সেপ্টেম্বর ০৭, ২০২১ ১৮:১৫ Asia/Dhaka

শ্রোতা ভাই-বোন ও বন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি চিঠিপত্রের আসর 'প্রিয়জন'। প্রতি সপ্তাহের মতো আজও চিঠিপত্রের ঝাঁপি নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি আমি গাজী আব্দুর রশীদ, আমি আকতার জাহান এবং আমি আশরাফুর রহমান।

আশরাফুর রহমান: আজও একটি বাণী শুনিয়ে আসর শুরু করতে চাই। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)র প্রাণপ্রিয় নাতি ইমাম হুসাইন (আ.) বলেছেন, পরীক্ষা বা ক্ষতির মুখোমুখি হলে খুবই কম মানুষই ধর্মের পথে অবিচল থাকে।

আকতার জাহান: আমরা সবাই যেকোনো পরিস্থিতিতে ধর্মের পথে অবিচল থাকার চেষ্টা করব- এ কামনা করে নজর দিচ্ছি চিঠিপত্রের দিকে। আসরের প্রথম চিঠিটি এসেছে বাংলাদেশের রাজবাড়ী জেলার খোশবাড়ী গ্রামের রংধনু বেতার শ্রোতা সংঘ থেকে। আর পাঠিয়েছেন ক্লাব সভাপতি শাওন হোসাইন।

রেডিও তেহরানের সাপ্তাহিক পরিবেশনা আসমাউল হুসনা’র প্রশংসা করে তিনি লিখেছেন, “একজন মুসলিম হিসেবে মহান আল্লাহর গুণবাচক নামগুলোর অর্থ ও মাহাত্ম্য জানতে আসমাউল হুসনা ধারাবাহিকটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা রাখছে। এই ধারাবাহিকের মাধ্যমে মহান আল্লাহর গুণবাচক নামগুলোর অর্থ ও মাহাত্ম্য জানতে পারছি যা আমাকে মহান আল্লাহ পবিত্র নামসমূহ সম্পর্কে জানতে ও বুঝতে সাহায্য করছে।

এরপর শাওন ভাই গত ৮ আগস্ট প্রচারিত আসমাউল হুসনা অনুষ্ঠানে মহান আল্লাহর গুণবাচক নাম কারিম সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য জেনেছেন বলে উল্লেখ করেছেন।

গাজী আবদুর রশীদ: একই অনুষ্ঠান সম্পর্কে বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক মোঃ শাহাদত হোসেন পাঠিয়েছেন একটি চিঠি। তিনি লিখেছেন, নিঃসন্দেহে আসমাউল হুসনা শ্রোতাদের অতি প্রিয় একটি অনুষ্ঠান। মহান আল্লাহর গুণবাচক নামগুলো জানার, এসব নামের তাৎপর্য ও ব্যাখ্যা জানার সৌভাগ্য হয় এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। আর এসব শুনে শুনে আমাদের মনে আল্লাহর প্রতি ভালোবাসা ও শ্রদ্ধাও বেড়ে যায় বহুগুণে। এটিই এ অনুষ্ঠানের বড় সাফল্য।   

আশরাফুর রহমান: শাওন হোসাইন ও শাহাদত ভাইকে ধন্যবাদ চমৎকার মতামতের জন্য। মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে এ অনুষ্ঠানের তাৎপর্য অনুধাবন করে নিজেদের জীবনকে পরিচালিত করার তওফিক দেন, সে কামনাই করি।

বাংলাদেশে পর ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে আসা একটি চিঠি হাতে তুলে নিচ্ছি। এটি পাঠিয়েছেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট থেকে বিধান চন্দ্র সান্যাল। তিনি ১৫ আগস্ট প্রচারিত রেডিও তেহরানের লাইভ অনুষ্ঠানের লিংক বেশকিছু গ্রুপে শেয়ার করেছেন বলে জানিয়েছেন। তিনি যেসব গ্রুপে লাইভ লিংক শেয়ার করেছেন সেগুলোর মধ্যে ১১টির নামও উল্লেখ করেছেন

