এপ্রিল ০৬, ২০২১ ১৬:০৫ Asia/Dhaka

নাসির মাহমুদ: শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। আশা করছি সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। প্রতি সপ্তার মতো আজও চিঠির ঝাঁপি নিয়ে হাজির হয়েছি আমি নাসির মাহমুদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: চিঠিপত্রের দিকে নজর দেয়ার আগে আমি একটি বাণী শোনাতে চাই। আমিরুল মোমেনিন হযরত আলী (আ.) বলেছেন, "জুলুম পা-কে বিপথে নিয়ে যায়, নেয়ামতসমূহকে অপহরণ করে এবং জাতিকে ধ্বংস করে।"

আকতার জাহান: আমরা সবাই জুলুম থেকে বিরত থাকব- এ কামনা করে চিঠিপত্রের দিকে নজর দিচ্ছি।

আসরের প্রথম চিঠিটি এসেছে বাংলাদেশের নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার সেতু রেডিও ফ্যান ক্লাব থেকে আর পাঠিয়েছেন ক্লাব সভাপতি সুলতান মাহমুদ সরকার। তিনি লিখেছেন, ‘গল্প ও প্রবাদের গল্প অনুষ্ঠানে 'ডালের আগায় বসে গোড়া কাটা' গল্পটি আমাদের ভাবনার জগতে দোলা দেয়। আমাদের চারপাশে এরকম অনেক লোক আছে যারা নিজের বুদ্ধি বিবেচনাকে নির্বুদ্ধিতায় রূপ দেয়। শুধু একজন চোর নয় বরং অনেক মানুষ আছে যারা ফার্সি প্রবাদকে সত্যিতে পরিণত করে। বাংলায় একটি প্রবাদ আছে ‘গাছের গোড়া কেটে আগায় পানি দেওয়া’ তার মানে হলো অনেক মানুষ আছে গোপনে সর্বনাশ করে উপরে সান্ত্বনা দেয়। এরকম ব্যক্তির ক্ষেত্রে এই প্রবাদ বাক্যটি প্রযোজ্য। অনুষ্ঠানটি থেকে প্রবাদ বাক্যের সূচনা ইতিহাস শোনার পাশাপাশি আমাদের জ্ঞানকেও সমৃদ্ধ করছি। ধন্যবাদ রেডিও তেহরান বাংলা অনুষ্ঠানকে এই ধরণের সুন্দর একটি অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য।

নাসির মাহমুদ: গল্প ও প্রবাদের গল্প অনুষ্ঠানটি আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। আশা করি আমাদের অন্যান্য অনুষ্ঠান সম্পর্কেও লিখবেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলার আলী সাহারদির উৎস ডিএক্স কর্ণার থেকে এইচ এম তারেক পাঠিয়েছেন এবারের চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, ‘আমি রেডিও তেহরানের বা্ংলা অনুষ্ঠান নিয়মিত শুনি স্মার্ট ফোনে। ‘আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল’ অনুষ্ঠানের ৫ম পর্বে সুসন্তান গড়ে তোলার ক্ষেত্রে উত্তরাধিকারগত বৈশিষ্ট্য, স্বাধীন ইচ্ছা এবং যথাযথ শিক্ষা বা প্রশিক্ষণের গুরুত্ব সম্পর্কে জেনে উপকৃত হলাম।’

আশরাফুর রহমান: ভাই এইচ এম তারেক, ‘আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল’ অনুষ্ঠান থেকে উপকৃত হচ্ছেন খুশি হয়েছি। আশা করি এভাবেই আমাদের বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত জানাবেন।

বাংলাদেশের পর এবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে ভিআরএল ক্লাব থেকে আসা একটি চিঠির দিকে নজর দিচ্ছি। এটি পাঠিয়েছেন এস এম জাকির হোসেন।

তিনি লিখেছেন, গত ১০ মার্চ বহরমপুর গ্রান্ড হলে মুর্শিদাবাদ বেতার পরিবারের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। এতে ১৪০ জন বেতারবন্ধু উপস্থিত হয়েছিল। রেডিও তেহরানের একনিষ্ঠ শ্রোতা নাজিম উদ্দিন ভাই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি। কিন্তু আমাকে রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠানসুচি বিতরণের দায়িত্ব দিয়েছিলেন। এই মিলনমেলায় শ্রোতাদের সঙ্গে দেখা হয়ে কতইনা আনন্দ উপভোগ করেছি যা ভাষায় প্রকাশ যাবে না।  

সবশেষে জাকির ভাই পশ্চিম বাংলায় রেডিও তেহরানের একটি শ্রোতা সম্মেলন আয়োজন করার অনুরোধ করেছেন।

