এপ্রিল ২৮, ২০২১ ১৫:১৫ Asia/Dhaka

শ্রোতাবন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক প্রীতি আর শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আপনাদেরই চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। আজও অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় আপনাদের সঙ্গে রয়েছি আমরা তিনজন। আমি রেজোয়ান হোসেন, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: আসরের শুরুতেই আমি বাণী শোনাতে চাই। ইমাম হাসান (আ.) বলেছেন, “কিয়ামতের দিন শুধুমাত্র সেসব মানুষ নিরাপদে থাকবে দুনিয়ার জীবনে প্রতিটি পদক্ষেপ নেয়ার সময় যাদের অন্তরে আল্লাহর ভয় কাজ করেছে।”

আকতার জাহান: খুবই মূল্যবান একটি বাণী শুনলাম। আমরা সবাই যেন প্রতিটি পদক্ষেপ নেয়ার সময় মহান আল্লাহর আদেশ-নিষেধের কথা ভাবি- এ কামনা করে নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে। আসরের প্রথম মেইলটি এসেছে বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের ভূবিরচর থেকে। আর পাঠিয়েছেন মো. আতিকুল ইসলাম আতিক। এ শ্রোতা ভাই নরসুন্দা বেতার শ্রোতা পরিবার-এর সভাপতি। তিনি লিখেছেন, “রেডিও তেহরানে এটি আমার প্রথম চিঠি হলেও বেশ কিছুদিন ধরেই নিয়মিত শুনছি। অনুষ্ঠানগুলো থেকে জানতে পারছি ইরানের কৃষ্টি, সংস্কৃতি, মূল্যবোধ, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও উৎসবসমূহ সম্পর্কে। যেগুলো সুস্থ ধারার বিনোদন প্রদান করে চলছে; একইসাথে ইরান সম্পর্কে নানাবিধ অজানা তথ্য জানতে পারছি। তথ্যগুলো আমাদেরকে ইসলামি ভাবাদর্শে আদর্শিত হতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলে আমি মনে করি।

আশরাফুর রহমান: আমাদের বিশ্বসংবাদ সম্পর্কে এ শ্রোতাবন্ধু কিছু লিখেছেন কি?

আকতার জাহান: হ্যাঁ, লিখেছেন। আমি বরং তার চিঠি থেকেই পড়ে শোনাচ্ছি। আতিক ভাই লিখেছেন, রেডিও তেহরানের সংবাদ আমার খুব ভালো লাগে। এমন নিরপেক্ষ ও সাহসী খবর আর কোনো বেতার কেন্দ্র প্রচার করে না। এছাড়া সংবাদ ভাষ্যের অনুষ্ঠান দৃষ্টিপাত আমার খুব ভালো লাগে। এর প্রতিটি প্রতিবেদনেই যেন আমার মনের কথাগুলো বলা হয়।”

রেজোয়ান হোসেন: প্রিয়জনে লেখা প্রথম চিঠিতে রেডিও তেহরানের বিশ্বসংবাদ এবং অনুষ্ঠানমালা সম্পর্কে চমৎকার মতামতের জন্য আতিকুল ইসলাম আতিক ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করি এখন থেকে নিয়মিত লিখবেন।

বাংলাদেশের পাবনা জেলার বালিয়া হালট থেকে রফিকুল ইসলাম খান পাঠিয়েছেন পরের চিঠিটি। তিনি লিখেছেন, “অনেক বছর পরে আজ আবার আপনাদেরকে লিখছি, সত্যি সত্যিই খুব ভালো লাগছে। মনে হচ্ছে আবার যেন সেই ছাত্র জীবনে ফিরে গেছি। ঐ সময় আমি রেডিও তেহরান-এর নিয়মিত শ্রোতা ছিলাম। নিয়মিত চিঠি লিখতাম, কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতাম। সত্যিই দিনগুলো, বছরগুলো ছিল অসাধারণ। ইরানের জন্য এবং রেডিও তেহরানের জন্য শুভ কামনা ও শুভেচ্ছা রইল।

আশরাফুর রহমান: ভাই রফিকুল ইসলাম খান, আপনার চিঠি পেয়ে আমাদেরও ভালো লাগছে। আশা করি এখন থেকে আবারো লিখবেন।   

আশরাফুর রহমান: বাংলাদেশের পর এবার ভারত থেকে আসা একটি মেইলের দিকে নজর দিচ্ছি। পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট থেকে এটি পাঠিয়েছেন বিধান চন্দ্র সান্যাল। তিনি লিখেছেন, প্রতিদিনই রেডিও তেহরান শুনছি। অনুষ্ঠান শুনে তার ফিডব্যাকও পাঠাচ্ছি। পাশাপাশি ফেসবুক পেজে লাইক, কমেন্ট ও শেয়ারও করছি। আমি রেডিও তেহরানকে ভালোবাসি। ভালোবাসি ইরানের সংস্কৃতিকে। ইরান আমেরিকা তথা পাশ্চাত্যের রক্ত চক্ষুকে উপেক্ষা করে যেভাবে এগিয়ে চলছে তাতে তাকে কুর্নিশ জানাতেই হয়।