আকতার জাহান: বিধান চন্দ্র সান্যালকে ধন্যবাদ নিয়মিত আমাদের নিউজ ও লাইভ অনুষ্ঠান ফেসবুকে শেয়ার করার জন্য। তবে সর্বাধিক শেয়ারার পুরস্কারের বিজ্ঞপ্তিতে আমরা বলেছিলাম প্রতি মাসের শেয়ার সংখ্যা একটি মেইলে জানাতে আশা করি প্রতিদিন না পাঠিয়ে প্রতি মাসের হিসাব একটি মেইলে পাঠাবেন  

শ্রোতাবন্ধুরা, এবারে ক্লাব কার্যক্রমের একটি খবর। এটি পাঠিয়েছেন সাউথ এশিয়া রেডিও ক্লাব বাংলাদেশ-এর ভাইস-চেয়ারম্যান তাছলিমা আক্তার লিমা। তিনি জানিয়েছেন, গত ৯ আগস্ট বিকেলে সিলেটের শাহপরান থানার বাহুবলে রেডিও তেহরান-এর প্রচারণার অংশ হিসেবে বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ক্লাবের  শাহপরান শাখার সভাপতি মখলিছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, রেডিও এক্টিভিস্ট ও ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান দিদারুল ইকবাল, ক্লাবের শাহপরান শাখার উপদেষ্টা ও উন্নয়নসংস্থা সীমান্তিকের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাজেদ আহমেদ চঞ্চল এবং উপদেষ্টা আব্দুল হালিম চারু।  

আলোচনা সভায় রেডিও তেহরান বাংলা বিভাগ থেকে প্রচারিত মধ্যপ্রাচ্যের চলমান ঘটনাপ্রবাহ ও বিশ্ব রাজনৈতিক সংবাদ, সংবাদ বিশ্লেষণ, ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের খবরাখবর ছাড়াও ইরানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা করা হয় বলে তাছলিমা আক্তার লিমা জানিয়েছেন।

গাজী আবদুর রশীদ: রেডিও তেহরান-এর প্রচারণার অংশ হিসেবে বিশেষ সভা আয়োজনের জন্য সাউথ এশিয়া রেডিও ক্লাব বাংলাদেশ-এর শাহপরান শাখাকে ধন্যবাদ। বেতার সংগঠকরা নিশ্চয়ই জানেন যে, চলতি বছর থেকেই ক্লাব কর্মকাণ্ডের ওপর ভিত্তি করে সবচেয়ে কর্মমূখর তিনটি ক্লাবকে শ্রেষ্ঠ ক্লাব পুরস্কার প্রদান করবে রেডিও তেহরান। শ্রেষ্ঠ ক্লাব হিসেবে আপনাদের ক্লাবটির স্বীকৃতি পেতে চাইলে এখন থেকেই ক্লাব কর্মকাণ্ডের খবরাখবর আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। আ জিতে নিন শ্রেষ্ঠ ক্লাবের শিরোপা।

আশরাফুর রহমান: এবারের চিঠিটি এসেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার মহেন্দ্রনগর অগ্রগামী ক্লাব থেকে। আর পাঠিয়েছেন ভাস্কর পাল। 

তিনি লিখেছেন, গত ১৩ আগস্ট আলাপন অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সালমা নাসরিনের পর্যালোচনা শুনে ভীষণভাবে উপকৃত হলাম। বাংলাদেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার বিষয়টি নিয়ে সঞ্চালক গাজী আব্দুর রশিদের করা প্রশ্নগুলির যুক্তিপূর্ণ উত্তর প্রদান করে বাংলাদেশের অসংখ্য ছাত্রছাত্রীর হৃদয় জয় করে নিলেন তিনি।

আকতার জাহান: ভাস্কর পালকে ধন্যবাদ আমাদের বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্পর্কে নিয়মিত মতামত জানানোর জন্য। আসরের এ পর্যায়ে আমরা সরাসরি কথা বলব বাংলাদেশি শ্রোতাবন্ধু মুহাম্মদ আব্দুল হাকিম মিঞার সঙ্গে।

