এপ্রিল ১৭, ২০২১ ১৬:৪২ Asia/Dhaka

শ্রোতা/পাঠক! ১৭ এপ্রিল শনিবারের কথাবার্তার আসরে স্বাগত জানাচ্ছি আমি গাজী আবদুর রশীদ। আশা করছি আপনারা প্রত্যেকে ভালো আছেন। আসরের শুরুতে ঢাকা ও কোলকাতার গুরুত্বপূর্ণ বাংলা দৈনিকগুলোর বিশেষ বিশেষ খবরের শিরোনাম তুলে ধরছি। এরপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবরের বিশ্লেষণে যাবো। বিশ্লেষণ করবেন সহকর্মী সিরাজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ খবরের শিরোনাম:

  • বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের বিক্ষোভ, গুলিতে নিহত ৪- প্রথম আলো
  • ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের সুবর্ণজয়ন্তী আজ-ইত্তেফাক
  • প্রথম দিনেই বাতিল প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ফ্লাইট-বিক্ষোভ-কালের কণ্ঠ
  • বাসার দরজা ভেঙে অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার-যুগান্তর
  • গ্রেপ্তার ৯-নকল কিটে হতো করোনা, এইড্‌স ক্যান্সারের টেস্ট-মানবজমিন
  • ওবায়দুল কাদেরের বাড়িতে ককটেল হামলা, ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ৩-সমকাল
  • সহিংসতার দায় হেফাজতের উপর চাপনো –উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপানোর নামান্তর-মাওলানা মামুনুল হক-বাংলাদেশ প্রতিদিন

এবার ভারতের কয়েকটি খবরের শিরোনাম:

  • মুখ্যমন্ত্রীর ফোন ট্যাপ হলো কীভাবে? মমতার অডিও ইস্যুতে পাল্টা প্রশ্ন তৃণমূলের-সংবাদ প্রতিদিন
  • শীতলকুচির পর দেগঙ্গাতেও চলল গুলি! কেন্দ্রীয় বাহিনী কোনও গুলি চালায়নি জানাল কমিশন -আজকাল
  • বাংলার সংস্কৃতি ভুলবেন না: ‘দিদির গালি, দিদির ভাষা’ নিয়ে খোঁচা মোদীর-আনন্দবাজার পত্রিকা

শ্রোতাবন্ধুরা! শিরোনামের পর এবার দু’টি বিষয়ের বিশ্লেষণে যাব। 

কথাবার্তার বিশ্লেষণের বিষয়:

১. চট্টগ্রামে বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছে। কীভাবে দেখছেন ঘটনাটিকে?

২. বন্দুক-সহিংসতা আমেরিকায় মহামারি আকার ধারণ করেছে- একথা স্বীকার করেছেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। প্রশ্ন হচ্ছে- কেন এমন হলো?

বিশ্লেষণের বাইরে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি খবর

বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের বিক্ষোভ, গুলিতে নিহত ৫-প্রথম আলো

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বেতন-ভাতার দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভে গুলির ঘটনায় পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সওগাত ফেরদৌস প্রথম আলোকে বলেন, ‘আহত অবস্থায় অনেককে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। এর মধ্যে চারজন মারা গেছেন।’ তিনি জানান, নিহত চারজন হলেন আহমেদ রেজা (১৮), রনি (২২), শুভ (২৪) ও মো. রাহাত (২২)। আহত ব্যক্তিদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।  

পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হাবিবুল্লাহ (১৯) নামের একজন মারা যান। বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শফিউর রহমান মজুমদার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (আনোয়ারা সার্কেল) হুমায়ূন কবির বিক্ষোভের ঘটনায় শ্রমিকদের মৃত্যুর খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন এসএস পাওয়ার লিমিটেড ও চীনের দুটি প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগে গণ্ডামারা ইউনিয়নে এই কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপন করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার ৯-নকল কিটে হতো করোনা, এইড্‌স ক্যান্সারের টেস্ট-মানবজমিন

রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও বনানী থেকে অননুমোদিত মেডিকেল ডিভাইস আমদানি, ভেজাল ও  মেয়াদোত্তীর্ণ মেডিকেল টেস্টিং কিট এবং রি-এজেন্টে জালিয়াতি চক্রের মূল হোতাসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এ সময় চার ট্রাকে প্রায় ১২ টন  পণ্য জব্দ করা হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ ও নকল কিট এবং রি-এজেন্ট সনদ জব্দ করা হয়। এসব কিট ও রি-এজেন্ট করোনা, এইডস, নিউমোনিয়া, ক্যান্সার ও ডায়াবেটিস রোগের প্যাথলোজিক্যাল টেস্টের জন্য ব্যবহার করা হতো। এমন কি ‘এইডস’ রোগ নির্ণয়ের জন্য নির্ধারিত প্যাথলোজিক্যাল টেস্ট কিট ও রি-এজেন্টও রয়েছে এই তালিকায়, যা তাদের সংরক্ষণে মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় পাওয়া যায়।