আকতার জাহান: বিধান দা’কে ধন্যবাদ। ইরান ও রেডিও তেহরানের প্রতি ভালোবাসামাখা এই ছোট্ট চিঠিটির জন্য।

বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার মল্লিকাদহ গ্রাম থেকে হরিদাস রায় পাঠিয়েছেন এই মেইলটি। রেডিও তেহরানে এটি তার প্রথম চিঠি।

এ শ্রোতাবন্ধু লিখেছেন, রেডিও তেহরানের প্রতিটি অনুষ্ঠানই আমার হৃদয় ছুঁয়ে যায়। তবে রংধনুর আসর আমার কাছে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে। ইরান ভ্রমণ অনুষ্ঠানটিও ভালো লাগে। এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা ইরানের বিভিন্ন স্থানের আকর্ষণীয় বর্ণনা পেয়ে থাকি। তবে অনুষ্ঠান শুনে আমার সেই জায়গা ভ্রমণের ইচ্ছে জাগে। জানি না কোনদিন ইরানের সেইসব সুন্দর সুন্দর জায়গায় ভ্রমণ করতে পারব কিনা।

রেজোয়ান হোসেন: প্রথম চিঠির জন্য হরিদাস রায়কে বিশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আশা করি নিয়মিত আপনার লেখা পাব।

আসরের পরের মেইলটি এসেছে কিশোরগঞ্জ থেকে। আর লিখেছেন গুরুদয়াল কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহাদত হোসেন। দৃষ্টিপাতে অনুষ্ঠানে নর্থ-সাউথ ট্রান্সপোর্ট করিডোর বা এনএসটিসি সম্পর্কে প্রতিবেদনটি ভালো লেগেছে জানিয়ে তিনি লিখেছেন, একসময় ইউরোপ থেকে এশিয়ায় পণ্য পরিবাহিত হতো আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণে অবস্থিত উত্তমাশা অন্তরীপ ঘুরে। সুয়েজ খাল তৈরির পর ইউরোপ ও এশিয়ার যাতায়াত ও পণ্য পরিবহণ অনেক সহজ হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এটি পৃথিবীর দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্রপথ হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে। কিন্তু রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে বেশ কিছুদিন ধরেই এ পথে পণ্য পরিবহণে সমস্যা হচ্ছিল। ঠিক এরকম একটি অবস্থায় সুয়েজ খালের বিকল্প পথ হিসেবে ইরানের নর্থ-সাউথ ট্রান্সপোর্ট করিডোর বা এনএসটিসি রুট সম্পর্কে জানতে পেরে খুব ভালো লেগেছে।

আশরাফুর রহমান: এনএসটিসি রুট সম্পর্কে শাহাদত ভাইয়ের মতামতের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো। তাঁর পুরো লেখাটি পড়তে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট parstoday.com/bn     

আকতার জাহান: অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে কয়েকজন শ্রোতার চিঠির প্রাপ্তিস্বীকার করছি।

  •  বাংলাদেশের কক্সবাজার থেকে ইফতেখার 
  •  শরিফা আক্তার পান্না কিশোরগঞ্জ থেকে
  •  চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল থেকে মো. আবদুল মান্নান
  • আতাউর রহমান রঞ্জু রংপুর থেকে।
  • এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান থেকে হাফিজুর রহমান

রেজোয়ান হোসেন: চিঠি লিখার জন্য আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ। তো শ্রোতাবন্ধুরা, এবারে আমি কয়েকজন ডিএক্সারের নাম-ঠিকানা জানিয়ে দিচ্ছি যারা আমাদের অনুষ্ঠানের শ্রবণমান রিপোর্ট পাঠিয়েছেন।

  • বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারি থেকে আবদুল কুদ্দুস মাস্টার।
  • গাজীপুর থেকে ফিরোজ আলম
  • টাঙ্গাইল থেকে আবু তাহের
  • পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ থেকে এসএম নাজিমউদ্দিন
  • কুচবিহারের আমলাগুড়ি থেকে তপন বসাক
  • এবং দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে রতন কুমার পাল

আশরাফুর রহমান: ধৈর্য ধরে শর্টওয়েভে অনুষ্ঠান শোনার পর রিসিপশন রিপোর্ট পাঠানোয় আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ তো বন্ধুরা, আজকের অনুষ্ঠান শেষ করব রোজার শিক্ষা সম্পর্কে একটি গান শুনিয়ে গানের কথা সুর তোফাজ্জল হোসাইন খান আর গেয়েছেন ওবায়দুল্লাহ তারেক, শাহাদত হোসাইনমোয়াজ্জেম হোসাইন, মিরাদুল মুনিম, নঈম সিদ্দিক এবং তোফাজ্জল হোসাইন খান  

আকতার জাহান: তো বন্ধুরা, আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২৮

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

ট্যাগ