 

গাজী আব্দুর রশীদ: আসরের এ পর্যায়ে আমরা রেডিও তেহরানের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে 'আইআরআইবি ফ্যান ক্লাব বাংলাদেশ' আয়োজিত প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্য থেকে একজনের লেখার কিছু অংশ তুলে ধরব। আজকের লেখাটি কুষ্টিয়ার খাদিমপুর বাজারের শ্রোতা মোঃ মোখলেছুর রহমানের। তিনি ওই প্রতিযোগিতায় চতুর্থ পুরস্কার জিতেছেন। মোখলেছ ভাই লিখেছেন,

আকতার জাহান: “রেডিও তেহরান হচ্ছে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের কণ্ঠ। কিন্তু তাই বলে সে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের খবরাখবরই পরিবেশন করে না- সারা বিশ্বের সঠিক, বস্তুনিষ্ঠ ও নিরপেক্ষ সংবাদ এবং বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নাবলী সম্পর্কে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের মতামত কী - তা শ্রোতাদের সামনে তুলে ধরাই এর একমাত্র লক্ষ্য। তাছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের নির্ধারিত লক্ষ্য এলাকার সেই সব খবর পরিবেশনও রেডিও তেহরানের দায়িত্ব ও কর্তব্যের মধ্যে অন্যতম।”

আশরাফুর রহমান: মোখলেছ ভাই আরও লিখেছেন, বিশ্বের বাংলা ভাষায় সম্প্রচারিত বেতার কেন্দ্রগুলোর মধ্যে গুণগত মান অনুযায়ী ‘রেডিও তেহরান’ সবার শীর্ষে। কারণ রেডিও তেহরানের চমৎকার সব তথ্য বহুল, শিক্ষণীয়, বিনোদনমূলক, ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলো শ্রোতাবন্ধুদের দারুণ আকৃষ্ট করে। চমৎকার সব শিক্ষণীয়, তথ্যবহুল, বিনোদনমূলক ও মনোগ্রাহী অনুষ্ঠানমালার ফলে দিন দিন শ্রোতা সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

গাজী আব্দুর রশীদ: মোখলেছ ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ চমৎকার লেখাটির জন্য। আশা করি মাঝেমধ্যে লিখে আমাদের উৎসাহ জোগাবেন।

বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার মল্লিকাদহ বালাপাড়া থেকে হরিদাস রায় পাঠিয়েছেন এবারের মেইলটি। তিনি লিখেছেন, রেডিও তেহরানের শ্রোতাদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত প্রদান করার জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ফেসবুক মেসেঞ্জারে প্রিয়জন গ্রুপ। বাংলাদেশ-ভারতসহ বহির্বিশ্বের প্রায় দুইশ শ্রোতা এই গ্রুপের সদস্য। এই গ্রুপের মাধ্যমে শ্রোতাবন্ধুরা ভালো লাগা, মন্দ লাগাসহ যেকোনো বিষয়ে স্বাধীনভাবে অভিমত প্রকাশ করে থাকেন, কোনো জিজ্ঞাসা থাকলেও তাও নির্দ্বিধায় করতে পারেন। কর্তৃপক্ষও সাধ্যানুযায়ী শ্রোতাদের কৌতুহল মেটানোর চেষ্টা করেন যা শ্রোতাদের সঙ্গে রেডিও তেহরানের বন্ধনকে সুদৃঢ় করছে বলে মনে করি।

আকতার জাহান: ফেসবুকে মেসেঞ্জারে প্রিয়জনের গ্রুপটি থেকে উপকৃত হচ্ছেন জেনে ভালো লাগল। চিঠি আর মতামতের জন্য হরিদাস রায় আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

কাতারের রাজধানী দোহা থেকে এবারের চিঠিটি পাঠিয়েছেন এইচ এম কাউসার। এ শ্রোতাবন্ধুর দেশের বাড়ি বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার বগাবাড়ি গ্রামে।