হাহাকার-মানবজমিন

করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে সিট নেই

সর্বত্র হাহাকার। হাসপাতালে ভর্তির জন্য হাহাকার যেমন, তেমন ভর্তিকৃত রোগীদের হাহাকার আইসিইউ’র জন্য। হাসপাতাল থেকে হাসপাতাল ঘুরেও মিলছে না সিট। কোথায় শয্যা খালি নাই। এম্বুলেন্স নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটতে ছুটতে ক্লান্ত রোগীর স্বজনরা। আবার শয্যা পাওয়ার আগেই অনেক রোগী এম্বুলেন্সেই মারা যাচ্ছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও অসহায়। শয্যা দিতে না পেরে তাদেরও মনে হাহাকার।চোখের সামনে রোগীর করুণ আকুতি তাদের হৃদয়কেও তছনছ করে দিচ্ছে। কিন্তু কিছুই যে করার নেই। একটি আইসিইউ শয্যা পাওয়ার জন্য হাহাকার করছেন শত শত রোগীর স্বজনরা। ঢাকার বাইরে থেকে আসা অনেক জটিল রোগীও আইসিইউ না পেয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। অন্যদিকে বেসরকারি হাসপাতালে ব্যয়বহুল সেবাও নিতে পারছেন না বেশির ভাগ মানুষ। বেসরকারি হাসপাতালের সাধারণ ওয়ার্ডেও ১০-১২ দিন করোনা চিকিৎসা নিলে লাখ টাকার উপরে বিল আসছে। গরিব অসহায় রোগীর জন্য এ অর্থ ব্যয় করা দুঃসাধ্য। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, সংক্রমণ বাড়ায় রোগীদের অবস্থা জটিল হচ্ছে। রোগীরা হাসপাতালমুখী হওয়ায় সব ধরনের শয্যা সংকট তৈরি হয়েছে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ উপজেলা-জেলা পর্যায়ে করোনা চিকিৎসার সুযোগ না পেয়ে ছুটে আসছে ঢাকায়। এতে করে ঢাকার হাসপাতালগুলোতে চাপ বাড়ছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে করোনার প্রাথমিক ও মধ্যম মানের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারলে অনেক রোগীদের ঢাকায় আসার প্রয়োজন হবে না্‌। এছাড়া সরকারি ব্যবস্থাপনায় আইসিইউ শয্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নিতে হবে। বিমানবন্দর ও কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে যতগুলো আইসিইউ শয্যা ও ভেন্টিলেটর পড়ে আছে সেগুলো দ্রুত স্থাপনের ব্যবস্থা করতে হবে। এছাড়া জেলা পর্যায়ে অন্তত ১০টি আইসিইউ শয্যাসহ ইউনিট করলেই সংকট কিছুটা কমানো যাবে।

এই জুলুমের শেষ একদিন হবে: বাবুনগরী-মানবজমিন

হেফাজতের আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, এই রোজা রমজানের দিনে নিরাপরাদ আলেম উলামাদের উপর অন্যায়ভাবে জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না। সারাদিন রোজা রেখে ইফতার করবে তার সুযোগ দিচ্ছেন না। তারাবীর নামাজ থেকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে, সারারাত বাহিরে বাহিরে লুকিয়ে থেকে সাহরি খেতে আসে, ওখান থেকেও তুলে নিয়ে যাচ্ছে। রাতে ঘরে ঘরে তল্লাশির নামে মহিলাদের কষ্ট দিচ্ছে নিরাপরাদ সাধারণ জনগণকে ও হয়রানি করা হচ্ছে। শুক্রবার চট্টগ্রামের দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসার বড় মসজিদ বাইতুল করিমে জুমাপূর্ব বয়ানে এসব কথা বলেন তিনি।

বাবুনগরী বলেন, এই জুলুমের শেষ একদিন হবে। আল্লাহর আজাবকে ভয় করুন। তিনি বলেন, সরকার, প্রশাসন, জনগণ সবাইকে নসিহত করছি।

ভারতের কয়েকটি খবরের বিস্তারিত

ওদের গলায় দড়ি দিয়ে মরা উচিত, বিজেপিকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ মমতার-আজকাল

রাজ্যে চলছে পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ। এদিনেই প্রচারে মোদি-মমতা। পূর্ব বর্ধমানে আজ তিনটি জনসভা করছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। গলসির সভা থেকে বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করেছেন তিনি। মমতা বলেন, ‘সব সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিকে বেসরকারীকরণ করা হচ্ছে। গ্যাসের দাম আকাশছোঁয়া, উজ্জ্বলা যোজনাও হয়ে গেল!' ভোট চাইতে ক্যাশ দিতে এলে বিনে পয়সায় গ্যাস চাইবেন বলেও সাধারণ মানুষদের বলেছেন মমতা। এরই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি ইজ্জত প্রকল্প চালু করেছিলাম রেলমন্ত্রকে থাকাকালীন। যেখানে ১৫ টাকায় মান্থলি স্কিম চালু ছিল। সেটা বাতিল করে দিয়েছে। আমার দাবি, রেলের ইজ্জত ফিরিয়ে দাও।' এরই সঙ্গে মমতা বলেন, ওদের লজ্জায় গলায় দড়ি দেওয়া উচিত‌।'