আকতার জাহান: ভাই জাকির হোসেন, মুর্শিদাবাদ বেতার পরিবারের মিলনমেলার খবরটি জানানোয় আপনাকে ধন্যবাদ। সেইসাথে অনুষ্ঠানসূচি বিতরণের উদ্যোগ নেয়ায় নাজিম উদ্দিন ভাইয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আর পশ্চিমবঙ্গে শ্রোতা সম্মেলনে অনুরোধটি আমাদের বিবেচনায় রয়েছে।

বাংলাদেশের রাজবাড়ী জেলার খোশবাড়ী গ্রামের রংধনু বেতার শ্রোতা সংঘের সভাপতি শাওন হোসাইন পাঠিয়েছেন এই মেইলটি। 

তিনি লিখেছেন, “রেডিও তেহরান থেকে বর্তমানে যে সকল অনুষ্ঠান প্রচার হচ্ছে তা অত্যন্ত সময়োপযোগী ও বস্তুনিষ্ঠ। বিশেষ করে কুরআনের আলো, আদর্শ মানুষ গড়ার কৌশল ও রংধনু আসর অত্যন্ত শিক্ষণীয়। এককথায় বলা যায়, রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠান আমাদের সুন্দর সমাজ বির্নিমাণ ও আদর্শ জাতি গঠনে সহায়ক ভূমিকা রাখছে। তাই সকলের প্রতি আমার আহ্বান শুধু নিজে নয় পরিবারের সকলে মিলে রেডিও তেহরানের অনুষ্ঠান শুনব ও অন্যদের শুনতে উৎসাহিত করব যা আমাদের সামাজিক অবক্ষয় রোধ ও সুস্থ সুন্দর জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।”

নাসির মাহমুদ: রেডিও তেহরান সম্পর্কে চমৎকার মতামতের জন্য শাওন হোসাইন ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আমরা বিভিন্ন বিষয়ে সরাসরি মতামত জানব বাংলাদেশি শ্রোতাবন্ধু এমএইচ সোহেলের সঙ্গে। তিনি একজন লেখক ও মানবাধিকারকর্মী।

আশরাফুর রহমান: কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহাদত হোসেন লিখেছেন পরের চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, স্বাস্থ্যবিষয়ক অনুষ্ঠান স্বাস্থ্যকথা রেডিও তেহরানের শ্রোতাদের কাছে খুবই জনপ্রিয়। যেসব বিষয় সচরাচর আলোচনা করা হয় না, সেগুলো নিয়ে আলোচনা করে রেডিও তেহরান শ্রোতাদেরকে সচেতন করে তোলে, রোগমুক্তির উপায় জানিয়ে দেয়। এছাড়া আলোচনা হয় সহজ-সরল ভাষায়, ফলে কারো বুঝতে অসুবিধা হয় না।  

৩ মার্চ স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠানে দাদ বা দাউদ সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. তৌহিদুর রহমানের আলোচনার প্রশংসা করেছেন এ শ্রোতা ভাই।

আকতার জাহান: স্বাস্থ্যকথা অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামতসমৃদ্ধ চিঠিটির জন্য শাহাদত ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের দুর্গ জেলার পরিবারবন্ধু এসডব্লিউএল ক্লাবের সভাপতি আনন্দ মোহন বাইন লিখেছেন এই চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, রেডিও তেহরানের জন্মলগ্ন থেকেই এ বেতারের অনুষ্ঠান শুনে আসছি। বিশ্বসংবাদ ও দৃষ্টিপাত  অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা সঠিক খবর জানতে পারি। অনেক রেডিও স্টেশন একপক্ষের কথা বলে কিন্তু রেডিও তেহরান সব সময় দুই পক্ষের কথা তুলে ধরে, এটাই এ বেতারের প্রধান বৈশিষ্ট্য।

রংধনু আসরের প্রশংসা করে আনন্দমোহন বাইন লিখেছেন, সবার প্রিয়, সব বয়সের শ্রোতাদের ভালোলাগার অনুষ্ঠান রংধনু। এ অনুষ্ঠানের একটি পর্বে মা-বাবার প্রতি সদাচরণ সম্পর্কে এক গাভী ও তার বাছুরের ভালোবাসার চমৎকার একটি গল্প প্রচারিত হয়েছে। এমন গল্প সবাইকে কিছু না কিছু জানতে সাহায্য করে।

নাসির মাহমুদ: রংধনু আসর এবং বিশ্বসংবাদ সম্পর্কে মতামত জানানোর জন্য আনন্দ মোহন বাইন আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করি আবারো চিঠি লিখবেন।

কুয়েত সিটি থেকে শাহজালাল হাজারী পাঠিয়েছেন পরের চিঠিটি। লিখেছেন,  আজ কতটা মাস, কতটা দিবস ও রজনী অতিক্রান্ত হওয়ার পর আমার প্রিয় আঙ্গিনা রেডিও তেহরান বাংলা বিভাগে লিখতে বসলাম জানি না। ঠিক আমি লিখতে বসলাম না রেডিও তেহরানের হরেক ও বৈচিত্র্যময় নানান শিক্ষা ও সুস্থ বিনোদনে ভরপুর সুন্দর উপস্থাপনা আমাকে লিখতে বাধ্য করেছে।

