ ভারতীয় কোস্ট গার্ডের দু’‌টি জাহাজ গিয়ে উদ্ধার করেছে ওই রোহিঙ্গা যাত্রীদের। খবর মেলে, আট যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে এবং একজন নিখোঁজ। তারপরই ভারতের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, ওই রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। 

জবাবে বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের সমুদ্র এলাকা থেকে প্রায় ১,৭০০ কিলোমিটার দূরে ওই রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁদের দায় বাংলাদেশ সরকার নেবে না। ভারতও পাল্টা বার্তা দিয়েছে, যদিও বাংলাদেশের তরফে তার জবাব সামনে আসেনি এখনও। চলতি মাসের শেষের দিকে বাংলাদেশ সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার আগে রোহিঙ্গা দায়ভার নিয়ে নিয়ে দু’‌দেশের মধ্যে কূটনৈতিক স্তরে জটিলতা তৈরি হতে পারে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

একুশের ভোটে তৃণমূলকে নৈতিক সমর্থন সমাজবাদী পার্টির, লিখিত বার্তা অখিলেশের-সংবাদ প্রতিদিন

বঙ্গ বিধানসভা ভোটে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে  নৈতিক সমর্থন জানাল সমাজবাদী পার্টি। সোমবার এই মর্মে বার্তা পাঠিয়েছেন সপা প্রতিষ্ঠাতা তথা মুলায়মপুত্র অখিলেশ যাদব। সোমবার অখিলেশ এই মর্মে চিঠিও পাঠিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সিকে। জানিয়েছেন, রাজ্যে বিজেপি বিরোধী লড়াইয়ে তৃণমূলের পাশেই রয়েছে সমাজবাদী পার্টি। অখিলেশের চিঠি পেয়ে খুশি তৃণমূল নেতৃত্ব।

ভিক্ষা করে দুটো ফ্ল্যাট, মাসে আয় ৭৫ হাজার টাকা-কোলকাতা কথনের এ প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে,

মুম্বাইয়ের ভিলে পারলেতে সকাল-সন্ধ্যা তিনি হাত পাতেন মানুষের কাছে। ভিক্ষা করাই তাঁর বৃত্তি,  চাকরি। মধ্যবয়স্ক এই ভরত জৈন ভারতীয় ভিখারীদের মধ্যে কুলশ্রেষ্ঠ। শুধু ভিক্ষা করে মাসে তাঁর আয় পঁচাত্তর হাজার টাকা। সত্তর লক্ষ টাকা দিয়ে দুটো ফ্ল্যাট কিনেছেন। ল্যাপটপ চালাতে সিদ্ধহস্ত এই ভিক্ষুক বললেন,  লজ্জার কি আছে।  অন্য চাকরির মতো এটাও আমার পেশা। ভিক্ষা চাইবার অভিনব কলাকৌশল আমাকে আয়ত্ত করতে হয়েছে। এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে কলকাতার লক্ষ্মী।

দিনে আয় একহাজার টাকা করে। মাসিক আয় তিরিশ হাজার। বারো বছর বয়সে ভিক্ষাবৃত্তি শুরু। এখন বয়স চৌষট্টি। লক্ষ্মী বললেন,  ভাগ্যিস আমাদের পেশায় রিটায়ারমেন্ট নেই।ভরত জৈন একটা গাড়ি কেনার কথা ভাবছেন! কিন্তু, গাড়ি চালিয়ে এসে ভিক্ষা চাইলে কেউ কি আর দেবে? ভরতের সাফ উত্তর, চালিয়ে আসবো কেন? ড্রাইভার স্পট এর কিছু দূরে নামিয়ে দেবে। লোকে সোফার নিয়ে কাজে আসে না?#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/১

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।
 

ট্যাগ