চার দফা ভোটদান, তৃণমূল খানখান', আসানসোল থেকে ফের তৃণমূল বিদায়ের ডাক মোদির-সংবাদ প্রতিদিন

ভোট পঞ্চমীতে ফের বাংলায় নির্বাচনী প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। শনিবার আসানসোলের নিঘার প্রচারসভা থেকে ভোটপ্রচারে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলোধোনা করলেন বিজেপির হেভিওয়েট প্রচারক।জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী মোদি বললেন, “চার দফা ভোটদান, তৃণমূল খানখান।” কয়লাঞ্চলে চলতে থাকা মাফিয়ারাজ, কয়লা পাচার নিয়েও ঘাসফুল শিবিরকে একহাত নিলেন তিনি।  

এদিনের সভায় বিপুল জনসমাগম দেখে আপ্লুত বিজেপি তারকা প্রচারক। বললেন, “লোকসভা নির্বাচনে প্রচারে এসে এত ভিড় দেখিনি। এখন যেদিকে দেখছি, শুধু মানুষই মানুষ। আমি এর আগে এমন জনসমাগম দেখিনি।” তাঁর কথায়, “আপনার একটা ভোটদান আপনার এলাকাকে মাফিয়ারাজ থেকে মুক্ত করবে।” সভামঞ্চ থেকেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রীর বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ আনলেন মোদি।এদিনের সভায় বিপুল জনসমাগম দেখে আপ্লুত বিজেপি তারকা প্রচারক। বললেন, “লোকসভা নির্বাচনে প্রচারে এসে এত ভিড় দেখিনি। এখন যেদিকে দেখছি, শুধু মানুষই মানুষ। আমি এর আগে এমন জনসমাগম দেখিনি।” তাঁর কথায়, “আপনার একটা ভোটদান আপনার এলাকাকে মাফিয়ারাজ থেকে মুক্ত করবে।” সভামঞ্চ থেকেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রীর বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ আনলেন মোদি।

শীতলকুচির পর দেগঙ্গাতেও চলল গুলি! কেন্দ্রীয় বাহিনী কোনও গুলি চালায়নি জানাল কমিশন-আজকাল

রাজ্যে চলছে পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ পর্ব। সকাল থেকেই বিক্ষিপ্ত অশান্তি চলছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। ফের একবার সংবাদের শিরোনামে উঠে এল কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি চালানোর ঘটনা। শীতলকুচির পর এবার দেগঙ্গায় গুলি চালানোর অভিযোগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। দেগঙ্গার কুড়লগাছার স্থানীয় গ্রামবাসীদের অভিযোগ সিআরপিএফের জওয়ানরা গুলি চালিয়েছে তাঁদের উপর। গাছের ছায়ায় বসে তাঁরা গল্প করেছিলেন কয়েকজন গ্রামবাসী। আর তখনই কোনও কারণ ছাড়াই গুলি চালায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। যদিও সিআরপিএফের তরফে জানানো হয়েছে, দেগঙ্গার কুড়লগাছা এলাকায় কোনও গুলি চালানো হয়নি।

আনন্দবাজারের খবর-বাংলার সংস্কৃতি ভুলবেন না: ‘দিদির গালি, দিদির ভাষা’ নিয়ে খোঁচা মোদীর। অন্যদিকে তোপ দেগেছেন মোদিকে মমতা। তিনি বলেছেন, দেশে করোনা আর উনি প্রচার করে বেড়াচ্ছেন।করোনা সামাল দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিছু করেননি বলে অভিযোগ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার পূর্বস্থলী উত্তর ও দক্ষিণের জনসভায় বক্তৃতা করেন তৃণমূল নেত্রী।

এদিকে ফোনে আড়িপাতা নিয়ে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেব’, গলসি থেকে আক্রমণ মমতার-সংবাদ প্রতিদিন

খেলা তো হবেই। আমার মা বোনেরা আসছেন, আমিও তাই মনের জোরে আসছি। ভোটটা দেবেন। মাথায় রাখবেন, আপনার নাম যেন ভোটার তালিকায় থাকে। আমি এনপিআর করতে দেব না। দরকার হলে পান্তা ভাব খাবেন, কিন্তু ভোটটা দেবেন। বিজেপি-কে একটা একটা করে গোল দিয়ে মাঠের বাইরে বের করে দেবেন। ওদের কোনও কথায় বিশ্বাস করবেন না। বাংলাকে আমরা বিক্রি করতে দেব না। গুন্ডাদের হাতে বাংলা যাবে না। বাংলাকে গুজরাত করতে দেব না। ভোটে বিজেপি জিতলে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ সব লুটেপুটে খেয়ে পালাবে।

অডিও ক্লিপ ফাঁস হওয়া নিয়ে তিনি বিজেপিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন,  সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেব।দৈনিকটি এ সম্পর্কে আরও লিখেছে, মুখ্যমন্ত্রীর অডিও ফাঁস হলো কীভাবে? পাল্টা এ প্রশ্ন করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।#

পার্সটুডে/গাজী আবদুর রশীদ/১৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।
 

ট্যাগ