মে ০৪, ২০২২ ১১:৫৯ Asia/Dhaka

বন্ধুরা, ঈদের আনন্দঘন এ মুহূর্তে যে যেখানে বসে আমাদের অনুষ্ঠান শুনছেন তাদের সবাইকে জানাচ্ছি পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা 'ঈদ মুবারক'। ঈদ হচ্ছে রোজাদারদের জন্য আনন্দের দিন, খুশির দিন, পুরস্কারের সুসংবাদ প্রাপ্তির দিন। মহানবী (সা.) নামায, ইবাদত ও আনন্দ উৎসবের মধ্যদিয়ে এ দিনটি পালন করতেন।

আর সেই ধারাবাহিকতায় সারাবিশের মুসলমানরা হিংসা-বিদ্বেষ ও বৈষম্য ভুলে মেতে ওঠেন ঈদের আনন্দে।

ঈদ আনন্দে দেশে সবাই যখন আত্মহারা, তখনও প্রবাসীরা থাকেন কর্মস্থলে নয়তো ঘুমে। ঈদের রাত পেরিয়ে সকালবেলা ঘুম ভাঙার পর আশপাশে যখন পরিবারকে দেখা যায় না, তখন নিজের অজান্তেই চোখে পানি চলে আসে। মনে পড়ে যায় চিরচেনা গ্রামে ঈদ উদযাপনের স্মৃতিগুলো।

মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে পরিকল্পনা, প্রত্যাশা আর প্রস্তুতির কমতি থাকে না। ঈদের আগে কেনাকাটা, আত্মীয়-স্বজন ও গরিব-দুঃখী মানুষের কেউ ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কিনা- সে ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া আর ঈদের দিন সকালে মিষ্টি খেয়ে দলবেধে নামাজ পড়তে যাওয়া, নামায শেষে বাড়িতে ফিরে মা-বাবাকে সালাম করা, সালামি আদায় করা, আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে যাওয়া- এভাবেই কেটে যায় ঈদ।  

কিন্তু মিষ্টি মুখে নতুন জামা-কাপড় পরে ঈদগাহে যাওয়া- প্রবাসীদের জন্য যেন কেবলই স্মৃতি। ঈদ এলেই প্রবাসীরা নস্টালজিয়ায় ভোগেন। ঈদের দিন সকালবেলা ঘুম ভাঙার পর আশপাশে বাবা-মা, ভাই-বোন, স্ত্রী-সন্তান কিংবা আত্মীয়-স্বজনকে না পেয়ে নিজের অজান্তেই চোখে পানি চলে আসে তাদের। সবচেয়ে কষ্টকর বিষয় হচ্ছে- ঈদের দিনও তাদের কেউ কেউ কাজে যেতে বাধ্য হন।

বন্ধুরা, এসব কথা বলার উদ্দেশ্য নিশ্চয়ই ধরতে পেরেছেন! হ্যাঁ, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দুই পর্বের অনুষ্ঠানের আজকের পর্বটি সাজানো হয়েছে প্রবাসীদের ঈদ নিয়ে। এতে অংশ নিয়েছেন তুরস্ক, সৌদি আরব ও সিঙ্গাপুরের কয়েকজন প্রবাসী। আজকের অনুষ্ঠানটিও তৈরি করেছেন আশরাফুর রহমান। আর উপস্থাপনায় ছিলেন আকতার জাহান এবং আমি নাসির মাহমুদ।

(অনুষ্ঠানটি শোনার জন্য ছবির উপরে অডিওতে ক্লিক করুন)

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/আবুসাঈদ/৪

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন। 

ট্যাগ