১৫ মার্চ প্রচারিত প্রিয়জন আসরটি ছিল এক কথায় অনবদ্য আর শ্রোতাদের উপস্থিতি ছিল আশাব্যঞ্জক। অনুষ্ঠান সম্পর্কে শ্রোতাদের  মতামত, পরামর্শ ও নানান জিজ্ঞাসার জবাব শুনে আবারো প্রমাণিত হয়েছে প্রিয়জন পরস্পরের যোগাযোগের এক সেতুবন্ধন। সুন্দর ও শুদ্ধ উচ্চারণ আর সাবলীল উপস্থাপনা প্রতিনিয়ত আমাকে কাছে টানে এবং আমি বিমোহিত হই। বিশেষ করে ছোট শিশু কিশোরদের আসর রংধনুটি যেভাবে মনের মাধুরী আর মাধুর্য মিশিয়ে উপস্থাপন করা হয়, যেকোনো শ্রোতার হৃদয়ে সহজেই দাগ কেটে যায়।

আশরাফুর রহমান: ভাই শাহজালাল হাজারী, চমৎকার মতামতের জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করি নিয়মিত লিখবেন।

আসরের শেষ চিঠিটি এসেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুপী থেকে। আর পাঠিয়েছেন হাফিজুর রহমান। তিনি লিখেছেন, "বর্তমানে মার্কিন প্রশাসনসহ বিশ্বের বেশ কিছু ইসলামবিরোধী রাষ্ট্র মুসলিমবিদ্বেষী হিংসা ছড়ানোর জন্য একটার পর একটা সুপরিকল্পিত ও সাজানো ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে। পুরোটাই অভিনয়। এই সব মুখোশধারীদের মুখোশ যে কবে আর কিভাবে খুলবে তা আল্লাহই জানে। মুসলিমবিদ্বেষী এসব ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তুলতে হবে। আর তার জন্য ইরান আর রেডিও তেহরান আমাদের অনুপ্রেরণা। বর্তমানে রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠানের বিন্যাস খুবই চমৎকার। প্রত্যেকটি পরিবেশনা আমাদের মুগ্ধ করে। আমাদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করে চলেছে রেডিও তেহরান। আন্তরিক ধন্যবাদ প্রত্যেক ঘটনাকে সঠিকভাবে আমাদের কাছে তুলে ধরার জন্য।

আকতার জাহান: ভাই হাফিজুর রহমান, ইরান ও রেডিও তেহরান সম্পর্কে মতামতসমৃদ্ধ চিঠিটির জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আশা করি আমাদের অনুষ্ঠানমালা সম্পর্কেও মতামত জানাবেন।

নাসির মাহমুদ: অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে কিছু চিঠির প্রাপ্তিস্বীকার করছি- সময়ের অভাবে যাদের চিঠি পড়া আজ সম্ভব হচ্ছে না।

  •  বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ থেকে শরিফা আক্তার পান্না
  • রংপুরের পীরগাছা উপজেলার সৈয়দপুর গ্রাম থেকে এ, টি, এম, আতাউর রহমান রঞ্জু।
  • সোহেল রানা হৃদয় ঢাকা সেনানিবাস থেকে
  • ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার ইসলামপুর থেকে রাজীব দত্ত
  • এবং দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট থেকে বিধান চন্দ্র সান্যাল

আশরাফুর রহমান: এবারে কয়েকজন ডিএক্সার বন্ধুর নাম-ঠিকানা জানিয়ে দিচ্ছি যারা আমাদের অনুষ্ঠান শুনে শ্রবণমান রিপোর্ট পাঠিয়েছেন।

  • ভারতের ছত্তিশগড়ের ভিলাই থেকে আনন্দ মোহন বাইন
  • পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ থেকে এসএম নাজিমউদ্দিন
  • দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে রতন কুমার পাল ও বিধান চন্দ্র সান্যাল।
  • বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ থেকে শরিফা আক্তার পান্না ও শাহাদত হোসেন
  • এবং টাঙ্গাইল থেকে আবু তাহের।

আকতার জাহান: তো যারা অনুষ্ঠান শোনার পাশাপাশি কষ্ট করে শ্রবণমান রিপোর্ট পাঠিয়েছেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

নাসির মাহমুদ: অনুষ্ঠান থেকে বিদায় নেয়ার আগে আজও রয়েছে একটি গান। গানের কথা লিখেছেন ইমতিয়াজ মেহেদি হাসান, সূর করেছেন হাবিব মোস্তফা আর গেয়েছেন ফকির আলমগীর।  

আশরাফুর রহমান:  আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৬

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