তিনি লিখেছেন, “প্রবাসে কাজের ফাঁকে নিয়মিত রেডিও তেহরানের বাংলা অনুষ্ঠান শুনছি। ৪ আগস্ট তারিখে প্রচারিত ‘স্বাস্থ্যকথা’ অনুষ্ঠানে মা ও শিশুর করোনা সংক্রমণ নিয়ে ডা. এম এম রবিনের আলোচনাটি ভালো লাগল। তবে ডা. এম এম রবিনের কথাগুলো তেমন ক্লিয়ার ছিল না। আশা করি আগামিতে সাক্ষাৎকার নেয়ার সময় বিষয়টি খেয়াল রাখবেন।”

আশরাফুর রহমান: ভাই এইচ এম কাউসার, ডা. এম এম রবিনের আলোচনা আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমাদেরও ভালো লাগছে। তার আপনি যে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তা আমরা গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করব। নিয়মিত চিঠি লেখার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আসরের শেষ চিঠিটি এসেছে ভারতের বর্ধমান জেলার চুপী থেকে। আর পাঠিয়েছেন মুহাম্মদ হাফিজুর রহমান।

ঐতিহাসিক ঈদে গাদির দিবসে রেডিও তেহরান থেকে প্রচারিত বিশেষ অনুষ্ঠান সম্পর্কে মতামত জানাতেই তিনি এ চিঠিটি লিখেছেন। হাফিজুর ভাই লিখেছেন, আল্লাহর নির্দেশে বিশ্বনবী (সা.) আলী (আ.)-কে তাঁর উত্তরসূরি বা স্থলাভিষিক্ত তথা মুসলমানদের ইমাম বা নেতা বলে ঘোষণা করেছিলেন পবিত্র গাদীর দিবসে। এটি বিশ্বের সব মুক্তিকামীদের দিবস, মজলুম ও বঞ্চিতদের দিবস, ন্যায়বিচারকামীদের দিবস, ইসলামের মহা-ঐক্যের দিবস এবং ইসলাম ও ইসলামী শাসন-ব্যবস্থার পরিপূর্ণতার দিবস। সুন্দর শিক্ষামূলক ও জ্ঞান বৃদ্ধিতে সহায়ক অসাধারণ মনোজ্ঞ একটি পরিবেশনা ছিল ঈদে গাদির উপলক্ষে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠানটি।

গাজী আব্দুর রশীদ: হাফিজুর রহমান ভাইকে ধন্যবাদ সুন্দর মতামতটির জন্য।

অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে কয়েকজন শ্রোতার নাম-ঠিকানা উল্লেখ করতে চাই, সময়ের অভাবে যাদের চিঠি আজ পড়া সম্ভব হলো না।

  • কিশোরগঞ্জের খড়মপট্টি থেকে শরিফা আক্তার পান্না
  • রংপুরের পীরগাছা থেকে এটিএম আতাউর রহমান রঞ্জু
  • আল আমিন হোসেন, আশাশুনি, সাতক্ষীরা
  • নারায়ণগঞ্জে আলী সাহারদি থেকে এইচ এম তারেক ও সাঈফ আহমেদ উৎস
  • এবং মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া থেকে আছিয়া আক্তার ইতি

আকতার জাহান: আমি ভারত থেকে আসা কিছু চিঠির প্রাপ্তিস্বীকার করছি।

  • পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ থেকে নিজামুদ্দিন সেখ
  • অসমের ভিলাই থেকে আনন্দমোহন বাইন
  • এবং জয়ন্ত চক্রবর্তী নয়াদিল্লি থেকে।

আশরাফুর রহমান: চিঠি লেখার জন্য আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তো বন্ধুরা, অনুষ্ঠান থেকে বিদায় নেয়ার আগে আজও রয়েছে একটি গান। গানের মূল শিল্পী আবদুল আলিম।  আর গেয়েছেন তার ছেলে জহির আলিম।

গাজী আবদুর রশীদ: তো বন্ধুরা, আপনারা গানটি শুনতে থাকুন আর আমরা বিদায় নিই প্রিয়জনের আজকের আসর থেকে। 

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

 

 

 

 

ট্যাগ